অভিনয়ের তিন দশকে প্রিয়দর্শিনী মৌসুমী

প্রকাশিতঃ 6:11 pm | March 25, 2022

শোবিজ ডেস্ক, কালের আলো:

অভিনয় জীবনের তিন দশকে পা দিলেন চিত্রনায়িকা প্রিয়দর্শিনী মৌসুমী। ১৯৯৩ সালের ২৫ মার্চ ছিল ঈদুল ফিতর। সেদিনই মুক্তি পেয়েছিল সোহানুর রহমান সোহান পরিচালিত ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ সিনেমাটি। সিনেমায় তাঁর নায়ক ছিলেন সালমান শাহ। আনন্দমেলা লিমিটেডর ব্যানারে সিনেমাটি প্রযোজনা করেছিলেন সিরোজুল ইসলাম ও সুকুমার রঞ্জন ঘোষ। দেখতে দেখতে সিনেমা দুনিয়ায় পথচলার তিন দশকে পদার্পণ করেছেন প্রিয়দর্শিনী।

এই দীর্ঘ সময়ে তিনি অসংখ্য দর্শকপ্রিয় সিনেমা উপহার দিয়েছেন। পেয়েছেন কোটি কোটি দর্শকের ভালোবাসা। বেশ কয়েকবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারেও ভূষিত হয়েছেন দর্শকের কাছে প্রিয়দর্শিনী এই নায়িকা। বর্তমানে তিনি আমেরিকায় মায়ের সঙ্গে অবস্থান করছেন। সেখান থেকে মোবাইল ফোনে মৌসুমী বলেন, ‘জীবন থেকে এত দ্রুত সময় চলে যায়! এখনো মনে হয় এই তো সেদিন আমি আর সালমান একসঙ্গে কেয়ামত থেকে কেয়ামত সিনেমার কাজ শুরু করলাম। আর আজ দেখতে দেখতে ত্রিশ বছরে পদার্পণ করলাম।

আজ ভীষণভাবে মনে পড়ছে আব্বুর কথা। মনে পড়ছে আমার প্রথম সিনেমার হিরো সালমানের কথা, মান্না ভাইয়ের কথা। প্রযোজক, পরিচালক, সাংবাদিক সবার প্রতি আমি ভীষণভাবে কৃতজ্ঞ। আমার বাবা, মা দুই বোন স্নিগ্ধা, ইরিন সব সময় আমার পাশে থেকেছে। ভালোবাসায়, সুখে দুঃখে পাশে আছেন আমার স্বামী ওমর সানী। তার দিকনির্দেশনা এবং অভিভাবকত্বের কারণেই আমাদের পরিবার আজ সুখী পরিবার। দর্শকের প্রতিও রইল অপরিসীম ভালোবাসা, শ্রদ্ধা। সবাই আমার আম্মুর জন্য দোয়া করবেন।

মৌসুমীর প্রতি অভিনন্দন জানিয়ে ওমর সানী বলেন, প্রিয়দর্শিনী মৌসুমী’কে অনেক অনেক অভিনন্দন, শুভেচ্ছা, ভালোবাসা। তার ধৈর্য, তার শ্রম, তার মেধা, তার চেষ্টা, তার সততা এবং সর্বোপরি মানুষের প্রতি তার অকৃত্রিম ভালোবাসাই তাকে আজকের এই সম্মানজনক স্থানে নিয়ে এসেছে। মৌসুমী আমার সহধর্মিণী। স্বামী হিসেবে আমি গর্বিত, সহশিল্পী হিসেবে আমি আনন্দিত। অনেক ভালোবাসা মৌসুমী তোমার জন্য।

কালের আলো/এমএএইচ/জেআর

Print Friendly, PDF & Email