ভলিবলে চ্যাম্পিয়ন যুবা ও কৃতি সেনা অ্যাথলেটদের সংবর্ধনা, ক্রীড়াঙ্গনে সাফল্যে উচ্ছ্বসিত সেনাপ্রধান

প্রকাশিতঃ 12:03 am | January 12, 2023

বিশেষ সংবাদদাতা, কালের আলো:

সেদিন শেষ সেটের জন্যই যেন জমা ছিল সব উত্তেজনা। সমানে সমানে লড়াই করেছিল বাংলাদেশ-কিরগিজস্তান। শেষ পর্যন্ত উৎসব করেছিল লাল সবুজেরাই। কিরগিজস্তানকে ৩-২ সেটে হারিয়ে বিজয়ের হাসি হেসেছিলেন আলামিন, তন্ময়রা। বিজয়ের বৈজয়ন্তী উড়ানোর মাসে ‘বঙ্গবন্ধু এশিয়া সেন্ট্রাল জোন অনূর্ধ্ব-২৩ আন্তর্জাতিক ভলিবল টুর্নামেন্ট’এ প্রথমবার চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ।

রাজধানীর মিরপুরে শহীদ সোহরাওয়ার্দী ইনডোর স্টেডিয়ামে রোমাঞ্চকর এই ফাইনালে উপভোগ করেছিলেন বাংলাদেশ অলিম্পিক এসোসিয়েশনের (বিওএ) সভাপতি ও সেনাপ্রধান জেনারেল ড.এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ। বলেছিলেন, ‘ভলিবলের জনপ্রিয়তা আগের চেয়ে বেড়েছে।’ বিদায়ী বছরের বিজয়ের মাসে যুবাদের এশিয়া জয়ে কথা দিয়েছিলেন অপরাজিত চ্যাম্পিয়নদের সংবর্ধনা ও পুরস্কারের।

নতুন বছরের শুরুতেই কথা রেখেছেন বিওএ সভাপতি। ঢাকা সেনানিবাসের আর্মি মাল্টিপারপাস কমপ্লেক্সে বাংলাদেশ জাতীয় অনুর্ধ্ব-২৩ ভলিবল দলের গর্বিত সব খেলোয়াড়, কোচ এবং কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্টদের সংবর্ধনার আয়োজন করে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী। বাংলাদেশ ভলিবল ফেডারেশনের ব্যবস্থাপনায় ও বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে আয়োজিত এ সংবর্ধনায় প্রধান অতিথি হিসেবে ট্রফি ঘরে তোলা যুবাদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল ড.এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ।

একই সময়ে বাংলাদেশ অ্যাথলেটিক্স ফেডারেশনের ব্যবস্থাপনায় বঙ্গবন্ধু ৪৬তম জাতীয় অ্যাথলেটিক্স প্রতিযোগিতায় কৃতি সেনা অ্যাথলেটদেরও সংবর্ধনা দেয়া হয়। ওই প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনী অ্যাথলেটিক্স দল মোট ২১টি স্বর্ণ, ১৪টি রৌপ্য এবং ১৬টি তাম্র পদক পেয়ে চ্যাম্পিয়ন এবং ৭ জন প্রতিযোগী ট্রিপল জাম্প, হাই জাম্প, ১০ হাজার মিটার দৌড় ও ১০০ মিটার রিলে দৌড়ে জাতীয় রেকর্ড করার বিরল গৌরব অর্জন করে। বাংলাদেশ সেনাবাহিনী এ্যাথলেটিক্স দলের কৃতি অ্যাথলেট, কোচ ও ম্যানেজারদের হাতেও পুরস্কার তুলে দেন সেনাপ্রধান।

বঙ্গবন্ধুকন্যা, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মতোন ক্রীড়াপ্রেমী সেনাপ্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদও। বারবার স্মরণ করিয়ে দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী দেশকে এগিয়ে নিচ্ছেন। সেই সঙ্গে খেলাধুলাকেও সমান গুরুত্ব দিয়েছেন। বাংলাদেশ অলিম্পিক এসোসিয়েশনের সভাপতির দায়িত্ব নিয়েই এসোসিয়েশনে নতুন প্রাণসঞ্চার করেছেন। সাফল্য এসেছে নানা ক্ষেত্রেই। বাংলার মুখ উজ্জ্বল করা ক্রীড়াবীদদের এর আগেও সংবর্ধনার মাধ্যমে উজ্জীবিত অনুপ্রাণিত করেছেন। গত বছর সাফজয়ী বাংলার জয়িতাদের সেনা সদরের আর্মি মাল্টি পারপাস কমপ্লেক্সে ঘটা করেই বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে সংবর্ধনা দেয়া হয়। এর আগেও সেনাপ্রধান সাফ অনুর্ধ্ব-১৯ নারী ফুটবল দলকে সংবর্ধনা প্রদান করেছিলেন।

বাংলাদেশ জাতীয় অনুর্ধ্ব-২৩ ভলিবল দল ও কৃতি সেনা অ্যাথলেটদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ অলিম্পিক এসোসিয়েশনের (বিওএ) সভাপতি ও সেনাপ্রধান জেনারেল ড.এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘বিজয়ের মাসে আন্তর্জাতিক ও জাতীয় পর্যায়ের এই দুটি অর্জন অত্যন্ত প্রশংসার দাবী রাখে।’ এই অর্জনকে পুঁজি করে বাংলাদেশ জাতীয় অনুর্ধ্ব-২৩ ভলিবল দল আগামীতেও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে তাদের জয়ের ধারা অব্যাহত রাখবে বলে তিনি দৃঢ় আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

একই সঙ্গে দেশের ক্রীড়াঙ্গনে এই সাফল্যে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন সেনাপ্রধান। বিওএ সভাপতি মনে করেন, এমন সাফল্য সঞ্চার করবে নতুন প্রেরণার। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ জাতীয় অনুর্ধ্ব-২৩ ভলিবল দলের ম্যাচ সেরা খেলোয়াড়, টুর্নামেন্ট সেরা লিবারু ও সেটার, ম্যানেজার এবং কোচদের নগদ চেক প্রদান করা হয়। পাশাপাশি বাংলাদেশ সেনাবাহিনী অ্যাথলেটিক্স দলের কৃতি অ্যাথলেট, কোচ ও ম্যানেজারদেরকেও নগদ চেক প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ জাতীয় ভলিবল ফেডারেশনের সভাপতি ও ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম। এ সময় সেনাবাহিনীর চিফ অব জেনারেল স্টাফ (সিজিএস) লেফটেন্যান্ট জেনারেল আতাউল হাকিম সারওয়ার হাসান, কোয়ার্টার মাস্টার জেনারেল (কিউএমজি) লেফটেন্যান্ট জেনারেল মো. সাইফুল আলমসহ সেনাসদরের প্রিন্সিপাল ষ্টাফ অফিসাররা, অন্যান্য জ্যেষ্ঠ সামরিক কর্মকর্তারা, বাংলাদেশ ভলিবল ফেডারেশনের কার্যনির্বাহী কমিটির সভাপতি, শীর্ষ কর্মকর্তা ও সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

কালের আলো/এমএএএমকে

Print Friendly, PDF & Email