ট্রাকের হেলপার থেকে কোটিপতি!

প্রকাশিতঃ 11:29 pm | October 18, 2018

রাজশাহী সংবাদদাতা, কালের আলো:

রাজশাহী নগরীতে ফ্ল্যাট বাসার ফুলদানিতে রেখে ইয়াবা বিক্রি করতে গিয়ে ধরা পড়েছেন এক দম্পতি। বুধবার রাতে তাদের গ্রেপ্তার করে নগর পুলিশ।

গ্রেপ্তারকৃত দম্পতি হলেন- মনোয়ারুল হোসেন ওরফে রাসেল (৩৮) ও তার স্ত্রী মরিয়ম বেগম (৩০)। মনোয়ারুল হোসেন গোদাগাড়ী উপজেলার মাটিকাটা তালতলা এলাকার বাসিন্দা। তার স্ত্রী মরিয়ম গোদাগাড়ী পৌরসভার মাদারপুর মহল্লার এরফান আলীর মেয়ে।

নগরীর উপশহর এলাকার ৩ নম্বর সেক্টরের ৪ নম্বর রোডের ১৭৭ নম্বর বাড়ির তিনতলার একটি ফ্ল্যাট থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

পুলিশ জানিয়েছে, তাদের কাছ থেকে মোট ৯৩৫ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে। এর মধ্যে ফ্ল্যাটে থাকা ফুলদানির ভেতর থেকে ৮৮০ এবং প্রাইভেটকার থেকে ৫৫ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

পরে এ নিয়ে নগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করে পুলিশ। ওই মামলায় বৃহস্পতিবার দুপুরের পর তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়।

নগর পুলিশের মুখপাত্র ইফতেখায়ের আলম এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, কৌশলে দীর্ঘদিন ধরেই ইয়াবা ব্যবসা চালিয়ে আসছিলেন এই দম্পতি। অবৈধ এই কারবারে জড়িয়ে ট্রাক হেলপার থেকে হঠাৎ রাতারাতি কোটিপতি বনে গেছেন সোহেল।

এখন রাস্তায় তার চারটি ট্রাক চলছে। এসব ট্রাকে করে কৌশলে ইয়াবা এনে কারবার চালিয়ে আসছিলেন তিনি। এ ঘটনায় তার ব্যবহৃত প্রাইভেটকারটিও জব্দ করা হয়েছে।

নগর ডিবি পুলিশের উপ-কমিশনার (ডিসি) আবু আহমেদ আল মামুন জানান, রাসেল একজন কুখ্যাত মাদক কারবারি। এর আগে তিনি টাঙ্গাইলে ইয়াবাসহ ধরা পড়েছিলেন। জামিনে জেল থেকে বেরিয়ে উপশহরের বিলাসবহুল এই ফ্ল্যাটটি ভাড়া নিয়ে ইয়াবা কারবার করে আসছিলেন তিনি।

ফ্ল্যাটে ইয়াবা থাকার খবর নিশ্চিত হয়ে সেখানে অভিযান চালানো হয়। তল্লাশির একপর্যায়ে ফুলদানির ভেতর মেলে ইয়াবা। পরে এই দম্পতিকে গ্রেপ্তার করা হয়।

কালের আলো/ওএইচ

Print Friendly, PDF & Email