পুলিশের ২০ তম ব্যাচের ‘ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর’ এসপি মঈনুল!

প্রকাশিতঃ 12:41 pm | August 13, 2018

বিশেষ প্রতিবেদক, কালের আলো :

ময়মনসিংহ অত:পর নারায়ণগঞ্জ। অপরাধীদের বুকে কাঁপন ধরিয়ে তছনছ করে দিয়েছেন সাম্রাজ্য। লম্বা এই সময়টাতে মোটেও বিদ্যুৎগতিতে নয় কাজ করেছেন ঠান্ডা মাথায়ই। আবার কাজের স্বার্থেই কখনো কখনো হয়তো মাথা গরম করেছেন। তবে লম্ফঝম্ফটা মোটেও ধাঁচে নেই তাঁর। মানসিক জোরই যেন তাঁর সবচেয়ে বড় শক্তি।

সাফল্যে মুড়ানো ময়মনসিংহ ও নারায়ণগঞ্জ অধ্যায় শেষ করেও এই পুলিশ সুপার (এসপি) বলেন না ‘আই অ্যাম দ্য গ্রেটেস্ট’! অথচ ঢাকা রেঞ্জের মতো গুরুত্বপূর্ণ রেঞ্জে পরপর তিনবার শ্রেষ্ঠ পুলিশ সুপার (এসপি) নির্বাচিত হয়ে তিনি বলতেই পারেন ‘আমিই সেরা।’
কিন্তু নিজেকে লুকিয়ে রাখতেই যিনি অভ্যস্ত, প্রচারণার আলো থেকেই দূরে থাকতে যিনি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন সেই নিভৃতচারী এসপি মঈনুল হকের কালের আলো’র কাছে আবারো সরল উচ্চারণ ‘পেশাদারিত্ব থেকেই দায়িত্ব পালন করেছি। বাকীটা জীবন দেশের জন্যই কাজ করে যেতে চাই।’

পুলিশের ২০ তম ব্যাচের আলো ছড়ানো কর্মকর্তাদের মধ্যে এসপি মঈনুল হক অনন্য। কেউ কেউ বলেন, এই ব্যাচের সত্যিকারের ‘ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর’ তিনিই। অসাধারণ ব্যক্তিত্বের অধিকারী এই কর্মকর্তার কাজের স্টাইল অন্যদের চেয়েও আলাদা। চাকরি জীবনে পিপিএম পদকের পর তাঁর সাফল্যের ঝুলিতে রয়েছে বিপিএম পদকের সম্মান।

নিজের চেনা স্টাইলেই কাজ করে ময়মনসিংহের পর নারায়ণগঞ্জেও সাফল্যের নজির রেখেছেন এসপি মঈনুল হক। নিজের বিচক্ষণতা, দক্ষতা ও অনুসন্ধানের মাধ্যমে রূপগঞ্জের বড় অস্ত্র ভান্ডারের সন্ধান করে দেশকে বড় রকমের সন্ত্রাসী হামলার কবল থেকে মুক্ত করেছেন।

নব্য জেএমবি শীর্ষ নেতা ও গুলশান হামলার মাস্টারমাইন্ড বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত কানাডিয়ান নাগরিক তামিম আহম্মেদ চৌধুরীসহ তার আরও দুই সহযোগীকে ‘খতম’ করতেও তাঁর অবদান প্রশ্নাতীত।
এসপি মঈনুল হককে চিনেন, তাঁর কমিটমেন্ট সম্পর্কে জানেন এমন মানুষ মাত্রই বলেন, কাজের ধারাবাহিকতা ধরে রেখেই কাজ করেন এই পুলিশ কর্মকর্তা।

ময়মনসিংহের পাশাপাশি নারায়ণগঞ্জসহ আগের জেলাসমূহেও শত ব্যস্ততা আর নানা সীমাবদ্ধতা সত্ত্বেও তিনি চোখে আঙুল দিয়ে একটি বিষয় দেখিয়েছেন।
কীভাবে নেতৃত্বের কারিশমায় নিজেকে অন্য রকম এক উচ্চতায় নিয়ে যাওয়া যায়। জঙ্গিবাদ, মাদকসহ সব রকমের অপরাধ নির্মুলে তাঁর সাহসী ভূমিকা নজর কেড়েছে পুলিশে। এরই গতিধারায় এবারের মাসিক অপরাধ সভায় ঢাকা রেঞ্জ পুলিশের মধ্যে সার্বিক আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি উন্নতিতে ঢাকা বিভাগের মধ্যে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশংসিত ভূমিকা রাখায় এসপি মঈনুল হককে ঢাকা রেঞ্জের শ্রেষ্ঠ পুলিশ সুপার (এসপি) হিসেবে নির্বাচিত করা হয়।

পুলিশের ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি, সৎ ও সাদামনের মানুষ হিসেবে পরিচিত চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুনের কাছ থেকে রোববার (১২ আগষ্ট) তিনি এই পুরস্কার গ্রহণ করেন। হ্যাট্টিক যে কারো জীবনে বিরল ঘটনা হিসেবেই বিবেচ্য, মঈনুল হকের বেলাতেও হয়তো তাই।
হ্যাট্টিকের স্বাদ নেওয়া এই তারকা পুলিশ কর্মকর্তা ছাত্র জীবনে সক্রিয় ছিলেন ছাত্রলীগের রাজনীতিতে।

মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, বঙ্গবন্ধু আর শেখ হাসিনা অন্ত:প্রাণ মঈনুল বিশ্বাস করেন কাজের মধ্যে দিয়েই বেঁচে থাকা যায়। আর এমনটি করেই তিনি দেখিয়ে গেছেন ময়মনসিংহ এবং নারায়ণগঞ্জে। এসব অঞ্চলের বাসিন্দাদের হৃদয়ে স্থায়ী আসন পেতে তিনি ছুটেছেন নতুন মিশনে।

এই মিশন মধুকবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের কপোতাক্ষ নদ তীরবর্তী যশোর। সেখানেও হয়তো নিজের কীর্তি দিয়ে স্মরণীয় হয়ে থাকবেন ‘দ্য গ্রেটেস্ট’ এসপি মঈনুল হক, এমন প্রত্যাশা ভক্ত-অনুরক্তসহ সবারই।

কালের আলো/এএস/ওএইচ/এএ

Print Friendly, PDF & Email