ভোক্তারা প্রতিটি ক্ষেত্রে প্রতারিত হচ্ছে, এভাবে প্রতারণা চলতে পারে না : ভোক্তার ডিজি

প্রকাশিতঃ 7:45 pm | September 06, 2022

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের আলো:

প্রতারণা করে কেউ ছাড় পাবে না জানিয়ে জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক শফিকুজ্জামান বলেছেন, ভোক্তারা প্রতিটি ক্ষেত্রে প্রতারিত হচ্ছে। অভিযানে গেলেই তা ধরা পড়ছে। এভাবে প্রতারণা চলতে পারে না। লাগাম টেনে ধরতে হবে। কেউ ছাড় পাবে না।

মঙ্গলবার (০৬ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর কাওরান বাজারে ভোক্তা অধিদপ্তরের সম্মেলন কক্ষে ভোক্তা-সুপার সপ ব্যবসায়ী পর্যায়ে মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

শফিকুজ্জামান বলেন, ৬৮ টাকার চাল সুপার প্রিমিয়াম নামে বিভিন্ন সুপার সপে ৮২ টাকা কেজি বিক্রি করা হচ্ছে। এভাবে প্রতারণা চলতে পারে না। আমরা বাজার থেকে মিনিকেট শব্দটা উঠিয়ে ফেলতে চাই।

তিনি বলেন, বাইরে যে চাল ৬৮ টাকা বিভিন্ন সুপার সপ ৮২ টাকা কেজি বিক্রি করছে। এখানে ব্লেম গেম খেলা হচ্ছে। কেউ কোন দায় নিতে চাচ্ছে না। ভোক্তারা সচেতন হচ্ছে। বিধায় অভিযোগ বাড়ছে। এতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে প্রতারণা জানা যাচ্ছে ।’

প্রসাধন সামগ্রীর জন্য বিখ্যাত আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ড ইউনিলিভারের কথা তুলে ধরে ভোক্তা অধিদপ্তরের ডিজি বলেন, ইউনিলিভার কোম্পানি বেশি মূল্যে প্রায় পণ্য বিক্রি শুরু করছে। এটা দেখার কেউ নাই। কিন্তু আমি একজন ভোক্তা হিসাবে এটা দেখা শুরু করেছি। গভীরভাবে দেখা হবে। এভাবে বেশি দাম বাড়াচ্ছে তা যৌক্তিক কিনা খতিয়ে দেখা হবে।

তিনি বলেন, অপরদিকে, সিঙ্গার কোম্পানি বিজ্ঞাপন প্রচার করছে শতভাগ নিশ্চিত ক্যাশব্যাক। এ ব্যাপারেও বাজার অভিযান শুরু হয়েছে, এটা ভয়াবহ অবস্থা, তা দেখা হচ্ছে। দেশে কত রকমের যে প্রতারণা হচ্ছে তা অভিযানে গেলেই ধরা পড়ছে। ভোক্তাদের স্বার্থেই তা দেখা হচ্ছে।

ভোক্তার ডিজি আরও বলেন, সুপার শপগুলো স্বাধীন দেশে যে যার মতো দাম নিচ্ছে। এর লাগাম টেনে ধরতে হবে।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাব তিনি বলেন, খাদ্য মন্ত্রণালয়ের ডিক্লেয়ার করেছে মিনিকেট নামে কোন চাল নাই, তা বাজেয়াপ্ত করতে হবে। মোটা চালকে ছাটাই করে চকচকে করা হয়। এ ব্যাপারে ভোক্তাদেরও সচেতন হবে। তাহলে এটা বন্ধ হয়ে যাবে। আমরা বাজার থেকে মিনিকেট শব্দটা উঠিয়ে দিতে চাই। একই চাল ভিন্ন দামে বিভিন্ন সুপারসপে বিক্রি করা হচ্ছে, এটাও খতিয়ে দেখা শুরু হয়েছে।

ভোক্তা অধিকারে প্রতারিত হয়ে অভিযোগ করলে ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়ে মহাপরিচালক বলেন, সোনারগাঁ জুয়েলাস, সেন্টমার্টিন পরিবহন, লাজ ফার্মার লিমিটেডসহ অনেক প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা করা হয়েছে। কেউ প্রতারিত হলে ভোক্তা অধিদপ্তরে অভিযোগ করলে তার প্রতিকার পাওয়া যাবে এটা নিশ্চিত।

কালের আলো/ডিএস/এমএম

Print Friendly, PDF & Email