ভোজ্যতেল সরবরাহে অনিয়ম : এস আলম-রূপচাঁদা ও টিকে গ্রুপকে ভোক্তা অধিকারে তলব

প্রকাশিতঃ 11:14 am | March 29, 2022

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের আলো:

ভোজ্যতেল আমদানিতে কোনো ঘাটতি না থাকলেও কোম্পানির কারসাজিতে বাজারে সয়াবিন তেলের কৃত্রিম সংকট তৈরি হয়েছে— এমন অভিযোগ পাওয়ায় এস আলম গ্রুপ, বাংলাদেশ এডিবল অয়েল (রূপচাঁদা) ও টি কে গ্রুপকে তলব করেছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর।

ভোজ্যতেল সরবরাহকারী বড় এই তিন প্রতিষ্ঠানকে তলব করে সোমবার ভোক্তা অধিকার থেকে পাঠানো চিঠি পাঠানো হয়েছে। তাদের প্রতিনিধিদের আগামী বুধবার অধিদপ্তরের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সভাকক্ষে উপস্থিত হতে বলা হয়েছে।

এস আলম গ্রুপকে দেওয়া চিঠিতে বলা হয়েছে, গত ১৩ মার্চ চট্টগ্রামের কর্ণফুলী থানার মইজ্জারটেকে তাদের কারখানা পরিদর্শনে গিয়ে দেখা গেছে ড্রামের গায়ে পণ্যের নাম, মেয়াদ ও মূল্য উল্লেখ নেই। এছাড়া তাদের তেল রিফাইনারি ও বোতলজাতকরণ শাখা বন্ধ পাওয়াসহ সরকার নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে ৫ লিটারের মোড়কে সর্বোচ্চ খুচরা মূল্য ৮৩৫ টাকা লেখা ছিল। এসব অনিয়মের জন্য তলব করা হয়েছে বলে চিঠিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

বাংলাদেশ এডিবল অয়েলের নারায়ণগঞ্জের মিলে উৎপাদন ও সরবরাহ কার্যক্রম নিয়মিত পর্যবেক্ষণ করতে একটি টিম নিয়োগ করেছে ভোক্তা অধিদপ্তর। তাদেরকে দেওয়া চিঠিতে ভোক্তা অধিকার বলেছে, রূপচাঁদা ব্রান্ড ফেব্রুয়ারি মাসে তাদের কারখানা থেকে ১৪ হাজার ৩৮ টন তেল সরবরাহ করে। তবে মার্চ মাসে তা ৮২৬৩ টনে নেমে আসে। সরবরাহ স্বল্পতার বিষয়ে ব্যাখ্যা চাওয়া হয়েছে।

টিকে গ্রুপকে তলবের চিঠিতে বলা হয়েছে, নারায়ণগঞ্জে তাদের কারখানা থেকে ফেব্রুয়ারি মাসে ২৭ হাজার ৩৭১ টন পাম তেল বিপণন করা হয়। অথচ মার্চে সরবরাহ করা হয় ২১ হাজার ১১৯ টন। সরবরাহ কমে যাওয়ার বিষয়ে তাদের ব্যাখ্যা দিতে তাদের প্রতিনিধিকে ডাকা হয়েছে।

কালের আলো/এসবি/এমএম

Print Friendly, PDF & Email