বৈমানিক জাওয়াদের বাড়িতে কান্নার রোল, দিশেহারা মা

প্রকাশিতঃ 9:24 pm | May 09, 2024

মানিকগঞ্জ প্রতিবেদক, কালের আলো:

কর্ণফুলী নদীতে প্রশিক্ষণ বিমান বিধ্বস্ত হয়ে বৈমানিক আসীম জাওয়াদ রিফাতের মৃত্যু সংবাদ শোনার পর থেকে মানিকগঞ্জে তার বাড়িতে চলছে শোকের মাতম। একমাত্র সন্তানকে হারিয়ে বাকরূদ্ধ হয়ে পড়েছেন মা নিলুফা আক্তার খানম।

এ ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। কান্নার রোল পড়েছে নিহত বৈমানিকের স্বজন ও প্রতিবেশীদের ঘরে।

বৃহস্পতিবার (৯ মে) সন্ধ্যার দিকে জেলা শহরের গোল্ডেন টাওয়ারের ৭তম তলায় গিয়ে এমন চিত্র দেখা গেছে।

বৈমানিক আসিম জাওয়াদের গ্রামের বাড়ি মানিকগঞ্জের সাটুরিয়া উপজেলার গোপালপুর গ্রামে। চাকরির কারণে স্ত্রী ও দুই সন্তানসহ চট্টগ্রামে থাকতেন তিনি।

আসিমের বাবা ডা. আমান উল্লাহ আর মা নিলুফা আক্তার খানম (অব) সাভার ক্যান্টনমেন্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষিকা ছিলেন।

রিফাতের খালাতো ভাই মো. মশিউর রহমান শিমুল বলেন, আসিম জাওয়াদ রিফাত ছিলেন অত্যন্ত মেধাবী। ছাত্রজীবনে রিফাত কখনও দ্বিতীয় হননি। সকালে জানতে পারি চট্টগ্রামে বিমানবাহিনীর প্রশিক্ষণের একটি বিমান বিধ্বস্ত হয়। দুপুর ১২টার দিকে খবর পাই আসিম জাওয়াদ রিফাত মারা গেছেন। দেশ রিফাতের মতো এক জন চৌকস অফিসারকে হারালো এবং রিফাতের বাবা ইতোমধ্যে চট্টগ্রামে উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছেন।

নিহত বৈমানিকের মামা মানিকগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও সিনিয়র সাংবাদিক সুরুষ খান বলেন, আমার ভাগিনা ছোটবেলা থেকেই মেধাবী ছিল। ছাত্রজীবন থেকেই পাইলট হওয়ার স্বপ্ন নিয়ে বড় হয়েছে সে। পারিবারিক জীবনে রিফাতের স্ত্রী ও ছয় বছর বয়সী মেয়ে আয়জা, এক বছরের ছেলে রয়েছে এবং তাদের নিয়ে চট্টগ্রামেই থাকত সে। বিমানবাহিনীর সব ফরমালিটি শেষে হেলিকপ্টার যুগে মানিকগঞ্জ বিজয় মেলার মাঠে মরদেহ আনার কথা রয়েছে।

এদিকে, স্কোয়াড্রন লিডার মুহাম্মদ আসিম জাওয়াদের মৃত্যুতে গভীর শোক জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

বিমান বাহিনী প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল শেখ আব্দুল হান্নান মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান।

প্রসঙ্গত, চট্টগ্রামের পতেঙ্গায় প্রশিক্ষণ বিমান বিধ্বস্ত হলে দুই পাইলট প্যারাসুটে নামতে সক্ষম হন। তবে এদের মধ্যে স্কোয়াড্রন লিডার আসিম জাওয়াদ রিফাত বৃহস্পতিবার (৯ মে) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে পতেঙ্গার বানৌজা ঈশা খাঁ হাসপাতালে মারা যান।

কালের আলো/এমএএইচ/ইউআর

Print Friendly, PDF & Email