শেষ হলো বঙ্গবন্ধু ম্যারাথন, হবে নিয়মিত

প্রকাশিতঃ 1:47 pm | January 10, 2021

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের আলো:

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস আজ। দিনটিকে স্মরনীয় করে রাখতে রোববার(১০ জানুয়ারি) অনুষ্ঠিত হয়ে গেলো বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ঢাকা ম্যারাথন। এতে স্বাগতিক বাংলাদেশ ছাড়াও ইথিওপিয়া, ফ্রান্স, কেনিয়া, বাহরাইন, মরক্কো, ইউক্রেন, বেলারুশ, মালদ্বীপ, নেপালসহ ২০০টি দেশের অ্যাথলেট অংশ নিয়েছিলেন।

আরও পড়ুন: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ম্যারাথন শুরু

দূরপাল্লার এই দৌড় সকালে আর্মি স্টেডিয়াম থেকে শুরু হয়ে সমাপ্ত হয়েছে হাতিরঝিলে। এতে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে স্বাগতিকদের অ্যাথলেট ছাড়াও আধিপত্য দেখিয়েছে- মরক্কো, কেনিয়া ও ইথিপিওয়ার অ্যাথলেটরা।

করোনার মহামহারিতে গত বছর বৈশ্বিক অনেক ইভেন্ট আয়োজন করা যায়নি। সেক্ষেত্রে ব্যতিক্রম উদাহরণ হয়ে থাকলো বাংলাদেশ। কারণ মহামারির পর বছরের প্রথম আন্তর্জাতিক বড় প্রতিযোগিতা আয়োজন করেছে বাংলাদেশ।

প্রতিযোগিতায় এলিট ক্যাটাগরিতে ছেলেদের মধ্যে প্রথম হয়েছেন মরক্কোর হিশাম লাকোহি। তিনি সময় নিয়েছে ২ ঘণ্টা ১০ মিনিট ৪০ সেকেন্ড। ২ ঘণ্টা ১০ মিনিট ৫১ সেকেন্ড সময় নিয়ে দ্বিতীয় হয়েছেন মরক্কোর আজিজ লামবাভি। তৃতীয় হয়েছেন কেনিয়ার জ্যাকব কিভেট। তিনি সময় নিয়েছেন ২ ঘণ্টা ১৩ মিনিট ১২ সেকেন্ড।

একই ক্যাটাগরিতে মেয়েদের মধ্যে কেনিয়ার অ্যাঞ্জেলা জিম আসুন্দে প্রথম হয়েছেন। তিনি সময় নিয়েছেন ২ ঘণ্টা ২৯ মিনিট ৪ সেকেন্ড। দ্বিতীয় হয়েছেন ইথিপিওয়ার ফান্তু এথিসা জিম্মা। তিনি সময় নেন ২ ঘণ্টা ৩২ মিনিট ৩১ সেকেন্ড। তৃতীয় হয়েছেন ইথিপিওয়ার বিরুপ তাহিত এসেতু দিগাফফা। তার লেগেছে ২ ঘণ্টা ৩৫ মিনিট ১৬ সেকেন্ড।

সাফ ক্যাটাগরিতে ছেলেদের মধ্যে ভারতেরই আধিপত্য ছিল। তাদের বাহাদুর সিং ২ ঘণ্টা ১১ মিনিট ৩৪ সেকন্ড সময় নিয়ে প্রথম হয়েছেন। মেয়েদের মধ্যে নেপালের পুষ্পা ভান্ডারি প্রথম হয়েছেন। তিনি সময় নিয়েছেন ২ ঘণ্টা ৫৯ মিনিট ৪১ সেকেন্ড।

এদিকে বাংলাদেশি রানার্স বিভাগে ছেলেদের মধ্যে প্রথম হয়েছেন ফারদিন মিয়া। তিনি সময় নিয়েছেন ২ ঘণ্টা ৯ মিনিট ২ সেকেন্ড।দ্বিতীয় হয়েছেন কামরুল হাসান। তার টাইমিং ছিল ২ ঘণ্টা ৪৮ মিনিট ৫৮ সেকেন্ড। ২ ঘন্টা ৪৯ মিনিট ৩০ সেকেন্ড সময় নিয়ে তৃতীয় হয়েছেন ফিরোজ খান।

হাফ ম্যারাথনে ছেলেদের মধ্যে প্রথম হয়েছেন কেনিয়ার এডউইন কিপরভ। তার সময় লেগেছে ১ ঘন্টা ৪ মিনিট ১১ সেকেন্ড। একই বিভাগে মেয়েদের এলিট ক্যাটাগরিতে প্রথম হয়েছেন কেনিয়ার নাউম জেবেথ। ১ ঘণ্টা ১৪ মিনিট ৪২ সেকেন্ড সময় নিয়ে এই অ্যাথলেট সেরা হয়েছেন।

হাফ ম্যারাথন বাংলাদেশি রানার ইভেন্টে প্রথম হয়েছেন মো. সোহেল রানা। তার সময় লেগেছে ১ ঘণ্টা ১৫ মিনিট ১৬ সেকেন্ড। ইলাহি সর্দার হয়েছেন দ্বিতীয়। তিনি সময় নেন ১ ঘণ্টা ১৬ মিনিট ২০ সেকেন্ড।তৃতীয় আল আমিন, তার টাইমিং ছিল ১ ঘণ্টা ১৬ মিনিট ৩০ সেকেন্ডে।

বাংলাদেশি রানার মেয়েদের ইভেন্টে প্রথম হয়েছেন পাপিয়া খাতুন। তিনি সময় নিয়েছেন ১ ঘণ্টা ৪২ মিনিট ৩৬ সেকেন্ড। দ্বিতীয় হয়েছেন সুমি আক্তার, ১ ঘণ্টা ৫০ মিনিট ২ সেকেন্ড সময় লেগেছে তার। তৃতীয় হয়েছেন সারওয়াত পারভিন। তার সময় লেগেছে ১ ঘণ্টা ৫৫ মিনিট ৩০ সেকেন্ড।

প্রতিযোগিতা শেষে বিজয়ীদের হাতে প্রধান অতিথি হিসেবে অর্থ পুরস্কার তুলে দিয়েছেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনী প্রধান ও অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি জেনারেল আজিজ আহমেদ

সেনাপ্রধান সমাপনী বক্তব্যের শুরুতেই বাংলাদেশের স্বাধীনতার মহান স্থপতি এবং বাঙ্গালী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

এ সময় অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি জেনারেল আজিজ আহমেদ করোনা মহামারীর মাঝেও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ঢাকা ম্যারাথন-২০২১ আয়োজন এবং দেশকে সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে নিয়ে যাবার জন্য প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

প্রতিবছর বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ঢাকা ম্যারাথন আয়োজনের ঘোষণা দিয়ে তিনি আগামীতে অ্যাথলেটদের এখন থেকে প্রস্তুতিও নেওয়ার আহ্বান জানান।

এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির প্রধান সমন্বয়ক কামাল আব্দুল নাসের চৌধুরী, সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসার (পিএসও) লেফটেন্যান্ট জেনারেল ওয়াকার-উজ-জামান।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন সেনাসদর দফতরের কোয়ার্টার মাস্টার জেনারেল (কিউএমজি) লেফটেন্যান্ট জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ, বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর মহাপরিচালক (ডিজি) মেজর জেনারেল মিজানুর রহমান শামীম, সেনাসদরের অ্যাডজুটেন্ট জেনারেল (এজি) মেজর জেনারেল শাকিল আহমেদ, সামরিক সচিব মেজর জেনারেল খালেদ আল মামুনসহ বিভিন্ন উর্ধ্বতন সামরিক কর্মকর্তা।

এর আগে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ঢাকা ম্যারাথনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মোঃ জাহিদ আহসান রাসেল।

কালের আলো/এসবি/এমএইচএ

Print Friendly, PDF & Email