তীব্র তাপপ্রবাহে ‘হিট স্ট্রোকে’ দুই শিক্ষকের মৃত্যু, অসুস্থ হয়ে পড়ছে শিক্ষার্থীরা

প্রকাশিতঃ 6:12 pm | April 28, 2024

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের আলো:

তীব্র তাপপ্রবাহে সারাদেশে ২ স্কুল শিক্ষকের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। এরমধ্যে একজন যশোরের আমদাবাদ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আহসান হাবিব। আরেকজন চট্টগ্রামের কালুরঘাটের মাদরাসা শিক্ষক মাওলানা মো. মোস্তাক আহমেদ কুতুবী আলকাদেরী (৫৫)।

এদিকে, প্রচণ্ড গরমে রাজধানীর বিভিন্ন স্কুলে শিক্ষার্থীদের অসুস্থ হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এ পরিস্থিতিতে অনলাইনে ক্লাস নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন অভিভাবকরা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের ইংরেজি ভার্সনের চতুর্থ শ্রেণির শিক্ষার্থী সাদিকা রহমান ক্লাসেই অসুস্থ হয়ে পড়ে। সহপাঠীরা জানান, সকাল ৭টায় তার ক্লাস শুরু হয়ে ৯টা ৪০ মিনিটে শেষ হয়েছে। ছুটি হওয়ার পরপরই ওই শিক্ষার্থী বমি করতে শুরু করে এবং অসুস্থ হয়ে পড়ে।

দেখা গেছে স্কুল ছুটির পর এই বিদ্যালয়ের অনেক শিক্ষার্থীই ক্লান্ত চেহারা নিয়ে শ্রেণিকক্ষ থেকে বের হয়েছে। অভিভাবকরা বলেছেন, এভাবে কন্টিনিউ করলে বাচ্চাদের হাসপাতালে পাঠাতে হবে।

চতুর্থ শ্রেনির শিক্ষার্থী আবু তালহার মা কোহিনুর বেগম বলেন, ‘এই রোদ, গরমে বড়দেরই ঘর থেকে বের হওয়া কঠিন। সেখানে এত ছোট ছোট বাচ্চাদের স্কুলে পাঠানো কঠিন হয়ে পড়েছে। শিশুদের স্কুলে পাঠিয়ে এমন অনেক অভিভাবক উদ্বেগ জানিয়েছেন। তারা বলছেন, এই গরমের মধ্যে স্কুলে পাঠদান বন্ধ করে অনলাইনে ক্লাস নিলে ভালো হয়।

শিক্ষার্থী অসুস্থ হওয়ার খবর পাওয়া গেছে দেশের অন্য জেলা উপজেলা থেকেও। নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে একটি মাদরাসার শ্রেণিকক্ষে এক শিক্ষার্থী গরমের কারণে অসুস্থ হয়ে পড়েছে বলে জানা গেছে।

রোববার (২৮ এপ্রিল) সকাল ১০টার দিকে উপজেলার আমানউল্যাপুরের জয়নারায়ণপুর ইসলামিয়া ফাজিল মাদরাসায় এ ঘটনা ঘটে। প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ওই শিক্ষার্থীকে বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। অসুস্থ হয়ে পড়া শিক্ষার্থীর নাম আফিফা রিজওয়ানা। সে ওই মাদরাসার চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী এবং শিক্ষক দেলোয়ার হোসেনের মেয়ে।

অভিভাবক ঐক্য ফোরামের সভাপতি জিয়াউল কবির দুলু বলেন, ‘প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ যেখানে প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের হচ্ছে না সেখানে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিয়ে শিশুদের ঝুঁকিতে ফেলে দেওয়া হয়েছে। নতুন করে হিট অ্যালার্ট জারি করায় আরও এক সপ্তাহ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার পরামর্শ দিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। আমরাও আরও এক সপ্তাহ স্কুল-কলেজ বন্ধ রেখে অনলাইনে ক্লাস করানোর দাবি করেছি। কিন্তু সরকার তা শোনেনি। এখন শিক্ষার্থীরা অসুস্থ হয়ে পড়ছে এর দায় কে নেবে?’

এদিকে যশোরে আহসান হাবিব নামের এক সহকারী শিক্ষকের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। মৃত হাবিব রোববার (২৮ এপ্রিল) সকাল ৯টার দিকে গরমে সে অসুস্থ হয়ে পড়লে যশোর জেনারেল হাসপাতালে নিলে চিকিৎসকরা তাকে মৃতু ঘোষণা করেন।

আহসান হাবীব যশোর সদর উপজেলার দেয়াড়া ইউনিয়নের ছিলমপুর গ্রামের ইউছুপ আলী মোল্লার ছেলে। তিনি সদর উপজেলার আমদাবাদ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ছিলেন বলে জানা গেছে।

অন্যদিকে, চট্টগ্রামের কালুরঘাটে তীব্র গরমে অসুস্থ হয়ে মাওলানা মো. মোস্তাক আহমেদ কুতুবী আলকাদেরী (৫৫) নামে এক মাদরাসা শিক্ষক মারা গেছেন। রোববার (২৮ এপ্রিল) সকালে নগরীর চান্দগাঁও মোহরা এলাকার বাসা থেকে বোয়ালখালীর খিতাপচর এলাকার কর্মস্থলে যাচ্ছিলেন তিনি। যাওয়ার পথে তীব্র গরমে তিনি অজ্ঞান হয়ে পড়েন। পরে হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

মাওলানা মোস্তাক বোয়ালখালী উপজেলার খিতাপচর আজিজিয়া মাবুদিয়া আলিম মাদরাসায় শিক্ষক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তিনি কক্সবাজার জেলার কুতুবদিয়া লেমশীখালীর মৃত খলিলুর রহমানের ছেলে।

এদিকে টানা পাঁচ বারের মতো হিট অ্যালার্ট জারি করেছে আবহাওয়া অধিদফতর। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের চুয়াডাঙায় টানা দ্বিতীয় দিনের মতো সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৪২.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে। আর রাজধানী ঢাকার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৩৭.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

এই পরিস্থিতির মধ্যেই রোববার (২৮ এপ্রিল) সকাল থেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শুরু হয় পাঠদান।

কালের আলো/ডিএস/এমএম

Print Friendly, PDF & Email