অল্প বৃষ্টিতে এখন আর ঢাকা শহর ডুবে যায় না : তাপস

প্রকাশিতঃ 8:12 pm | May 16, 2023

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের আলো:

আগে সামান্য বৃষ্টিতেই শহর তলিয়ে গেলেও এখন আর অল্প বৃষ্টিতে শহর ডুবে যায় না বলে জানালেন দক্ষিণ সিটি (ডিএসসিসি) মেয়র ব্যারিস্টার ফজলে নূর তাপস।

তিনি বলেন, আগে সামান্য বৃষ্টিতে জলনিমগ্ন হয়ে পড়তো পুরো নগরের প্রায় ৭০ ভাগ এলাকা। কিন্তু এখন আর সেটা হয় না।

মঙ্গলবার (১৬ মে) ডিএসসিসি নগর ভবনের মেয়র হানিফ মিলনায়তনে উন্নত ঢাকার উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় তিন বছর- শীর্ষক এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

ডিএসসিসির মেয়র হিসেবে দায়িত্বভার নেওয়ার ৩ বছর পূর্তি উপলক্ষে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে তাপস বলেন, জলাবদ্ধতা নিরসনে নিজস্ব অর্থায়নে ২২৫ কোটি টাকা ব্যয়ে গত তিন বছরে ১৩৬টি স্থানে অবকাঠামো নির্মাণ ও উন্নয়ন করা হয়েছে। ফলে সামান্য বৃষ্টিতে ঢাকা শহর এখন আর ডুবে যায় না।

মেয়র বলেন, ধানমন্ডি-২৭, পলাশী মোড়, আজিমপুর মোড়, শান্তিনগর, রাজারবাগ, সচিবালয়, মতিঝিল এলাকা বিশেষত নটরডেম কলেজের সামনের অংশ, বাংলাদেশ ব্যাংকের সামনে, কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনের সামনের রাস্তা, সূত্রাপুর শিল্পাঞ্চল এখন আর পানিতে ডুবে যায় না।

তিনি বলেন, মেয়রের দায়িত্ব নেওয়ার পর জলাবদ্ধতা নিরসনে আমরা সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিয়েছি। জলাবদ্ধতা নিরসনে স্বল্প ও মধ্যমেয়াদী কার্যক্রমের অংশ হিসেবে অবকাঠামো নির্মাণ ও উন্নয়ন, খাল, নর্দমা, বক্স কালভার্ট থেকে বর্জ্য ও পলি অপসারণ, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কার্যক্রম আধুনিকায়ন, আদি বুড়িগঙ্গা চ্যানেল পুনরুদ্ধার এবং খাল সংস্কার ও নান্দনিক পরিবেশ সৃষ্টির মতো কার্যক্রমের সুফল নগরবাসী ইতোমধ্যে পেতে শুরু করেছেন।

শহরের জলাবদ্ধতা নিরসনে নানা কর্মকাণ্ডের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, ঢাকা ওয়াসার কাছ থেকে দীর্ঘ ৩৪ বছর পর ২০২০ সালের ৩১ ডিসেম্বর শাখা প্রশাখাসহ ১১টি অচল খাল, বর্জ্যে জমাটবদ্ধ পাঁচটি বক্স কালভার্ট ও প্রায় ২০০ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের নলিকা নর্দমার মালিকানা ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

মেয়র আরও বলেন, দায়িত্ব নেওয়ার পরের দিন থেকে এসব খাল, বক্স কালভার্ট ও নর্দমা থেকে বর্জ্য অপসারণ, সীমানা নির্ধারণ ও দখলমুক্তির কার্যক্রম শুরু করি। এসব খাল, কালভার্ট ও নর্দমা থেকে ২০২১ সালে ৮ লাখ ২২ হাজার মেট্রিক টন, ২০২২ সালে ৪ লাখ ৪৪ হাজার মেট্রিক টন এবং চলতি বছরের এপ্রিল পর্যন্ত ১ লাখ ৩৫ হাজার মেট্রিক টন বর্জ্য ও পলি অপসারণ করা হয়েছে।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের আওতাধীন শ্যামপুর, মান্ডা, জিরানী ও কালুনগর এই চার খালের বর্জ্য ও পলি অপসারণ এবং খাল সংস্কার করে নান্দনিক পরিবেশ গড়ে তোলার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

মেয়র বলেন, ৮৯৮ কোটি টাকা ব্যয়ে বাস্তবায়িত হতে যাওয়া এই চারটি খালের নকশা, অঙ্কন ও জরিপ কাজ চলমান রয়েছে। একইসঙ্গে এ সব খাল থেকে বর্জ্য অপসারণ ও ভূমি উন্নয়নের লক্ষ্যে দরপত্র কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে।

এসময় মেয়র গত তিন বছরে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের সার্বিক উন্নয়ন চিত্র তুলে ধরেন। সংবাদ সম্মেলনে দক্ষিণ সিটির সব বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ কাউন্সিলররা উপস্থিত ছিলেন।

কালের আলো/এআইএ

Print Friendly, PDF & Email