পদ্মা সেতু আমাদের গর্ব, অহংকার : প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিতঃ 11:51 am | June 25, 2022

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের আলো:

পদ্মা সেতু আমাদের গর্ব, অহংকার বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শনিবার (২৫ জুন) পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। বক্তব্যের শুরুতে সরকারপ্রধান ১৫ আগস্ট নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা এবং পদ্মা সেতুর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধন্যবাদ জানান।

যারা জমি দিয়ে সহযোগিতা করেছেন তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, অনেক বাঁধা ও ষড়যন্ত্রের মোকাবিলা করে আত্মবিশ্বাস নিয়ে এগিয়ে চলেছি। পদ্মা সেতু কেবল ইট সিমেন্টের সেতু নয়, এই সেতু আমাদের গর্ব, আমাদের অহংকার।

তিনি বলেন, এই সেতু বাংলাদেশের জনগণের। এর সঙ্গে জড়িয়ে আছে আমাদের আবেগ। আমাদের কেউ দাবিয়ে রাখতে পারেনি। আমরা বিজয়ী হয়েছি। বঙ্গবন্ধুর পদাঙ্ক অনুসরণ করেই বাংলাদেশ আজ বিশ্বের বুকে মাথা উচুঁ করে দাড়িয়েছে।

শেখ হাসিনা বলেন, সুকান্ত ভট্টাচার্য বলেছিলেন- সাবাস, বাংলাদেশ, এ পৃথিবী/অবাক তাকিয়ে রয়ঃ/জ্বলে-পুড়ে-মরে ছারখার/ তবু মাথা নোয়াবার নয়। আমরা মাথা নুয়াইনি, নোয়াব না। কারণ জাতির পিতা আমাদের মাথা নোয়াতে শিখাননি।

বঙ্গবন্ধু কন্যা আরও বলেন, এ দেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন ও কল্যাণ করা আমাদের দায়িত্বের মধ্যে পড়ে। কারণ এ দেশ আমার বাবা স্বাধীন করে দিয়েছেন।

তিনি বলেন, বিশ্ব ব্যাংক সরে যাওয়ার পর আমি সংসদে দাঁড়িয়ে ঘোষণা দিয়েছিলাম- নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু করব। বাংলাদেশের মানুষ সে ঘোষণায় সাড়া দিয়েছে। বিশেষজ্ঞ কমিটি সাহস দিয়েছে আমরা পারব। তাই আমরা পেরেছি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, যারা বলেছিলেন নিজস্ব অর্থায়নে এই সেতু বাস্তবায়ন সম্ভব নয়, তাদের প্রতি আমার কোন অভিযোগ নেই। আমি বিশ্বাস করি আজকের পর তাদেরও আত্মবিশ্বাস বাড়বে।

বাংলাদেশের জনগণই তার সাহসের ঠিকানা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের অর্থনীতি স্থবির হয়নি। অনেক প্রকল্প হাতে নিয়েছি। তাই বাংলাদেশের মানুষকে আমি স্যালুট জানাই।

সেতু সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী বলেন, পদ্মা সেতুর মান নিয়ে কোন আপস করা হয়নি। এই সেতুতে বিশ্বমানের প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে। পাশাপাশি ভূমিকম্প মোকাবিলায়ও ব্যবহার করা হয়েছে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি।

তিনি আরও বলেন, পদ্মা সেতু নির্মাণ থেকে আমাদের প্রকৌশলীরা যে অভিজ্ঞতা অর্জন করেছেন তা কাজে লাগিয়ে দেশ বিদেশের বড় বড় প্রকল্পে অবদান রাখতে পারবেন।

সরকারপ্রধান আরও বলেন, পদ্মার ওপারের মানুষ সবসময় অবহেলিত ছিল কিন্তু এখন দেশের দক্ষিণাঞ্চলে অর্থনৈতিক উন্নয়ন ঘটবে। শিল্পায়ন হবে। মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন ঘটবে।

বক্তব্য শেষে প্রধানমন্ত্রী সেতু বিভাগ ও সেতু কর্তৃপক্ষ, পদ্মা সেতু নির্মাণ প্রকল্পের সাথে জড়িত সকল কর্মকর্তা, সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান, ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাদের সঙ্গে ফটোসেশন করেন।

কালের আলো/এমএইচ/এসবি

Print Friendly, PDF & Email