স্বাস্থ্যমন্ত্রীর আশ্বাসে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের কর্মবিরতি প্রত্যাহার

প্রকাশিতঃ 7:28 pm | March 28, 2024

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের আলো:

স্বাস্থ্যমন্ত্রীর পক্ষ থেকে বেতন-ভাতা বৃদ্ধির আশ্বাস পাওয়ার পর কর্মবিরতি প্রত্যাহার করলেন আন্দোলনরত পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ট্রেইনি ও ইন্টার্ন চিকিৎসকরা।

হাসপাতালের বিছানায় রোগী রেখে চার দফা দাবি আদায়ে রাজধানীসহ সারাদেশে আন্দোলনে নেমেছিলেন তারা। তবে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর আশ্বাসে কর্মবিরতি নিলেও এক মাসের মধ্যে কোনো সুনির্দিষ্ট ফলাফল না পেলে আবারও রাজপথে নামার ঘোষণা দেন তারা।

বৃহস্পতিবার দুপুরে ইন্টার্ন চিকিৎসক ও পোস্ট গ্রাজুয়েট ট্রেইনি ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশনের সঙ্গে বৈঠকের পর স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. সামন্ত লাল সেনের আশ্বাসে তারা কর্মসূচি প্রত্যাহার করেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী সামন্ত লাল সেন বলেন, আমাদের শিক্ষানবিশ চিকিৎসকদের বেতন বৃদ্ধির দাবি বহুদিনের। বর্তমান বাজারে যেভাবে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি হয়েছে সেক্ষেত্রে বেতন বৃদ্ধি না হলে তাদের সংসার এবং দৈনন্দিন জীবন যাপন করা অত্যন্ত কষ্টকর হয়ে পড়বে। ফলে তাদের দাবির সঙ্গে প্রথম দিন থেকেই একাত্মতা ঘোষণা করেছি। কারণ এটি যৌক্তিক দাবি। ফলে তাদের সঙ্গে কয়েকবার বসেছি। তারা অনেক পরিশ্রম করেন এবং রোগীর সেবা দিয়ে থাকেন। হাসপাতালকে তারাই বাঁচিয়ে রাখেন। তারাই সুনাম বয়ে নিয়ে আসেন।

সামন্ত লাল সেন বলেন, তাদের বেতন বৃদ্ধি পাবে। এ বিষয়ে আমরা বিশদ আলোচনা করেছি। সংক্ষিপ্তভাবে যদি বলি, প্রধানমন্ত্রীকে এ বিষয়ে জানানোর পর তিনি বিষয়টি দেখবেন জানিয়েছেন এবং তাদের কাজে যোগ দিতে বলেছেন। প্রথমে তাদের বেতন বৃদ্ধি এবং পর্যায়ক্রমে তাদের অন্য দাবিগুলোর বিষয়েও ভেবে দেখবেন। আমি এ সংক্রান্ত কাগজও দিয়ে এসেছি। তবে তিনি আরও মাসখানেক সময় চেয়েছেন। ফলে ঈদের পর বলতে পারব কীভাবে তাদের বেতন বৃদ্ধি হবে।

এর আগে দুপুরে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইন্সটিটিউটে স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. সামন্ত লাল সেন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বিশেষ সভায় আন্দোলনের বিষয়টি নিয়ে মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী, সচিব, মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি, অধ্যক্ষ, পরিচালক সহ পেশাজীবি চিকিৎসক নেতৃবৃন্দের সঙ্গে আলোচনা করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

সভায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ, সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ, সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ, কর্নেল মালেক মেডিকেল কলেজসহ অন্যান্য বিভাগীয় ও জেলা পর্যায়ের মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে ইন্টার্ন চিকিৎসক পরিষদের নেতৃবৃন্দ অংশ নেন। তারা তাদের দাবিগুলোর মধ্যে বর্তমানে ভাতা ১৫ হাজার থেকে বাড়িয়ে ৩০ হাজার টাকা, প্রতিবছর এক হাজার টাকা করে ভাতা বৃদ্ধির ব্যবস্থা রাখা, হাসপাতালে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা, চিকিৎসকদের ঝুঁকিভাতা রাখা, বকেয়া ভাতা পরিশোধ করা সহ অন্যান্য দাবিসমূহ তুলে ধরেন।

গত চার দিন ধরে ভাতা বাড়ানো, বকেয়া ভাতা পরিশোধসহ চার দফা দাবিতে কর্মবিরতি পালন করে আসছিলেন সারাদেশের ইন্টার্ন চিকিৎসকরা। এ কারণে দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে স্বাভাবিক কার্যক্রম ব্যাহত হয়। রোগী ও তার স্বজনের ভোগান্তিতে পড়তে হয়।

কালের আলো/বিএস/এমএন

Print Friendly, PDF & Email