শিক্ষার মান নিশ্চিতে সরকার অবিরাম কাজ করে যাচ্ছে: শিক্ষামন্ত্রী

প্রকাশিতঃ 9:49 pm | March 25, 2022

মুন্সীগঞ্জ প্রতিবেদক, কালের আলো:

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, আমরা সবাইকে শিক্ষার আওতায় নিয়ে এসেছি। বর্তমান সরকার শিক্ষার মান নিশ্চিত করতে অবিরাম কাজ করে যাচ্ছে। শুধু শিক্ষা গ্রহণ করলেই হবে না। আমাদেরকে সুশিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে নিজেকে মানবিক মানুষ রূপে গড়ে তুলতে হবে।

শুত্রুবার (২৫ মার্চ) দুপুরে মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার ভাটেরচর দে এ মান্নান পাইলট উচ্চবিদ্যালয়ে এক অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ২০১৮ সালের নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার ঘোষণা করেছিল, প্রতিটি ক্ষেত্রে শিক্ষার মান অর্জন করতে হবে…। শিক্ষার্থীদের কমিউনিকেশন বা যোগাযোগ দক্ষতা অর্জন কারা, সমস্যা চিহ্নিতকরণ ও সমাধান করার যোগ্যতা অর্জন করেত হবে। সবাইকে নিয়ে এক সঙ্গে কাজ করা ও সৃজনশীলতা অর্জনও জরুরি।

তিনি বলেন, উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে আমরা চেষ্টা করছি কিভাবে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে কর্মোপযোগী শিক্ষা নিশ্চিত করা যায়। আমাদের দেশের উচ্চশিক্ষার প্রায় তিন চতুর্থাংশ শিক্ষার্থী যে বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে শিক্ষা অর্জন করে তা হলো জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়। আমরা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পুরো কারিকুলাম পুনর্বিবেচনা করছি।

দীপু মনি বলেন, যে শিক্ষার্থী অনার্স কিংবা ডিগ্রি নিয়ে বের হবে সে যেন কাজের জগতের চাহিদা অনুযায়ী যোগ্যতা অর্জন করে বের হয়। তার যেন চাকরি পেতে সমস্যা না হয়, সে যেন উদ্যোক্তা হতে চাইলেও উদ্যোক্তা হতে পারে, সে যোগ্যতা নিয়ে বের হতে পারে।

অনুষ্ঠানে মুন্সীগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য ও আওয়ামী লীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মৃনাল কান্তি দাস, বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও রূপালী ব্যাংকের ডিজিএম মো. সাখাওয়াত হোসেন, মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রশাসক কাজী নাহিদ রসূল, ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. সাজ্জাদ হোসেন, জাতীয় নিরাপত্তা সংস্থার পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. আমিরুল ইসলাম শিকদার, মুন্সীগঞ্জের পুলিশ সুপার আব্দুল মোমেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামি স্টাডিজ বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান আতাউর রহমান মিয়াজী, রেলপথ মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব মামুনুর রশিদ, মেঘনা উপজেলা চেয়ারম্যান সাইফুল্লাহ মিয়া রতন শিকদার এবং গজারিয়া উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মো. রেফায়েত উল্লাহ খাঁন তোত প্রমুখ।

কালের আলো/এসবি/এমএম

Print Friendly, PDF & Email