ভালো নেই চঞ্চল চৌধুরী

প্রকাশিতঃ 4:16 pm | December 15, 2022

শোবিজ ডেস্ক, কালের আলো:

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী। টেলিভিশন, মঞ্চ, চলচ্চিত্র কিংবা বিজ্ঞাপন-মিডিয়ায় সব মাধ্যমেই পদার্পণ তার। শহুরে বা গ্রামীণ চরিত্রে সাবলীল অভিনয়ের মধ্য দিয়ে নিজের দক্ষতা প্রকাশ করেছেন দর্শকের মাঝে। যেকোনো চরিত্রকে বাস্তবের কাছাকাছি পৌঁছে দেওয়ার এক বিশেষ প্রতিভা রয়েছে এই অভিনেতার।

বড় পর্দায় চঞ্চল চৌধুরী বরাবরই প্রশংসিত। অভিনয় দিয়েই পেয়েছেন দুই বাংলায় জনপ্রিয়তা। তবে মন ভালো নেই চঞ্চল চৌধুরী। এমনটাই জানালেন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এক পোস্টের মাধ্যমে।

তিনি লেখেন, ‘বাড়ীর উঠোনেই স্কুল,বাবা সেই স্কুলের প্রধান শিক্ষক। যে কারণে স্কুলের মাঠ,গাছপালা,স্কুল ঘর,বই পত্র। সব কিছুকেই পৈত্রিক সম্পত্তি ভাবতাম। ছোট বেলায় যতটা ভালো ছাত্র ছিলাম,তার চেয়ে অনেক বেশী ছিলাম দূরন্ত। যদিও রোল নম্বর সব সময়ই এক/দুই/তিনের মধ্যেই থাকতো। সৎ এবং নাম করা শিক্ষক হিসেবে আমার বাবাকে এলাকার সবাই একনামে চিনতো,এখনো চেনে। যে কোন জায়গায় গেলে,বাবার ছেলে হিসেবেই বেশী সমাদর পেতাম। কয়েক বছর আগ পর্যন্তও দুলাল মাস্টারের সন্তান হিসেবেই এলাকায় সবাই পরিচিত হতাম।’

তিনি আরও লেখেন, ‘বাবাকে একদিন জিজ্ঞাসা করেছিলাম, ছোটবেলা থেকে তোমার পরিচয়ে পরিচিত হয়ে এসেছি,এখন যখন তোমাকে কেউ চঞ্চল চৌধুরীর বাবা বলে চেনে,তোমার কেমন লাগে? বাবা কোন উত্তর না দিয়ে আমার দিকে শুধু ভেঁজা চোখে কিছুক্ষন তাঁকিয়ে ছিল। তার সেই গর্বিত মুখটা দেখে,আমার চোখ দুটোও ঝাপসা হয়ে গিয়েছিল। সন্তানের সকল সফলতায় বাবা মায়ের যে কি শান্তি,কি আনন্দ। তা আমি দেখেছি। কয়েকটা দিন হলো, বাবা হাসপাতালের বিছানায় অচেতন। চোখের জলে আমাদের বুক ভেসে যায়,আর প্রার্থনা করি,আমার বাবা সুস্থ্য হয়ে উঠুক। বাবা মাকে হাসপাতালের বিছানায় রেখে কোন সন্তানই ভালো থাকতে পারে না। আমিও ভালো নেই।’

কালের আলো/এমএইচ/এসবি

Print Friendly, PDF & Email