মোসাদ্দেকের ৫ উইকেট, দিশেহারা জিম্বাবুয়ে

প্রকাশিতঃ 6:03 pm | July 31, 2022

স্পোর্টস ডেস্ক, কালের আলো:

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজ বাঁচানোর লক্ষ্যেই হারারেতে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচে মাঠে নেমেছে বাংলাদেশ। প্রথম ম্যাচের মতো এদিনও টসে হেরে ফিল্ডিংয়ে নামতে হয় বাংলাদেশকে।

আর বোলিংয়ে নেমেই জিম্বাবুইয়ান ব্যাটসম্যানদের নিয়ে ছেলেখেলা করছেন মোসাদ্দেক হোসেন। নিজের স্পেলের চার ওভার শেষ করে ফেলেছেন এই অফ স্পিনার। প্রতিটি ওভারেই পেয়েছেন উইকেট। প্রথম ওভারে দুই উইকেটের পর বাকি ৩ ওভারে আরও ৩ উইকেট নিয়ে টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারের প্রথম পাঁচ উইকেট তুলে নিয়েছেন মোসাদ্দেক।

এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত পাওয়ারপ্লেতে জিম্বাবুয়ের সংগ্রহ ৭ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ৩২ রান। মাঠে আছেন রায়ান বার্ল ও সিকান্দার রাজা।

দ্বিতীয় ম্যাচের প্রথম বলেই টাইগারদের সাফল্য এনে দেন অফ স্পিনিং অলরাউন্ডার মোসাদ্দেক হোসেন। জিম্বাবুইয়ান ব্যাটসম্যান রেগিস চাকাভাকে অধিনায়ক এবং উইকেট রক্ষক নুরুল হাসান সোহানের ক্যাচে পরিণত করে ফেরান তিনি। রানের খাতা খুলতে পারেননি চাকাভা।

এরপর তিনে নামা ওয়েসলি মাধবেরেকেও ওভারের শেষ বলে প্যাভিলিয়নের পথ ধরান মোসাদ্দেক। চতুর্থ বলে মোসাদ্দেককে চার মারার পর ওভারের শেষ বলেও এই অফ স্পিনারকে চার্জ করতে যান মাধবেরে।

তবে অফের বাইরের বলটি হাঁকাতে গিয়ে মেহেদী হাসানের ক্যাচে পরিণত হন ৪ রান করা মাধবেরে। প্রথম ম্যাচে অপরাজিত ৬৭ রান করেছিলেন জিম্বাবুইয়ান এই ব্যাটসম্যান।

নিজের দ্বিতীয় ওভারে এসে জিম্বাবুইয়ান অধিনায়ক ক্রেইগ এরভিনকেও ফিরিয়েছেন মোসাদ্দেক। এই অফ স্পিনারের বলে রিভার্স সুইপ করতে গিয়ে ১ রানে লিটন দাসের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন এরভিন। জিম্বাবুয়ের রান তখন মাত্র ৬।

এরপর শন উইলিয়ামস ও সিকান্দার রাজা রান বাড়ানোর চেষ্টা করেন। উইলিয়ামস করে ফেলেছিলেন ৮ রান। ম্যাচের পঞ্চম ওভারে তখন নিজের তৃতীয় ওভারের বোলিংয়ে আসেন মোসাদ্দেক।

আর এসেই প্রথম বলেই সিকান্দার রাজার কাছে চার হজম করেন। তবে তৃতীয় বলে উইলিয়ামসকে নিজের বোলিংয়ে নিজের ক্যাচে পরিণত করে ফেরান মোসাদ্দেক।

প্রথম তিন ওভারে চার উইকেট নেওয়া মোসাদ্দেককে টানা চার ওভারের স্পেল দেন অধিনায়ক সোহান। মোসাদ্দেকও নিজের শেষ ওভারে মিল্টন শুম্বাকে হাসান মাহমুদের ক্যাচে পরিণত করে ফিরিয়ে পাঁচ উইকেট তুলে নেন। শুম্বা করেন ৩ রান।

এর আগে ১৯ টি-টোয়েন্টিতে ৭ উইকেট নেওয়া মোসাদ্দেক এক ম্যাচেই নিলেন ৫ উইকেট। বোলিং স্পেলও দারুণ ঈর্ষণীয়। ৪ ওভারে ২০ রানে ৫ উইকেট।

কালের আলো/এমএইচ/এসবি

Print Friendly, PDF & Email