বিশ্বকাপ থেকে পাকিস্তানের বিদায়, যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাস

প্রকাশিতঃ 8:02 am | June 15, 2024

স্পোর্টস ডেস্ক, কালের আলো:

রাত ১২টা ১৬ মিনিট পর্যন্ত খেলা শুরুর শেষ সময়সীমা বেঁধে দিয়েছিল আইসিসি। ওই সময়ে যুক্তরাষ্ট্র-আয়ারল্যান্ড ম্যাচ মাঠে গড়ালে ৫ ওভারের খেলা হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু নিভু নিভু হয়ে জ্বলতে থাকা পাকিস্তানের শেষ আশার প্রদীপ নিভে গেল দমকা হাওয়ার তোড়ে।

বৃষ্টির কারণে যুক্তরাষ্ট্র-আয়ারল্যান্ড ম্যাচ পরিত্যক্ত। ফলে বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিশ্চিত হয়ে গেল বাবর আজমদের। অন্যদিকে অভিষেক আসরেই সুপার এইটে ওঠে ইতিহাস গড়ল যুক্তরাষ্ট্র।

আইসিসির সহযোগী দেশটি এক ঢিলে দুটি পাখি মেরেছে। সুপার এইট নিশ্চিত করার মাধ্যমে ২০২৬ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেও সরাসরি খেলা নিশ্চিত করে ফেলল যুক্তরাষ্ট্র। একইভাবে সেখানেও কপাল পুড়ল ২০০৯ বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়ন পাকিস্তানের। তাদের ওই আসরে খেলতে হবে বাছাইপর্ব পেরিয়ে।

চলতি আসরে বাবর আজমদের শুরুটা হয়েছিল খুব বাজেভাবে। অভিষেক আসরে খেলতে নেমেই তাদের হারিয়ে বড় আপসেটের জন্ম দেয় আমেরিকানরা। এরপর বাবর-শাহিনরা ভারতের কাছেও রোমাঞ্চকর ম্যাচে একেবারে তীরে গিয়ে হারে ৫ রানে। ফলে বাকি দুই ম্যাচ জিতলেও তাদের পয়েন্ট হতো ৪। অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্র পাকিস্তান ও কানাডাকে হারিয়ে আগেই ৪ পয়েন্ট আদায় করে নিয়েছে। আয়ারল্যান্ডের সঙ্গে পরিত্যক্ত হওয়া ম্যাচ থেকে আরও এক পয়েন্ট নিয়ে তাদের ভাণ্ডার দাঁড়াল ৫ পয়েন্টে। যা পাকিস্তানের ধরাছোঁয়ার বাইরে।

এর আগে যুক্তরাষ্ট্র ও আইরিশদের ম্যাচটি আয়োজনে সর্বাত্মক চেষ্টা ছিল কর্তৃপক্ষের। এমনকি ১২.১৬ মিনিটে অন্তত পাঁচ ওভারে ম্যাচ আয়োজনের পরিকল্পনাও ছিল। কিন্তু সব পরিকল্পনা ভেস্তে দিয়ে, পাকিস্তানি ভক্তদের স্বপ্ন চুরমার করে সাড়ে ১১টায় নামে মুষলধারে বৃষ্টি। ফলে ম্যাচ যে আর মাঠে গড়ানো সম্ভব নয়, সেটি জানাতে বাধ্য হয় আইসিসি।

এ নিয়ে সপ্তম সহযোগী দেশ হিসেবে বিশ্বকাপের সুপার এইটে উঠল যুক্তরাষ্ট্র। এর আগে আয়ারল্যান্ড ২০০৯, নেদারল্যান্ডস ২০১৪, আফগানিস্তান ২০১৬, নামিবিয়া ২০২১, স্কটল্যান্ড ২০২১ এবং নেদারল্যান্ডস ২০২২ আসরে সহযোগী দেশ হিসেবে সুপার এইটে উঠেছিল।

প্রসঙ্গত, নতুন কোচিং স্টাফ, পুরোনো নেতায় আস্থা এবং সর্বশেষ অবসর ভেঙে দলে ফেরানো হয় দুই তারকা ক্রিকেটারকে। বেশ আটঘাট বেধেই শিরোপা পুনরুদ্ধারের আশায় মার্কিন মুল্লুকে পা রেখেছিল সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়ন পাকিস্তান। আইসিসির সহযোগী দেশ যুক্তরাষ্ট্র এবং চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতের বিপক্ষে লো স্কোরিং ম্যাচে অবিশ্বাস্য হারের পর কানাডার বিপক্ষে ঘুরে দাঁড়ালেও শেষ পর্যন্ত সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের বিদায় ঠেকানো গেল না।

কালের আলো/ডিএইচ/কেএ

Print Friendly, PDF & Email