২২ নয়, ২০ গজের পিচ চান রমিজ রাজা

প্রকাশিতঃ 8:01 pm | April 26, 2020

স্পোর্টস ডেস্ক, কালের আলো:

করোনা ভাইরাসের কারণে টালমাটাল ক্রিকেট বিশ্ব। কোভিড-১৯ এমনই এক রোগ যাতে ভবিষ্যতে খেলাটির কিছু নিয়মও পাল্টাতে বাধ্য করছে। যেমন খুব শিগগিরই ক্রিকেটের সবচেয়ে এক বড় ‘ট্যাবু’কে (নিষেধাজ্ঞা) বৈধ হিসেবে দেখা যেতে পারে ক্রিকেট দুনিয়ায়। এতদিন জঘন্য অপরাধ বলে বিবেচিত হওয়া বল টেম্পারিংকে বৈধতা দেওয়ার চিন্তা-ভাবনা করছে ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)।

সাধারণত বোলিংয়ের সময় বলকে শাইন করতে থুথু বা ঘামের ব্যবহার করে থাকেন ফিল্ডার-বোলাররা। কিন্তু করোনার সংক্রমণ এড়াতে এবার এর পরিবর্তে কৃত্রিম উপায়ে বল শাইন করার অনুমতি দিতে পারে আইসিসি।

করোনার কারণে হাত থুথুর ব্যবহারকে নিরাপদ মনে করছেন না আইসিসি’র মেডিকেল দল। বল টেম্পারিংকে বৈধতা দেওয়ার বিষয়ে বুধবার (২২ এপ্রিল) এক বৈঠকেও বসে আইসিসি।

তবে যদিও থুথু এবং ঘাম ব্যবহার বাদ দেওয়া হয় ও একই সাথে কৃত্রিম কোনো উপায়কে স্বীকৃতি না দেওয়া হয় তখন কি হবে? এতে করে বোলাররাই বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হবে। বিশেষ করে টেস্ট ক্রিকেটে রিভার্স সুইংয়ের একটা শিল্প আছে, যা বন্ধ হয়ে যেতে পারে। আর বোলারদের পক্ষ হয়ে এই সমস্যার সমাধান বাতলে দিয়েছেন পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক ও বর্তমানে ধারাভাষ্যকার হিসেবে কাজ করা রমিজ রাজা। এই সমস্যার সমাধানে তিনি তো শত বছরের বেশি সময় ধরে ক্রিকেট ইতিহাসের একটি অংশকেই পরিবর্তন করতে চাইছেন।

রমিজ রাজা এক ইউটিউব চ্যানেলে এ ব্যাপারে বলেন, ‘এখন আর ক্রিকেটাররা বলে থুতু বা ঘাম লাগাতে পারবে না। তার মানে বল পালিশ করতে সমস্যা হবে। পরিণতি, রিভার্স সুইং করা যাবে না। ফলে, টেস্ট ক্রিকেটের আকর্ষণ কমবে। কারণ, টেস্টে রিভার্স সুইং এক জন পেসারের খুব গুরুত্বপূর্ণ অস্ত্র। রিভার্স সুইং না থাকলে ব্যাট ও বলের ভারসাম্য নষ্ট হবে। এ ক্ষেত্রে পিচের সাইজ কমানোর কথা ভাবা হতে পারে। ২২ গজ নয়, পিচকে ২০ গজের করা হতে পারে। এতে ব্যাটিং সহজ হবে না।’

তার মানে বোলারদের সুবিধা কেড়ে নেওয়ার পাল্টা হিসেবে ব্যাটসম্যানদের চাপে ফেলতে পিচের মাপ কমানোর পরামর্শ দিলেন রমিজ ।

কালের আলো/বিএম/পিএএ

Print Friendly, PDF & Email