শুরু হলো সংসদের বিশেষ অধিবেশন

প্রকাশিতঃ 12:04 pm | April 06, 2023

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের আলো:

শুরু হলো জাতীয় সংসদের বিশেষ অধিবেশন। বৃহস্পতিবার (৬ এপ্রিল) বেলা ১১টায় স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদের বৈঠক শুরু হয়। জাতীয় সংসদের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে বিশেষ এই অধিবেশন শুরু হয়েছে। অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রী ও সংসদ নেতা শেখ হাসিনা যোগ দিয়েছেন।

গত ২১ মার্চ রাষ্ট্রপতি মো. আব্দুল হামিদ সংবিধানের ৭২ অনুচ্ছেদের (১) দফায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে এ বিশেষ অধিবেশন আহ্বান করেন।

এটি একাদশ জাতীয় সংসদের ২২তম অধিবেশন। এর আগে সকাল ১০টায় অনুষ্ঠিত হয় সংসদের কার্যউপদেষ্টা কমিটির বৈঠক। অধিবেশনের শুরুতেই স্পিকার বিশেষ অধিবেশনের তাৎপর্য তুলে ধরেন। এরপর সভাপতিমণ্ডলী মনোনয়ন দেওয়া হয়। পরে শোক প্রস্তাব গ্রহণ করা হবে।

সভাপতিমণ্ডলীর সদস্যরা হলেন- এইচ এন আশিকুর রহমান, আসাদুজ্জামান নূর, মকবুল হোসেন, কাজী ফিরোজ রশীদ ও কানিজ ফাতেমা আহমেদ। স্পিকার ও ডেপুটি স্পিকারের অনুপস্থিতিতে সভাপতিমণ্ডলীর সদস্যরা অগ্রবর্তিতার ভিত্তিতে সংসদে সভাপতির দায়িত্ব পালন করবেন। এরপর সংসদে শোক প্রস্তাব উত্থাপন করেন স্পিকার। পরে এক মিনিট নীরবতা পালন শেষে মোনাজাত করা হয়। মোনাজাত পরিচালনা করেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী ফরিদুল হক খান।

অধিবেশন শুরুর প্রথম দিন স্বাভাবিক কার্যক্রম চললেও দ্বিতীয় দিন আগামীকাল শুক্রবার শুরু হবে বিশেষ অধিবেশন। ওইদিন বিকেল ৩টায় বসবে সংসদের বৈঠক। বৈঠকে রাষ্ট্রপতি মো. আব্দুল হামিদ স্মারক বক্তৃতা দেবেন। বিদায়ী রাষ্ট্রপতির এটিই হয়তো সংসদের শেষ ভাষণ। আগামী ২৩ এপ্রিল আব্দুল হামিদের রাষ্ট্রপতি হিসেবে টানা দুই মেয়াদের দায়িত্বকাল শেষ হচ্ছে।

রাষ্ট্রপতির ভাষণের পরদিন অর্থাৎ অধিবেশনের তৃতীয় দিন আগামী শনিবার সকালে শুরু হবে সংসদের বৈঠক। ওই বৈঠকে সংসদ নেতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংসদের সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে ১৪৭ বিধিতে সাধারণ প্রস্তাব তুলবেন। এরপর তিনি ওই প্রস্তাবের ওপর আলোচনা করবেন। পরে দুদিনব্যাপী সাধারণ প্রস্তাবের ওপর সংসদ সদস্যরা বক্তব্য রাখবেন। এরপর তা গ্রহণ করা হবে।

বাংলাদেশের জাতীয় সংসদ ১৯৭৩ সালের ৭ এপ্রিল আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করেছিল। এই হিসাবে এবার সংসদ সুবর্ণজয়ন্তী পালন করছে। এ উপলক্ষে বিশেষ অধিবেশন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে বছরব্যাপী আরও কিছু কর্মসূচি পালন করা হবে।

সবশেষ গত ৫ জানুয়ারি চলতি বছরের প্রথম তথা ২১তম অধিবেশন শুরু হয়ে তা শেষ হয় ৯ ফেব্রুয়ারি। ওই অধিবেশনে মোট কার্যদিবস ছিল ২৬টি। যেখানে ১৯টি বিল উত্থাপিত হয়। ১০টি বিল পাস হয়। এছাড়া একটি অধ্যাদেশও উত্থাপিত হয়।

২১তম অধিবেশন চলাকালে চট্টগ্রাম–৮ (চান্দগাঁও-বোয়ালখালী) আসনের সংসদ সদস্য এবং চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোছলেম উদ্দিন আহমদ মারা যান।

কালের আলো/এএইচ/এসবি

Print Friendly, PDF & Email