তাইজুল-মুস্তাফিজে বাংলাদেশের দাপট, ধুঁকছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ

প্রকাশিতঃ 8:43 pm | July 16, 2022

স্পোর্টস ডেস্ক, কালের আলো:

সবশেষ ওয়ানডেটা সেই ২০২০ এর মার্চে খেলেছেন তাইজুল ইসলাম। এরপর কেটে গেছে একে একে ২৮টি মাস। রঙিন জার্সি আর গায়ে জড়ানো হয়নি তার। অবশেষে তার সে অপেক্ষা ফুরোলো আজ। অপেক্ষা শেষে যখন ফিরলেন, রীতিমতো অগ্নিমূর্তিই ধারণ করলেন যেন।

অধিনায়ক তামিম প্রত্যাবর্তনের ম্যাচে তাইজুলকে আক্রমণে আনেন ইনিংসের তৃতীয় ওভারে। প্রথম বলেই তুলে নেন উইকেট, সেটাও কী দারুণ এক বলে! বলটা ডানহাতি ব্যাটসম্যান ব্রেন্ডন কিংয়ের মিডল আর লেগ স্টাম্পের মাঝে রেখেছিলেন বাঁহাতি এই স্পিনার। সেটা আলতো একটা বাঁক নিয়ে প্রথমে ভাঙে কিংয়ের রক্ষণ, এরপর স্টাম্প। ম্যাচের প্রথম ব্রেকথ্রুটা এনে দেন তাইজুল।

তাইজুলের পর ক্যারিবীয়দের তৃতীয় উইকেট তুলে নিয়েছেন মুস্তাফিজ। মাত্র ১৬ রানে ক্যারিবীয়দের তিন উইকেট তুলে নিয়ে দাপট দেখাচ্ছে বাংলাদেশ।

সিরিজ নিশ্চিত হওয়ায় বাংলাদেশের একাদশে পরিবর্তন আসাটা অনুমিতই ছিল। সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে সেটাই হয়েছে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ম্যাচটিতে এক পরিবর্তন নিয়ে মাঠে নেমেছে বাংলাদেশ। মোট এক পেসার ও তিন বিশেষজ্ঞ স্পিনার নিয়ে একাদশ সাজিয়েছে বাংলাদেশ।

অন্যদিকে ওয়েস্ট ইন্ডিজও একাদশে এক পরিবর্তন এনেছে। আজকের ম্যাচে দলে রাখা হয়নি কাইল মায়ার্সকে। তাঁর জায়গায় স্বাগতিকদের একাদশে এসেছেন ডানহাতি ব্যাটসম্যান কিসি কার্টি।

টানা দুই জয়ে ২-০ ব্যবধানে এরই মধ্যে সিরিজ নিজেদের পকেটে পুরেছে বাংলাদেশ। এবার হোয়াইটওয়াশ করতে পারলেও টেস্ট ও টি-টোয়েন্টির হতাশা ভুলে স্বস্তি নিয়ে দেশে ফিরতে পারবে তামিম ইকবালের দল।

ওয়েস্ট উইন্ডিজকে আজ হোয়াইটওয়াশ করলে এটি হবে বাংলাদেশের ওয়ানডে ইতিহাসে ১৫তম। আর জিততে পারলে মুখোমুখি দেখায় জয়ের সংখায় উইন্ডিজের সঙ্গে সমতা আনবে লাল-সবুজের দল।

এখন পর্যন্ত এই ফরম্যাটে ৪৩ বার মুখোমুখি হয়েছে দুই দল। এর মধ্যে ২১ বার জিতেছে উইন্ডিজ আর বাংলাদেশ জিতেছে ২০ বার। ২টি ম্যাচের ফল হয়নি। আজ বাংলাদেশ জিতলেই দুই দলের পরিসংখ্যান হবে ২১।

এ ছাড়া ম্যাচটি স্রেফ নিয়মরক্ষার। সিরিজটি আইসিসির সুপার লিগের অংশও নয়। তা ছাড়া রেটিংও বাড়বে মাত্র ১। তাই কাগজে কলমে খুব একটা গুরুত্ব নেই। তবে চলমান সফরে যেভাবে হতাশায় ডুবেছে বাংলাদেশ সেক্ষেত্রে এই ম্যাচ জিতেই বাড়ি ফিরতে চাইবেন তামিম-মাহমুদউল্লাহরা।

কালের আলো/ডিএস/এমএম

Print Friendly, PDF & Email