যে কারণে গভর্নরের সঙ্গে দেখা করতে পারলেন না অর্থমন্ত্রী!

প্রকাশিতঃ 4:00 pm | January 14, 2020

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের আলো:

বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবিরকে জরুরি প্রয়োজনে ডেকে পাঠিয়েছিলেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। কিন্তু অর্থমন্ত্রীর সাক্ষাৎ না পেয়ে ফিরে আসেন তিনি।

জানাযায়, সাক্ষাতের জন্য গভর্নর অর্থমন্ত্রীর শেরেবাংলানগর কার্যালয়ের দিকে রওনা হন বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে। তিনি ফার্মগেট পেরিয়ে গেলে অর্থমন্ত্রীর একান্ত সচিবের সঙ্গে সাক্ষাতের বিষয়ে কথা বলেন।

অর্থমন্ত্রীর দপ্তর থেকে তখন গভর্নরকে জানানো হয়, মন্ত্রী এখনো অফিসে আসেননি। তিনি গুলশানের বাসায় আছেন। কখন আসবেন তাও জানাননি। পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে গভর্নরকে ফিরে যেতে পরামর্শ দেওয়া হয় অর্থমন্ত্রীর দপ্তর থেকে। পরে গভর্নর ফার্মগেট এলাকা থেকে বাংলাদেশ ব্যাংকে ফিরে যান।

বিষয়টি দুপুরের মধ্যেই ছড়িয়ে পরে বাংলাদেশ ব্যাংকের বিভিন্ন স্তরে। এতে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া তৈরি হয়। বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তারা বলছেন, কেন্দ্রীয় ব্যাংক একটি স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান। এর প্রধান নির্বাহীর সঙ্গে অর্থমন্ত্রীর এমন আচরণ দুঃখজনক। সংশ্লিষ্ট একজন কর্মকর্তা বলেন, তীব্র যানজট পেরিয়ে গভর্নর শেরেবাংলানগরে অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করতে যাচ্ছিলেন। অর্থমন্ত্রী বৈঠক করবেন না জানালে অহেতুক হয়রানি হতো না। গভর্নরের দপ্তরে যোগাযোগ করলে জানানো হয়, অর্থমন্ত্রী গভর্নরকে ডেকেছিলেন। তবে মিটিং হয়েছে কি না জানি না বা কেন হয়নি তা বলা যাচ্ছে না।

আওয়ামী লীগ সরকারের টানা তৃতীয় মেয়াদে অর্থমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নিয়েছেন মুস্তফা কামাল। গত এক বছরে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের স্বাধীনতা আরো দুর্বল হয়েছে বলে বিশ্লেষকরা বিভিন্ন সময়ে বলে আসছেন। এমনকি একাধিক অনুষ্ঠানে অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে গভর্নর উপস্থিত থাকলেও সংবাদ মাধ্যমের সঙ্গে কথা বলতে অনেকটা নিরুৎসাহিত করা হয়।

রিজার্ভ কেলেঙ্কারির ঘটনায় ড. আতিউর রহমান পদত্যাগ করলে সাবেক অর্থ সচিব ফজলে কবিরকে গভর্নর নিয়োগের প্রক্রিয়া করেন বিদায়ী অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

যোগাযোগ করা হলে অর্থমন্ত্রীর দপ্তর থেকে জানানো হয়, মুস্তফা কামাল বিকেল তিনটার দিকে অফিসে আসেন গতকাল।

কালের আলো/বিআর/এমএম

Print Friendly, PDF & Email