এবার কন্ঠশিল্পী নগর পিতা আতিক, কী থাকছে পরবর্তী চমক? (ভিডিও)

প্রকাশিতঃ 2:31 am | October 07, 2019

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের আলো :

সনাতন ধর্মাবলম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসবের প্রথম দিনেই পেশাদার বাজিয়ে শিল্পীদের মতোন কাঁধে ঢোল ঝুলিয়ে বাজিয়েছিলেন মেয়র আতিকুল ইসলাম। পরের দিন মন্ডপ পরিদর্শনে গিয়ে পালন করেছিলেন প্রতীকী কর্মসূচি। মন্ডপের বাইরে পড়ে থাকা ময়লা নিজ হাতে পরিস্কার করে তাক লাগিয়ে দিয়েছিলেন।

আরও পড়ুন: বসুন্ধরার পূজা মণ্ডপে ভক্ত-দর্শনার্থীদের চমকে দিলেন নগর পিতা আতিকুল ইসলাম (ভিডিও)

উৎসব পালনের পাশাপাশি পূজামন্ডপ পরিস্কার রাখার নৈতিক দায়িত্ব সম্পর্কে ভক্ত-পূজারী ও দর্শনার্থীদের সচেতন করেছিলেন। এতো ছিল শারদীয় দুর্গোৎসবের প্রথম দু’দিনের গল্প। পাঁচ দিনের দুর্গোৎসবের তৃতীয় দিনে মহাষ্টমীতে এবার দরাজ কন্ঠে গান পরিবেশন করলেন।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) নগর পিতা বেছে নিলেন ভাটি অঞ্চলের মানুষের দু:খ-সুখ, প্রেম-ভালোবাসার সঙ্গে দেহতত্ত্ব ও অসাম্প্রদায়িকতার কথার আজীবন জয়গান করে আসা বাউল সম্রাট শাহ আব্দুল করিমের সেই বিখ্যাত গানটি। বাদ্যযন্ত্রের তালে তালে ‘গ্রামের নওজোয়ান হিন্দু মুসলমান’! নগর পিতার কন্ঠ মাধুর্যে ভরা এ গানে রোল পড়লো করতালির।

রোববার (০৬ অক্টোবর) রাতে রাজধানীর তেজগাঁও তেজকুনি পাড়ার খেলাঘর মাঠ পূজামণ্ডপ পরিদর্শন শেষে মূলত উপস্থিত দর্শনার্থীদের অনুরোধে এ গান পরিবেশন করেই রীতিমতো সাড়া ফেলেন উত্তরের প্রতিশ্রুতিশীল এ নগর পিতা।

আরও পড়ুন: মণ্ডপে ঢোল বাজিয়ে, নেচে আনন্দ ভাগাভাগি করলেন মেয়র আতিক (ভিডিও)

এমনিতেই একটু আধটু ফোক গান গাইতে অভ্যস্ত তিনি। এর আগে গত ঈদে একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলের উপস্থাপকের অনুরোধে ‘আদমে করে না গুনাহ, তুমি বলো পাপ’ গানের সুরে মাতিয়ে দিয়েছিলেন দর্শক-শ্রোতাদের।

গোটা ঢাকাবাসীকে নিয়ে স্বপ্ন বুনেছিলেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) প্রয়াত মেয়র আনিসুল হক। মনে প্রাণে ধারণ করতেন ‘মানুষ তাঁর স্বপ্নের সমান বড়।’ ঢাকাকে বিশ্বমানের আধুনিক সবুজ শহর হিসেবে গড়ে তোলার স্বপ্ন বাস্তবে রূপ দেওয়ার আগেই বেদনার কালো মেঘে ঢাকার আকাশকে বিদীর্ণ করে হারিয়ে গেছেন দূর আকাশে।

কিন্তু শিশুর সারল্য ভরা তেমনই হৃদয় নিয়ে অনন্ত শুন্যতা ভেদ করে একজন নগর সেবক হওয়ার মানসে সংগ্রামী আরেক নগর পিতার উত্থান ঘটেছে। ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র সাঈদ খোকন নিজেও যাকে ক্রেডিট দিয়ে বলেছিলেন, ‘মেয়র আতিকুল ইসলামের সাধারণ মানুষের সঙ্গে মিশে যাওয়ার গুণাবলী সত্যিই অসাধারণ।’

নিজেকে প্রতি মুহুর্তে ভেঙে আবার নব উদ্যমে গড়ে তোলার প্রাণশক্তি নিয়ে পরিচ্ছন্নতা, নিরাপদ ও স্মার্ট নগরী হিসেবে গড়ে তুলতে নগরীর বাসিন্দাদের মাঝে স্বত:স্ফূর্ত প্রাণের জোয়ার তৈরি করার প্রয়াস নিয়ে ‘রাউন্ড দ্যা ক্লক’ সক্রিয় রয়েছেন মেয়র আতিকুল ইসলাম।

উন্নয়ন ও গণতন্ত্রের ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশের চিরাচরিত সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি অক্ষুণ্ণ রাখতে প্রয়াসী এ নগর পিতা সামনের দিনগুলোতেও আরো নতুন নতুন চমক উপহার দিবেন, এমনটিই মনে করেন রাজধানীর সচেতন বাসিন্দারা।

কালের আলো/এসআর/এমএএএমকে

Print Friendly, PDF & Email