চট্টগ্রামে শিবির কার্যালয়ে বিস্ফোরণ, অভিযানে পুলিশ

প্রকাশিতঃ 11:06 pm | November 03, 2018

কালের আলো প্রতিবেদক:
চট্টগ্রামে ইসলামী ছাত্রশিবিরের মহানগর কার্যালয়ে একযোগে অভিযান চালাচ্ছে তিন থানার পুলিশ। শনিবার সন্ধ্যায় নগরীর চন্দরপুরা ডিসি রোডে অবস্থিত ওই কার্যালয়ে পুলিশের অভিযানের সময় পরপর চারটি বিস্ফোরণ ঘটে।

পুলিশ জানিয়েছে, চট্টগ্রামের চকবাজার, কোতোয়ালী ও সদরঘাট থানার পুলিশ চারতলা ভবনটি ঘিরে রেখেছে। নগর পুলিশের উপকমিশনার (দক্ষিণ) মেহেদী হাসান অভিযানের নেতৃত্ব দিচ্ছেন।

অভিযানে চালাতে গিয়ে শিবিরের কার্যালয়ের ভিতরে ঢুকে পুলিশ দেখতে পায়, ভবনটির পেছনে দুইটি দরজা আছে। ফলে সামনে থেকে ভবনটি পুলিশ ঘিরে রাখলেও ভিতর থেকে যেকেউ ওই দরজা ব্যবহার করে পালিয়ে যেতে পারে।

চকবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নিজাম উদ্দিন বলেন, আমাদের কাছে তথ্য রয়েছে শিবির কার্যালয়ে সক্রিয় সদস্যরা অবস্থান করছে। আমরা এলাকায় ব্লক রেড দেওয়ার সময় শিবির কার্যালয়ের ভবনের চতুর্থ তলায় ৪/৫টি বিস্ফোরণ ঘটে। বিস্ফোরণের আওয়াজ বোমার শব্দের মত মনে হয়েছে। এতে পুরো এলাকায় আতংক ছড়িয়ে পড়ে। বোমা ডিসপোজাল ইউনিটকে খবর দেওয়া হয়েছে। বিস্ফোরণের পর শিবির কার্যালয় সংলগ্ন নবাব সিরাজদ্দৌল্লা রোডে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এলাকাবাসীর মধ্যে আতংক বিরাজ করছে। পুলিশ আশপাশের এলাকায় অভিযান চালাচ্ছে।

আর ইসরা ভবন নামে ছাত্রশিবিরের নগর কার্যালয়টি ডিসি রোডে চাক্তাই খালের পাড়ে অবস্থিত। এখানে পুলিশ বিভিন্ন সময় অভিযান চালিয়ে শিবির নেতাদের গ্রেপ্তারের পাশাপাশি অস্ত্র উদ্ধার করে। পুলিশের অভিযানের নিয়মিত লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত হওয়ায় ২০১৬ সালে কৌশল পরিবর্তন করে এখানে একটি কিন্ডার গার্টেন খুলে দেয় ছাত্রশিবির। নামকরণ করা হয় সাবেক সংসদ সদস্য, মুক্তিযোদ্ধা প্রয়াত কফিল উদ্দিনের নামে। একজন মুক্তিযোদ্ধার নামে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার পরই মূলত সেখানে পুলিশি অভিযান বন্ধ হয়। আর এই সুযোগে শিবির সেখানে পুরোনো কায়দায় তাদের কার্যক্রম শুরু করে।

নগর পুলিশের উপ-কমিশনার মেহেদী হাসান জানান, আমরা ধারণা করছি যে চারটি বিস্ফোরণের শব্দ আমরা শুনতে পেয়েছি, সেটা আসলে বোমা ছিল। ইতোমধ্যে বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিটকে খবর দেওয়া হয়েছে। অতিরিক্ত পুলিশ ফোর্স ডাকা হয়েছে।

তিনি বলেন, আমরা জানতে পেরেছিলাম, শিবির কার্যালয়ে অনেক সক্রিয় সদস্যরা ছিল। পুলিশ ব্লক রেড চালালে তারা কার্যালয়ের ভেতরে বোমা বিস্ফোরণ ঘটায় এবং আতঙ্ক সৃষ্টি করে পালিয়ে যায়।

কালের আলো/এনএম

Print Friendly, PDF & Email