ঢাকায় ফিরতে শুরু করেছে ঘরমুখো মানুষ

প্রকাশিতঃ 6:41 pm | June 22, 2024

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের আলো:

ঈদুল আজহার ছুটি শেষে ঢাকায় ফিরতে শুরু করেছে ঘরমুখো মানুষ। ফলে ঢাকায় ফেরা ট্রেনগুলোতে যাত্রীদের ভিড় দেখা গেছে।

পাশাপাশি অনেকেই আবার ঈদের সময় ছুটি না পাওয়ায় ঈদের পরে ছুটি নিয়ে পরিবারকে সময় দিতে ঢাকা ছাড়ছেন।

ট্রেনে করে ঢাকায় ফেরা যাত্রীদের অভিযোগ, ফিরতি পথে ট্রেনে অতিরিক্ত যাত্রীদের ভিড় ও বিলম্ব সাধারণ টিকিটধারী যাত্রীদের অনেকটা ভোগান্তিতে ফেলেছে।

তারা আগেভাগেই ট্রেনের টিকিট কেটে রেখেছিলেন। তবে ট্রেনগুলোতে অতিরিক্ত যাত্রীদের ভিড়ে আসন সংকট দেখা দিয়েছে। অনেকে টিকিট না পেয়ে দাঁড়িয়েই ঢাকায় ফিরছে।

শনিবার (২২ জুন) সকালে সরেজমিনে ঢাকা রেলওয়ে স্টেশন ঘুরে ও যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলে ফিরতি ঈদ যাত্রার এমন চিত্র দেখা গেছে।

প্ল্যাটফর্মে গিয়ে দেখা যায়, ঢাকায় ফিরতি ট্রেনগুলোতে তিল ধারার ঠাঁই নেই। এক একটা ট্রেন এসে থামছে আর হাজারো মানুষ ট্রেন থেকে নামছে। যাত্রীদের কারো কোলে শিশু, কারো হাতে ব্যাগ। এসব নিয়েই হনহন করে ছুটছেন প্ল্যাটফর্ম থেকে বের হওয়ার পথের দিকে।

যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ফিরতে পথে ট্রেনগুলোতে প্রচণ্ড ভিড় ছিল। এছাড়া নির্ধারিত সময় থেকে ট্রেনগুলো এক থেকে দুই ঘণ্টা পর্যন্ত বিলম্ব করেছে স্টেশনে পৌঁছাতে।

লালমনিরহাট থেকে দুই ঘণ্টা দেরিতে ঢাকা এসে পৌঁছেছে বুড়িমারী এক্সপ্রেস ট্রেনটি। লালমনিরহাট স্টেশন থেকে ট্রেনটিতে পরিবার নিয়ে উঠেছিলেন মো. তারেক আজিজ। ফেরার পথে ট্রেনে কোনো ভোগান্তিতে পড়তে হয়েছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, রাতে ট্রেনে উঠার সময় সবই ঠিকঠাক ছিল। বগুড়া ও সান্তাহারের পর থেকে ট্রেনে যাত্রীদের ভিড় অতিরিক্ত বেড়ে যায়। অতিরিক্ত যাত্রীর চাপে ট্রেনের ভেতরের আবহাওয়া অসহ্য গরমে পরিণত হয়। ফলে ছোট বাচ্চাদের সব থেকে বেশি কষ্ট হয়েছে। আর ট্রেনটি সকাল ৭টায় পৌঁছানোর কথা থাকলেও ঢাকায় এলো দুই ঘণ্টা দেরিতে।

বুড়িমারী এক্সপ্রেসের আরেক যাত্রী মাজহার মাহবুব বলেন, গ্রামে ঈদের ছুটি কাটিয়ে আজ ঢাকায় ফিরেছি। বঙ্গবন্ধুর সেতু পূর্ব স্টেশন থেকে ট্রেনে উঠেছি। ট্রেনের টিকিট না পেয়ে অনেক ভোগান্তিতে পড়তে হয়েছে। দাঁড়িয়ে এসেছি। ট্রেনে যাত্রীদের ভিড় ছিল অনেক। আগামী রোববার (২৩ জুন) থেকে অফিসে জয়েন করবো।

ঢাকা রেলওয়ে স্টেশনে শিডিউল বোর্ডের তথ্য অনুযায়ী, চিলাহাটিগামী নীলসাগর এক্সপ্রেস ভোর ৬টা ৪৫ মিনিটে ঢাকা স্টেশন ছেড়ে যাওয়ার কথা থাকলেও সেটি বেশ বিলম্বে সকাল ৯টায় ঢাকা স্টেশন ছাড়ে। লালমনিরহাটগামী বুড়িমারী এক্সপ্রেস সকাল সাড়ে ৮টায় ঢাকা ছেড়ে যাওয়ার কথা থাকলেও ট্রেনটি ঢাকায় পৌঁছায় সকাল ৯টায়। দেওয়ানগঞ্জগামী দেওয়ানগঞ্জ ঈদ স্পেশাল সকাল ৯টা ২৫ মিনিটে ছেড়ে যাওয়ার কথা থাকলেও সেটি সময় মতো ছেড়ে যায়নি।

ঢাকা রেলওয়ে স্টেশন কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, সকাল থেকেই ট্রেনগুলোতে যাত্রীদের ভিড় বেশি। বিভিন্ন জায়গা থেকে ট্রেনগুলো দেরিতে আসায় ঢাকা স্টেশন থেকে দেরিতে ছেড়ে যায়। ঢাকা স্টেশন থেকে আলাদাভাবে দেরিতে ছেড়ে যাওয়ার কোনো কারণ নেই।

কালের আলো/ডিএইচ/কেএ 

Print Friendly, PDF & Email