জমজ শিশু রাবেয়া-রোকেয়াকে দেখতে সিএমএইচে পররাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিতঃ 12:03 am | December 17, 2022

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের আলো:

ফ্রিডম অপারেশন’র সফল অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে নতুন জীবন পাওয়া রাবেয়া ও রোকেয়াকে দেখতে ঢাকার সিএমএইচে গিয়েছিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। এ সময় তিনি জমজ বোন রাবেয়া ও রোকেয়ার সার্বিক অবস্থার খোঁজখবর নিয়েছেন।

শুক্রবার (১৬ ডিসেম্বর) বিকেলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও তার স্ত্রী সেলিনা মোমেন সিএমএইচের পোস্ট অপারেটিভ ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রাবেয়া ও রোকেয়া দেখতে যান। সেখানে তারা শিশুদের মা-বাবা এবং বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের সাথে কথা বলেন। এ সময় তিনি সুন্দর ব্যবস্থাপনায় অত্যন্ত আন্তরিকতার সাথে জমজ দুই বোনের চিকিৎসা দেওয়ায় সিএমএইচের কমান্ড্যান্ট ও বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর প্রতি আন্তরিক ধন্যবাদ জানান। এ সময় সিএমএইচ’র কমান্ড্যান্ট ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জামিল আহমদ উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, জোড়া মাথার যমজ বাচ্চা রাবেয়া ও রোকেয়াকে ২০১৯ সালের ১ আগস্ট একটি মাল্টিডিসিপ্লিনারি দল সফলভাবে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে আলাদা করে। এরপর অস্ত্রোপচারের ক্ষত স্থানের কিছু জটিলতার জন্য তারা এখন ঢাকা সিএমএইচে চিকিৎসাধীন।

চিকিৎসকরা বলেছেন, তিন বছর ধরে চিকিৎসকদের আন্তরিক প্রচেষ্টায় ৫০টির বেশি অস্ত্রোপচার করে যমজ এই বাচ্চা দুটিকে সফলভাবে আলাদা করা সম্ভব হয়েছে। তারা এখন স্বাধীন জীবন উপভোগের সুযোগ পেয়েছে।

চিকিৎসকরা আরো জানান, বাংলাদেশ ও হাঙ্গেরির প্রায় ১২৫ জন ডাক্তার-নার্স ও অন্যান্য সহকারীর আন্তরিক সেবাদানের ফলে দুজনই সুস্থ আছে। বিশ্বে এযাবৎ এ ধরনের ১৮-১৯টি অস্ত্রোপচার হয়েছে। সেগুলোর মধ্যে ৯০ শতাংশ রোগীই মারা গেছে। এই যমজ দুই বোনের মধ্যে রাবেয়া সম্পূর্ণ সুস্থ রয়েছে। তবে রোকেয়ার আরেকটি অস্ত্রোপচার করা হয়েছে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, হাঙ্গেরির চিকিৎসক গ্রেগ পাটাকি ও তার দল প্রতিবছর বাংলাদেশে এসে অনেক অস্ত্রোপচার করেন। গ্রেগ পাটাকি হাঙ্গেরিতে বাংলাদেশের অনারারি কনসাল হিসেবেও অত্যন্ত দক্ষতার সঙ্গে কাজ করছেন। রাবেয়া ও রোকেয়ার মা-বাবা প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন।

কালের আলো/ডিএস/এমএম

Print Friendly, PDF & Email