নিরপেক্ষ সরকারের দাবি সংবিধান পরিপন্থী: শ ম রেজাউল করিম

প্রকাশিতঃ 6:20 pm | September 20, 2021

কালের আলো সংবাদদাতা:

নিরপেক্ষ সরকার বা তত্বাবধায়ক সরকারের দাবিকে বিএনপির নিতান্ত মূর্খতা উল্লেখ করে মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, নিরপেক্ষ সরকার বা তত্ত্বাবধায়ক সরকারের জন্য বিএনপির দাবি সংবিধান পরিপন্থী। প্রচলিত আইন অনুযায়ী নির্বাচনের আয়োজন করে নির্বাচন কমিশন। নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বাংলাদেশের সংবিধানের আলোকে। সংবিধানে নিরপেক্ষ সরকার বা তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা বলতে কিছু নেই।

সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) বিকেলে পটুয়াখালীর কলাপাড়ার উপজেলায় এক অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন মন্ত্রী।

সেখানে তিনি বিএফআরআই এর আওতাধীন নদী-উপকেন্দ্রের অফিস কাম গবেষণাগার, মহিপুরে বিএফডিসি এর নবনির্মিত আলীপুর মৎস্য অবতরণকেন্দ্র ও বিকেলে নবনির্মিত মহিপুর মৎস্য অবতরণকেন্দ্র উদ্বোধন করেন।

শ ম রেজাউল করিম বলেন, বাংলাদেশের সংবিধানে নিরপেক্ষ সরকার বা তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা বলতে কিছু নেই। অতিতে থাকলেও দেশের সর্বোচ্চ আদালত বলছেন, গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র ব্যবস্থায় অনির্বাচিত সরকারের হাতে রাষ্ট্র ক্ষমতা দেওয়ার কোনো বিধান নেই। বিএনপি, তাদের জোট ও সহযোগিদের দাবি সংবিধান পরিপন্থী। বিএনপি তত্ত্বাবধায়ক সরকারের মাধ্যমে ক্ষমতায় আসার যে স্বপ্ন দেখছে, তা কখনও সম্ভব নয়। মানুষ ভোট দেবে, ভোটের মাধ্যমে নির্ধারণ হবে কে ক্ষমতায় আসবে।

প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী আরও বলেন, মৎস্যসম্পদ রক্ষা, উৎপাদন বৃদ্ধিতে সরকার বিভিন্ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। মাছের অভয়াশ্রম ও প্রজননকেন্দ্র চিহ্নিত করে বিভিন্ন উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। আমাদের দেশের অবরোধের সময়ে ভারতের সময়ের সঙ্গে সমন্বয় করতে দুই দেশের একযোগে কাজ চলমান।

তিনি আরও বলেন, উপকূলীয় জেলায় জেলেদের নির্ভুল তালিকা প্রনয়ণ, তাদের সহায়তা বৃদ্ধি এবং বিকল্প কর্মসংস্থানেও বিভিন্ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হবে।

সকালে মন্ত্রী পটুয়াখালী সার্কিট হাউসে পৌঁছালে তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান পটুয়াখালী-১ আসনের সংসদ সদস্য ও সাবেক ধর্মবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শাহজাহান মিয়া ও জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামাল হোসেন।

দেশের তিন জেলার চারটি স্থানে মৎস্য অবতরণকেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় প্রায় ৬০ কোটি টাকা ব্যয়ে পটুয়াখালীর মহিপুর আলিপুরে ২.১৯ একর জমির ওপরে দুটি মৎস্য অবতরণকেন্দ্র নির্মাণ করে মৎস্য বিভাগ। পরে তিনি উন্নয়ন প্রকল্পগুলো ঘুরে দেখেন।

কালের আলো/এসআরবি/এমএইচএ

Print Friendly, PDF & Email