কৃষিতে বাংলাদেশের ঈর্ষণীয় সাফল্যকে কাজে লাগাতে চায় জাম্বিয়া সরকার

প্রকাশিতঃ 5:39 pm | May 04, 2021

বিশেষ সংবাদদাতা, কালের আলো :

পূর্ব আফ্রিকার দেশ জাম্বিয়ার অর্থনীতি অনেকটাই কৃষিনির্ভর। কিন্তু এরপরেও দেশটিতে চাষযোগ্য অনাবাদি জমির পরিমাণ বাড়ছে। ফসল ফলানোর জন্য উর্বর মাটি থাকলেও কৃষি খাতে কার্যকর সাফল্যের দেখা নেই। আবহাওয়া অনেকটাই বাংলাদেশের মতো হলেও অগ্রগতির ধারা সূচিত করতে পারেনি ভিক্টোরিয়া জলপ্রপাতের দেশটি।  

আরও পড়ুন: জাম্বিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী-সেনাপ্রধানের সঙ্গে জেনারেল আজিজের সাক্ষাৎ

তবে কৃষিতে বাংলাদেশের ঈর্ষণীয় সাফল্য ও অভাবনীয় উন্নতিকে কাজে লাগিয়ে নিজেদের ঘুরে দাঁড়ানো নিশ্চিত করার মাধ্যমে কাঙ্খিত কৃষি বিপ্লব ঘটাতে চায় দেশটি। জাম্বিয়ার ভারপ্রাপ্ত প্রতিরক্ষামন্ত্রী মি. ওয়েজি লুখেল দেশটি সফরত বাংলাদেশ সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল ড.আজিজ আহমেদের কাছে এমন আগ্রহই প্রকাশ করেছেন।

উন্নয়নের রোল মডেল বাংলাদেশ ও দেশটির সেনাবাহিনীর সঙ্গে শক্তিশালী ও সুদৃঢ় সম্পর্ক স্থাপনে নিজের আকাঙ্খার কথাও জানিয়েছেন ওয়েজি লুখেল। সোমবার (০৩ মে) সেনাপ্রধানের সঙ্গে অনুষ্ঠিত এই বৈঠকে বাংলাদেশের সঙ্গে নিবিড়ভাবে কাজ করতে জাম্বিয়া সরকারের আন্তরিক অভিপ্রায়ের কথাও জানান দেশটির ভারপ্রাপ্ত প্রতিরক্ষামন্ত্রী।

আরও পড়ুন: রাষ্ট্রীয় সফরে জাম্বিয়া পৌঁছেছেন সেনাপ্রধান জেনারেল ড.আজিজ আহমেদ

জানা যায়, কৃষি এখন শুধু দুধে ভাতে বা মাছে ভাতে সীমিত নয়, পুষ্টিতেও বাংলাদেশ প্রশংসিত হচ্ছে বিশ্ব পরিমন্ডলে। বাংলাদেশ আজ ধান উৎপাদনে বিশ্বে তৃতীয়, মাছ উৎপাদনে চতুর্থ, ইলিশ উৎপাদনে প্রথম, গরু-ছাগল উৎপাদনে দ্বিতীয়, মৌসুমি ফলের মধ্যে কাঁঠাল উৎপাদনে প্রথম, আম উৎপাদনে সপ্তম, পেয়ারা উৎপাদনে অষ্টম।

ধান, গম ও ভুট্টা উৎপাদনেও ক্রমেই এগিয়ে চলছে বাংলাদেশ। বন্যা, খরা, লবণাক্ততা ও দুর্যোগসহিষ্ণু শস্যের জাত উদ্ভাবনেও শীর্ষে বাংলাদেশ।

আরও পড়ুন: জাম্বিয়ায় সামরিক কূটনীতি বিষয়ে বক্তৃতা দিলেন বাংলাদেশের সেনাপ্রধান

একই জমিতে বছরে একাধিক ফসল চাষের দিক থেকেও বাংলাদেশ এখন বিশ্বের জন্য উদাহরণ। জাতিসংঘসহ আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলো কৃষি উৎপাদন বাড়িয়ে খাদ্যনিরাপত্তা নিশ্চিত করায় বাংলাদেশের সাফল্যকে বিশ্বের জন্য উদাহরণ হিসেবে প্রচার করছে। এই সাফল্য সামগ্রিকভাবে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে।

আরও পড়ুন: সরকারি সফরে জাম্বিয়া যাচ্ছেন সেনাপ্রধান জেনারেল ড.আজিজ আহমেদ

কৃষিতে বাংলাদেশের বিস্ময়কর এই সাফল্য নিয়েই জাম্বিয়ার ভারপ্রাপ্ত প্রতিরক্ষামন্ত্রী মি. ওয়েজি লুখেলের সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা করেন দেশটিতে সফরত বাংলাদেশ সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ।

কৃষিতে বাংলাদেশের অভিজ্ঞতা ও সাফল্যকে কাজে লাগিয়ে নিজেদের কৃষি উন্নয়নের ক্ষেত্রে নব দিগন্ত উন্মোচন করতে চান জাম্বিয়া সরকারের প্রভাবশালী এই মন্ত্রী।

এজন্যই তিনি কৃষি ক্ষেত্রে বাংলাদেশের দক্ষতার সহায়তা নেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন। জাম্বিয়ান সরকারের এমন আগ্রহের কথা বাংলাদেশের সেনাপ্রধান সরকারের উর্ধ্বতন পর্যায়ের সঙ্গে আলোচনা করার প্রতিশ্রুতি দেন।

বিশ্লেষকরা বলছেন, বাংলাদেশ জাম্বিয়ার সরকারের কাছ থেকে জমি লিজ নিয়ে চাষাবাদ করতে পারে। কৃষি প্রযুক্তির ছোঁয়ায় এসব জমিতে উন্নত বীজ, সার ও কীটনাশক ব্যবহারের মাধ্যমে ধান চাষের পাশাপাশি ভুট্টা, ডালের বীজ ও গম চাষ করার বিপুল সুযোগ রয়েছে।

সূত্র মতে, জাম্বিয়ার অনাবাদী কৃষি জমি বাংলাদেশের দক্ষ কৃষি শ্রমিকদের কর্মসংস্থানেরও পথও তৈরি করতে পারে। পাশাপাশি সেখানকার উৎপাদিত ফসল প্রয়োজনমতো বাংলাদেশেও আনা সম্ভব হবে।

প্রসঙ্গত, সাত দিনের সরকারি সফরে গত শুক্রবার (৩০ এপ্রিল) সেনাপ্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ জাম্বিয়া গিয়ে পৌঁছেন।

তিনি জাম্বিয়ার ভারপ্রাপ্ত প্রতিরক্ষামন্ত্রী মিঃ ওয়েজি লুখেল ছাড়াও আর্মি কমান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল উইলিয়াম মাইপাম্বে সিকাজওয়ে ও এয়ার ফোর্সের ভারপ্রাপ্ত কমান্ডার মেজর জেনারেল বেনেডিক্ট টি কালিন্ডার সঙ্গেও পৃথক পৃথক সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছেন।

কালের আলো/এমএএএমকে

Print Friendly, PDF & Email