বিশ্বব্যাপী করোনায় মৃত্যু ২৯ লাখ ছাড়ালো, আক্রান্ত ১৩ কোটি ৩৬ লাখ

প্রকাশিতঃ 10:10 am | April 08, 2021

ডেস্ক রিপোর্ট, কালের আলোঃ

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। সারাবিশ্বে এখন পর্যন্ত এই ভাইরাসে শনাক্ত রোগী বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৩ কোটি ৩৬ লাখ ৮৮ হাজার ১২৬ জন। এর মধ্যে মারা গেছেন ২৯ লাখ ১ হাজার ৩৮ জন। এখন পর্যন্ত এ ভাইরাস থেকে সুস্থ হয়েছেন ১০ কোটি ৭৮ লাখ ৫ হাজার ৬৭৮ জন।

বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) সকালে আন্তর্জাতিক পরিসংখ্যানভিত্তিক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটার থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

বাংলাদেশে দাপট দেখাচ্ছে ‘আফ্রিকান করোনা’র ধরন
সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়ে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় ৫ লাখ ৭২ হাজার ৮৪৯ জন মারা গেছেন। এছাড়া করোনা শনাক্ত হয়েছে ৩ কোটি ১৬ লাখ ৩৭ হাজার ২৪৩ জনের। আর সুস্থ হয়েছেন ২ কোটি ৪২ লাখ ৬ হাজার ৫৩৯ জন।

যুক্তরাষ্ট্রের পর করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ ব্রাজিল। আক্রান্ত ও মৃত্যু বিবেচনায় দেশটির অবস্থান দ্বিতীয়। লাতিন আমেরিকার এই দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ১ কোটি ৩১ লাখ ৯৭ হাজার ৩১ জন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ৩ লাখ ৪১ হাজার ৯৭ জন। আর সুস্থ হয়েছেন ১ কোটি ১৬ লাখ ৬৪ হাজার ১৫৮ জন। তালিকায় তৃতীয় স্থানে রয়েছে ভারত। এশিয়ার মধ্যে ভারত করোনায় সবচেয়ে বিপর্যস্ত দেশ। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন ১ কোটি ২৯ লাখ ২৬ হাজার ৬১ জন। মারা গেছেন ১ লাখ ৬৬ হাজার ৮৯২ জন। আর সুস্থ হয়েছেন ১ কোটি ১৮ লাখ ৪৮ হাজার ৯০৫ জন।

করোনাভাইরাস শনাক্তের তালিকায় চারে ইউরোপের দেশ ফ্রান্স। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৪৮ লাখ ৪১ হাজার ৩০৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে মারা গেছেন ৯৭ হাজার ৭২২ জন। আর সুস্থ হয়েছেন ৩ লাখ ১ হাজার ২৯৯ জন। তালিকার পঞ্চম স্থানে থাকা রাশিয়ায় এখন পর্যন্ত ১ লাখ ১ হাজার ৪৮০ জনের মৃত্যু হয়েছে। শনাক্ত ৪৬ লাখ ৬ হাজার ১৬২ জন। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৪২ লাখ ২৯ হাজার ৪৮০ জন।

এরপর করোনাভাইরাস শনাক্তের দিক থেকে তালিকায় রয়েছে যথাক্রমে যুক্তরাজ্য, ইতালি, তুরস্ক, স্পেন ও জার্মানি। আর এ তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান ৩৩তম।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মতে, দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সংখ্যা ৯ হাজার ৪৪৭ জন। মোট শনাক্তের সংখ্যা ৬ লাখ ৫৯ হাজার ২৭৮ জনে।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। পরে ধীরে ধীরে বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়ে।

কালের আলো/এনএল/জেএস

Print Friendly, PDF & Email