ক্রেস্ট না নিয়ে শিক্ষামন্ত্রী বললেন উপহার দিলে বই দেবেন!

প্রকাশিতঃ 11:05 am | June 03, 2022

কালের আলো প্রতিবেদক:

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, আপনারা আমাকে ফুল দিয়েছেন, তাতেই আমি খুশি হয়েছি। এরপরেও যদি দিতে কিছু চান, তবে একটা বই দেবেন।

বৃহস্পতিবার (০২ জুন) বিকেলে রাজশাহী নগরের শহীদ এ এইচ এম কামারুজ্জামান মিলনায়তনে ‘গণহত্যা, নির্যাতন ও মুক্তিযুদ্ধ’ শীর্ষক প্রশিক্ষণ কোর্চের অষ্টম ব্যাচের সমাপনী ও রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের একটি পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে আয়োজকদের পক্ষ থেকে শিক্ষামন্ত্রীকে ক্রেস্ট দেয়ার ঘোষণা দেয়া হলে তিনি তা নিতে অপারগতা প্রকাশ করেন এবং এসব কথা বলেন।

মন্ত্রীর এমন কথায় অনুপ্রাণিত হয়ে অনুষ্ঠানের সভাপতি ও বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক হাবিবুর রহমান বলেন, ‘আজ থেকে আমরা কাউকে সম্মান জানাতে ক্রেস্ট দেব না, ক্রেস্ট নেবও না।’

ওই অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি ছিলেন ‘১৯৭১: গণহত্যা নির্যাতন আর্কাইভ ও জাদুঘর ট্রাস্টে’র সভাপতি অধ্যাপক মুনতাসীর মামুন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য গোলাম সাব্বির সাত্তার।

অনুষ্ঠানের সমন্বয়ক ছিলেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপক মাহাবুবর রহমান।

সভাপতিত্ব করেন রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক হাবিবুর রহমান। অতিথি ছিলেন রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোহাম্মদ আলী কামাল ও সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার।

অনুষ্ঠানের এক পর্যায়ে উপস্থাপক ক্রেস্ট দেওয়ার জন্য শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনির নাম ঘোষণা করেন। সঙ্গে সঙ্গে মন্ত্রী নিজের আসন ছেড়ে উঠে এসে উপস্থাপকের হাত থেকে মাইক নিয়ে বলেন, ‘আমরা অনেক দূর এগিয়ে গেছি। অনেক কিছুতেই পরিবর্তন এনেছি। এখন আমাদের এই ক্রেস্ট দেওয়ার প্রথার পরিবর্তন করতে হবে। ‘

মূল অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন ‘১৯৭১: গণহত্যা নির্যাতন আর্কাইভ ও জাদুঘর ট্রাস্টে’র ট্রাস্টি সম্পাদক চৌধুরী শহীদ কাদের। পুরো প্রধান অতিথির বক্তব্য শেষ করে শিক্ষামন্ত্রী মঞ্চের নির্ধারিত আসনে গিয়ে বসেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে দীপু মনি বই, বিশেষ করে ইতিহাসবিষয়ক পড়ার ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন।

তিনি বলেন, ‘আমরা যতই বিজ্ঞানমনস্ক বা প্রযুক্তিবান্ধব হই না কেন, আমাদের মধ্যে যদি ইতিহাসবোধ না থাকে, বাঙালির যে আত্মশক্তি তার মূল্যায়ন করতে পারব না।’

কালের আলো/এমএইচ/এসবি

Print Friendly, PDF & Email