দালালমুক্ত পাসপোর্ট অফিস চান উপ-পরিচালক

প্রকাশিতঃ 11:59 pm | January 06, 2023

অনিক খান, ময়মনসিংহ :

ময়মনসিংহের আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে দালালের উৎপাত ঠেকাতে নতুন কর্মকৌশল নির্ধারণ করেছেন অফিসটির উপ-পরিচালক ড. হাফিজুর রহমান। ভুক্তভোগীদের অভিযোগ আমলে নিয়ে কঠোর অ্যাকশনে যাচ্ছেন। দালালমুক্ত পাসপোর্ট অফিস উপহারে জেলা প্রশাসনের কাছে চিঠি পাঠিয়েছেন তিনি। সংশ্লিষ্ট একাধিক ভুক্তভোগীদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষাসেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে তিনি এই আবেদন জানান।

ময়মনসিংহের আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের উপ-পরিচালক ড. হাফিজুর রহমান জানান, ‘গত বছরের ১২ ডিসেম্বর ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসক বরাবরে এই চিঠি প্রেরণ করা হয়েছে। চিঠিতে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেটকেও দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়।’

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের নির্দেশনা মোতাবেক পাসপোর্ট অফিসের আশপাশ এলাকায় অবস্থানরত অবাঞ্চিত ব্যক্তি তথা দালালদের বিরুদ্ধে অফিস সংলগ্ন এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা প্রয়োজন বলেও মনে করেন তিনি।

জানা যায়, পাসপোর্ট অফিস কেন্দ্রীক দালাল বহর যেন নিত্য নৈমিত্তিক বিষয়। কিন্তু দালালদের কারসাজিতে ব্যাপক ভোগান্তির মুখে পড়তে হয় সেবা প্রার্থীদের। অফিসে আসার আগেই দালালরা ফুসলিয়ে সহজ সেবা কঠিন করে থাকে। আর এ কারণে অনেক সেবা প্রার্থীদের কাছে পাসপোর্ট অফিস সম্পর্কে বিরূপ ধারণার সৃষ্টি হয়। ফলে পাসপোর্ট সেবা নিয়ে তিক্ত অভিজ্ঞতা রয়েছে বেশিরভাগ সেবা প্রার্থীর। দালাল, হয়রানি ও অতিরিক্ত অর্থ আদায় পাসপোর্ট অফিসের পুরোনো কলঙ্ক। তবে সেবা প্রার্থীদের মনের এই বিরূপ ধারণা পাল্টে দিয়ে শতভাগ স্বচ্ছ সেবা নিশ্চিত করতে গত এক বছর ধরে কাজ করছেন প্রতিষ্ঠানের উপ-পরিচালক ড. হাফিজুর রহমান।

ফলে অফিসের ভেতরের সকল কাজে স্বচ্ছতা ফেরানোর পাশাপাশি বাইরে দালালদের উৎপাত ঠেকাতে প্রশাসনের সহযোগিতা চান তিনি। এ বিষয়ে ড. হাফিজুর রহমান বলেন, ‘বর্তমান পাসপোর্ট অফিসের কাজে ভালো বা মন্দের বিচার সেবা গ্রহীতাদের উপর ছেড়ে দিয়েছি। আমি চেষ্টা করেছি অফিসের কাজে স্বচ্ছতা ফিরিয়ে আনতে। এ ব্যাপারে স্থানীয় প্রশাসন সব সময়ই সহযোগিতা করেছেন।

তবে সচেতন সেবা গ্রহীতাদের এখন পাসপোর্ট সংক্রান্ত বিষয়ে দালালের দ্বারস্থ হতে হয় না দাবি করে তিনি আরও বলেন, কোন সেবাপ্রার্থী সমস্যা মনে করলে সরাসরি আমার সাথে দেখা করতে পারছেন। কিন্তু গ্রামের সহজ সরল মানুষগুলো নিজের ইচ্ছায় না বুঝে দালালের দারস্থ হচ্ছেন। এতে স্বচ্ছতা ফিরিয়ে আনার অর্জন ম্লান হয়ে যাচ্ছে। এই অবস্থায় পাসপোর্ট অফিসের আশপাশ এলাকায় দালালের উৎপাত ঠেকাতে প্রশাসনের কাছে সহযোগিতা কামনা করা হয়েছে।’

কালের আলো/এসবি/একে

Print Friendly, PDF & Email