নির্বাহী বিভাগ সংসদের কাছে জবাবদিহি করে : স্পিকার

প্রকাশিতঃ 5:41 pm | August 27, 2019

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের আলোঃ

জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, আইন সভা ও বিচার বিভাগ সংবিধান অনুযায়ী জনগণের স্বার্থে কাজ করে। সংসদীয় গণতন্ত্রে সংসদ সব কার্যক্রমের কেন্দ্রবিন্দু। সংসদ সদস্যরা জনগণের কাছে জবাবদিহি এবং নির্বাহী বিভাগ সংসদের কাছে জবাবদিহি করে।

তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে দীর্ঘ ২৩ বছরের লড়াই সংগ্রামের ফসল স্বাধীনতা ও সংবিধান। সংবিধান হচ্ছে জনগণের ইচ্ছার প্রতিফলন, যেখানে মৌলিক নীতিগুলো লিপিবদ্ধ থাকে, যা জনগণের বিশ্বাস ও মূল্যবোধকে সমুন্নত রাখে। প্রশ্ন জিজ্ঞাসা ও উত্তরের মাধ্যমে সংসদের কাছে সরকার জবাবদিহি করে।

মঙ্গলবার (২৭ আগস্ট) ডিফেন্স সার্ভিসেস কমান্ড অ্যান্ড স্টাফ কলেজে (ডিএসসিএসসি) পার্লামেন্ট রোল, ফাংশান অ্যান্ড পার্লামেন্টারি প্রাক্টিসেস শীর্ষক সেশনে রিসোর্স পার্সন হিসেবে দেওয়া বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

রাজধানীর মিরপুর ক্যান্টনমেন্টের ডিএসসিএসসিতে শেখ হাসিনা কমপ্লেক্সে অনুষ্ঠানটি আয়োজন করা হয়। জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

তিনি বলেন, সংসদে প্রধানমন্ত্রী, প্রত্যেক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী সরকারের পক্ষে প্রশ্নের উত্তর দেন। সংসদীয় স্থায়ী কমিটির মাধ্যমে সরকারের কাজের সচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে সংসদ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

স্পিকার আরও বলেন, সংবিধানের ৭ অনুযায়ী অনুচ্ছেদ প্রজাতন্ত্রের সব ক্ষমতার মালিক জনগণ। জনগণের কল্যাণের বিষয়টি নিশ্চিত করতে রাষ্ট্রের তিনটি অঙ্গের কার্যাবলির মধ্যে সমন্বয় থাকতে হবে। রাষ্ট্র পরিচালনার ক্ষেত্রে জনগণের মৌলিক অধিকারগুলো সংরক্ষণ করে ও নিশ্চয়তা দেয় সংবিধান। বাংলাদেশের সংবিধানে গণতন্ত্র, সমাজতন্ত্র, ধর্মনিরপেক্ষতা এবং জাতীয়তাবাদ- এ চারটি মূলনীতিকে সমুন্নত রাখা হয়েছে, যার ভিত্তিতে রাষ্ট্র পরিচালিত হচ্ছে।

অনুষ্ঠানে স্পিকার বাংলাদেশের সংবিধান ও জাতীয় সংসদের কার্যপ্রণালী বিধির আলোকে প্রশিক্ষণার্থীদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন বলে জানানো হয় বিজ্ঞপ্তিতে।

এ সময় ডিএসসিএসসি কমান্ড্যান্ট মেজর জেনারেল এনায়েত উল্লাহ, ডিফেন্স সার্ভিস কোর্সে ২৩৫ জন অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থী, বিশেষ আমন্ত্রণে সেশনে অংশগ্রহণকারী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দুইজন শিক্ষক এবং ফ্যাকাল্টি মেম্বার ও স্টাফ অফিসাররা উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, এ বছর ডিএসসিএসসি ২০১৯-২০২০ কোর্সে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ১২৫ জন, বাংলাদেশ নৌ বাহিনীর ৩৪ জন, বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর ২২ জন অফিসার এবং চীন, ভারত, ইন্দোনেশিয়া, লাইবেরিয়া, মালয়েশিয়া, মালদ্বীপ, নেপাল, নাইজেরিয়া, মালি, পাকিস্তান, ফিলিস্তিন, ফিলিপাইন, সৌদি আরব, কুয়েত, সুদান, শ্রীলংকা, তানজানিয়া, তুর্কি, উগান্ডা, যুক্তরাষ্ট্র এবং জাম্বিয়ার ৫৪ জন অফিসারসহ সর্বমোট ২৩৫ জন প্রশিক্ষনার্থী অংশগ্রহন করেন ।

কালের আলো/বিআর/এমএম

Print Friendly, PDF & Email