দৃষ্টি কাড়ছে দর্শনার্থীদের, পুষ্পমেলায় নগরবাসীকে ‘প্রশান্তি’ উপহার মেয়র টিটুর

প্রকাশিতঃ 8:01 pm | January 16, 2023

অনিক খান, ময়মনসিংহ :

ফুল ভালোবাসার প্রতীক। প্রিয়জনকে শুভেচ্ছা জানানোরও অন্যতম মাধ্যম এই ফুলই। যান্ত্রিক জীবনের কোলাহলে হাঁপিয়ে উঠা নগরবাসীকে একদণ্ড প্রশান্তি উপহার দিতে আবারও পুষ্পমেলার আয়োজন করেছেন ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের (মসিক) মেয়র মো.ইকরামুল হক টিটু। নগরীর টাউন হল মাঠে মেলা শুরুর পর থেকেই দেশি-বিদেশি নানা জাতের ফুল দেখা এবং ফুলের চারা সংগ্রহ করতে ভিড় করছেন দর্শনার্থী ও ফুলপ্রেমীরা। ফুলের মৌ মৌ গন্ধে মাতোয়ারা টাউন হল আঙিনা।

গত কয়েক বছরের ধারাবাহিকতায় সোমবার (১৬ জানুয়ারি) দুপুরে নানা রঙের নানা জাতের দেশি ও বিদেশি ফুলের সমাহারের ১৫ দিনব্যাপী পুষ্পমেলা ফিতা কেটে এবং বেলুন উড়িয়ে উদ্বোধন করেন মসিকের মেয়র ইকরামুল হক টিটু। মন ভালো করা আর বিনোদনের অনিন্দ্য সুন্দর স্থানে রূপ নিয়েছে পুষ্পমেলার চারপাশ।

নানা শ্রেণীপেশার নারী-পুরুষ, কিশোর-কিশোরী থেকে শুরু করে শিশুরাও প্রথম দিনেই ঘুরতে এসেছেন মেলায়। অনেকেই নিজের সন্তানকে ফুলের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেয়ার পাশাপাশি পছন্দের ফুলের চারাও সংগ্রহ করছেন। পুষ্পমেলায় গোলাপ, গাঁদা, ডালিয়া, কসমসহ দেশি-বিদেশি নানা জাতের ফুল আর ফুল গাছের বিপুল সমারোহ নজর কেড়েছে। মেলায় স্থান পেয়েছে মোট ২২ টি স্টল।

পুষ্পমেলা উদ্বোধন করে গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেন ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের (মসিক) মেয়র মো.ইকরামুল হক টিটু। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমরা বেশ কয়েক বছর যাবত পুষ্পমেলার আয়োজন করে যাচ্ছি। আমাদের উদ্দেশ্য বিভিন্ন উদ্ভিদকে নতুন প্রজন্মের মাঝে পরিচয় করিয়ে দেওয়া। এই মেলার ইতিবাচক ফলাফল আমরা লক্ষ্য করছি। অনেকেই বাড়ির খালি জায়গায় বা ছাদ বাগানের জন্য চারা সংগ্রহ করতে পারছে, যা এলাকাকে সৌন্দর্যমন্ডিত করতে এবং সবুজায়নে সহযোগিতা করছে। আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি যাতে একটি নান্দনিক ও সুন্দর শহর গড়ে ওঠে।’

জানা যায়, করোনা মহামারিতে ফুল ব্যবসা ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। পুষ্পমেলার মাধ্যমে ফুল ব্যবসায়ীরা ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছেন। ১৫ দিনব্যাপী এ মেলায় ৫০ লাখ টাকার ফুল গাছের চারা বিক্রির উজ্জ্বল সম্ভাবনা রয়েছে।

মেলায় ফুলের চারা কিনতে এসেছেন সোলায়মান হায়দার। শৈশব থেকেই বাড়ির আঙিনায় ফুল ও ফলের বাগান করে আসছেন। হায়দার জানান, নিজেদের ছাদেও বাগান করেছি আমরা অনেকেই। এটি হাল সময়ে খুবই জনপ্রিয়। পুষ্পমেলার মধ্যদিয়ে এক সঙ্গে অনেক ফুলের সমাহার ঘটে। নিজের পছন্দমতো দেশি ও বিদেশি ফুলের চারা সংগ্রহ করার সুযোগ মেলে এখানে।

একই রকম কথা জানান পুষ্পমেলায় ঘুরতে আসা গৃহবধূ সামিয়া জামান। তিনি বলেন, ‘ফুলকে কে না ভালোবাসে! আগে থেকেই ফুল আমার অনেক প্রিয়। তাই বাড়ির ছাদে পছন্দের ফুলের বাগান করবো। এবারের পুষ্পমেলার আয়োজন উপভোগ করছি।’

স্ত্রী-সন্তান নিয়ে মেলায় আসা একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত সাব্বির আহমেদ পুরো আয়োজনে ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের মেয়রকে ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন, ‘প্রতি বছরই নগরীর বাসিন্দাদের কথা ভেবে সিটি মেয়রের কোন না কোন আয়োজন থাকে। থ্যাংক্স মেয়র।’

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ইউসুফ আলী, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. এইচকে দেবনাথ, জনসংযোগ কর্মকর্তা শেখ মহাবুল হোসেন রাজীব, খাদ্য ও স্যানিটেশন কর্মকর্তা দীপক মজুমদার, প্রশাসনিক কর্মকর্তা কাঞ্চন কুমার নন্দী, নার্সারি মালিক সমিতির নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

কালের আলো/এমএএএমকে

Print Friendly, PDF & Email