চুরির পর থানায় স্কুলছাত্র, নতুন বাইসাইকেল দিলো এসপি

প্রকাশিতঃ 10:07 am | September 25, 2022

কালের আলো প্রতিবেদক:

নিজের বাসা থেকে সাইকেল হারিয়ে থানায় অভিযোগ ও হট লাইনে কল করায় নতুন বাইসাইকেল শুভেচ্ছা উপহার পেয়েছে শেরপুর পৌর শহরের স্কুল ছাত্র জুনায়েদ সিদ্দিক হাসিব।

শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে ওই স্কুল ছাত্রের হাতে নতুন সাইকেল তুলে দেন পুলিশ সুপার মো. কামরুজ্জামান বিপিএম। হাসিব শহরের বাগরাকসা এলাকার বাসিন্দা সেনা সদস্য জাহাঙ্গির আলম জুয়েলের ছেলে।

জানা গেছে, শুক্রবার (২৩ সেপ্টেম্বর) শেরপুর শহরের বাসা থেকে সাইকেলটি চুরি হয় হাসিবের। প্রতিকার পেতে হাসিব যায় শেরপুর সদর থানায়। সেখানে গিয়ে পুলিশের কাছে সাইকেল চুরির বিষয়টি জানায় সে।

তখন হাসিব এতটাই সংক্ষুব্ধ ছিল যে, সাইকেল না নিয়ে কোনোভাবেই থানা ছাড়তে চায়নি সে। সঙ্গে আসা মাকে নিয়ে থানাতেই অবস্থান নেয় স্কুলছাত্র। বিষয়টি হাসিবের মা জানান তার সেনাসদস্য স্বামী জাহাঙ্গীর আলম জুয়েলকে।

বর্তমানে কাতারে মিশনে থাকা জুয়েল বিষয়টি বুঝতে পেরে কল করেন শেরপুর জেলা পুলিশের নতুন সংযোজন ‘টক টু এসপি’তে। শেরপুরের নবাগত পুলিশ সুপার (এসপি) মো. কামরুজ্জামান, বিপিএমের সংযোজন এই হটলাইন।

নম্বরটিতে হাসিবের বাবা কল করার পর সেটি রিসিভ করেন শেরপুরের এসপি। তিনি বিষয়টি নিয়ে হাসিবের সঙ্গে কথা বলে শনিবার তাকে সাইকেল দেওয়ার আশ্বাস দেন। সে কথা শুনে মাকে নিয়ে বাড়িতে ফিরে যায় হাসিব।

কথা অনুযায়ী শনিবার দুপুরে নিজ কার্যালয়ের সম্মেলনকক্ষে হাসিবের হাতে নতুন সাইকেল তুলে দেন শেরপুরের এসপি।

হাসিবের পরিবার জানায়, শহরের এস এম পাবলিক স্কুলে পঞ্চম শ্রেণিতে পড়াশোনা করে হাসিব। স্কুল ও কোচিংয়ে নিয়মিত সাইকেল দিয়ে যাতায়াত করতো সে। শুক্রবার বিকেল ৪টার দিকে বাসা থেকে সাইকেলটি চুরি হয়। বাবা সেনা সদস্য হওয়ায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি অগাধ বিশ্বাস হাসিবের। এজন্য জিদ করে থানায় গিয়ে অভিযোগ করে সে।

শেরপুর পৌর শহরের বাগরাকসা এলাকার স্কুলছাত্র জুনায়েদ সিদ্দিক হাসিব। শুক্রবার (২৩ সেপ্টেম্বর) নিজ বাসা থেকে তার ব্যবহৃত সাইকেলটি চুরি হয়ে যায়

হাসিবের মা তাসলিমা বেগম কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেন, সাইকেল হারিয়ে হাসিব ভেঙে পড়েছে। তার বাবা চাইলেই আরেকটি সাইকেল কিনে দিতে পারতো। কিন্তু জিদ করে সে থানায় অবস্থান করে। পরে এই ঘটনা তার বাবা হটলাইনে ফোন দিয়ে এসপিকে জানান। তিনি আজকে হাসিবকে একটি নতুন সাইকেল উপহার দিয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, নবাগত এসপি এসেই এই হটলাইন সেবাটি চালু করেছেন। যার মাধ্যমে সাধারণ মানুষ খুব সহজেই তাদের যে কোনো সমস্যার কথা সরাসরি তাকে বলতে পারছেন। তাতে সমাধানও মিলছে দ্রুত। বিষয়টি এখন টক অব দ্য টাউনে পরিণত হয়েছে।

পুলিশ সুপার মো. কামরুজ্জামান বলেন, মানবিক পুলিশ সর্বদা মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছে। শিশু হাসিবের পুলিশের প্রতি অগাধ বিশ্বাস আমাদের মুগ্ধ করেছে। সাইকেল হারানোর কষ্ট লাঘবে আমরা তাকে এই ছোট উপহারটি দিয়েছি।

কালের আলো/ডিএস/এমএম

Print Friendly, PDF & Email