২৯ প্রতিষ্ঠানে তথ্য অধিকার বিঘ্নিত হবে না : আইসিটি বিভাগ

প্রকাশিতঃ 9:21 pm | October 09, 2022

ডেস্ক রিপোর্ট, কালের আলো:

গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পরিকাঠামো জনগণের তথ্য প্রাপ্তির অধিকারের সঙ্গে সাংঘর্ষিক নয় বা এর সঙ্গে তথ্য প্রাপ্তি সংক্রান্ত অধিকার ব্যাঘাত হওয়ার কোনো সম্পর্ক নেই বলে জানিয়েছে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগ।

রোববার (০৯ অক্টোবর) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে একথা বলা হয়। বিজ্ঞপ্তিতে এ বিষয়ে বিভিন্ন মহলের অপপ্রচারে বিভ্রান্ত না হওয়ার অনুরোধ জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘রাষ্ট্র ও জনগণের স্বার্থে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে এবং এই পরিকাঠামোগুলোর নিরাপত্তা সামান্যতম বিঘ্নিত হলে জনগণের বিপুল ক্ষতির কারণ হবে। এর সঙ্গে জনগণের তথ্যপ্রাপ্তি সংক্রান্ত অধিকার ব্যাঘাত হওয়ার কোনো সম্পর্ক নেই বা তথ্য প্রাপ্তির অধিকারের সঙ্গে এটি সাংঘর্ষিক নয়।’

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, ‘অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে লক্ষ্য করা যাচ্ছে যে, কতিপয় রাজনৈতিক দল ও প্রতিষ্ঠান সম্প্রতি তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ ঘোষিত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পরিকাঠামোসমূহ থেকে কোনোরূপ তথ্য পাওয়া যাবে না বলে বানোয়াট ও মনগড়া বক্তব্য দিয়ে জনমনে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে।’

পরে বলা হয়, ‘জনসাধারণের মন থেকে এ ধরনের বানোয়াট ও বিভ্রান্তি দূর করার লক্ষ্যে সরকারের বক্তব্য হচ্ছে—

গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পরিকাঠামো হচ্ছে সরকার ঘোষিত এইরূপ কোনো বাহ্যিক বা ভার্চুয়াল তথ্য পরিকাঠামো, যা কোনো তথ্য-উপাত্ত বা কোনো ইলেকট্রনিক তথ্যনিয়ন্ত্রণ, প্রক্রিয়াকরণ, সঞ্চারণ বা সংরক্ষণ করে এবং যা ক্ষতিগ্রস্ত বা সংকটাপন্ন হলে জননিরাপত্তা বা অর্থনৈতিক নিরাপত্তা বা জনস্বাস্থ্য, জাতীয় নিরাপত্তা বা রাষ্ট্রীয় অখণ্ডতা বা সার্বভৌমত্বের ওপর ক্ষতিকর প্রভাব পড়তে পারে।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের বিধান অনুসারে সরকারি গেজেটে প্রজ্ঞাপন দ্বারা ওই বিষয়গুলো বিবেচনা করে ২৯টি প্রতিষ্ঠানকে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পরিকাঠামো হিসাবে ঘোষণা করা হয়েছে।

এই প্রতিষ্ঠানসমূহে সরকার ও জনগণের গুরুত্বপূর্ণ ও আর্থিক তথ্যাবলী সংরক্ষিত থাকায় এদের সাইবার নিরাপত্তা নিশ্চিত করা অপরিহার্য। গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পরিকাঠামোসমূহের আইটি অডিট সম্পন্ন, যথাযথ অবকাঠামো নির্মাণ, সঠিক মানসম্পন্ন নেটওয়ার্ক রক্ষণাবেক্ষণ, যথাযথ স্ট্যান্ডার্ড অনুযায়ী হার্ডওয়্যার ও সফটওয়্যার ব্যবহার, দক্ষ ও যোগ্যতাসম্পন্ন মানব সম্পদ নিয়োগ ইত্যাদি কার্যক্রম দিয়ে পরিকাঠামোসমূহের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার মাধ্যমে জনসাধারণকে নিরাপদ ও নিরবচ্ছিন্নভাবে সেবাসমূহ পৌঁছে দেওয়াই এই ঘোষণার প্রধান উদ্দেশ্য।

উল্লেখ্য, ভারত, কোরিয়া, যুক্তরাজ্যসহ পৃথিবীর অনেক দেশে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পরিকাঠামোসমূহ চিহ্নিত রয়েছে।

কালের আলো/ডিএস/এমএম

Print Friendly, PDF & Email