‘পঞ্চপাণ্ডবের’ ছবি পোস্ট করে স্মৃতিকাতর মাহমুদউল্লাহ

প্রকাশিতঃ 5:56 pm | May 04, 2024

স্পোর্টস ডেস্ক, কালের আলো:

যে দিন চলে যায় তা আর কখনো ফিরে পাওয়া যায় না। এমন চিরন্তন সত্য জানার পরও মানুষ অতীতকে ফিরে পাওয়ার আকাঙ্ক্ষা করেন, কিন্তু পান না। পরে তাই আবেগী হয়ে স্মৃতিকে রোমন্থন করতে থাকেন। বাংলাদেশ দলের অতীতের এক মুহূর্ত নিয়ে আজ তেমনি স্মৃতিকাতর হয়ে পড়েছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদও। বর্তমানে ঘরের মাঠে চলছে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ। এই সিরিজে খেলছেন মাহমুদউল্লাহ। প্রথম ম্যাচে দল উড়িয়ে দিয়েছে সফরকারিদের। কিন্তু ব্যাট হাতে মাঠে নামা হয়নি মাহমুদউল্লাহর। আজ ছিল টাইগার ক্রিকেটারদের বিশ্রাম। তাই তো বাংলাদেশ দলের অতীতের এক মুহূর্ত নিয়ে স্মৃতিকাতর হয়ে পড়েন বাংলাদেশের ‘সাইলেন্ট কিলার’। যদিও টাইগার অলরাউন্ডার জানেন সেই মুহূর্ত আর কখনো ফিরে পাবেন না। তবু অনেকের মতোই পুরোনো স্মৃতির প্রেম থেকে বের হতে পারছে না ৩৭ বছর বয়সী ব্যাটার।

শনিবার (৪ মে) বিশ্রামের দিনে তাই নিজের ভেরিফায়াড ফেসবুক পেজে ২০১৯ সালের একটা ছবি শেয়ার করেন মাহমুদউল্লাহ। সেবার ওয়ানডে বিশ্বকাপ খেলতে যাওয়ার আগে আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলতে যায় বাংলাদেশ। ক্যারিবিয়দের হারিয়ে প্রথম কোনো বৈশ্বিক টুর্নামেন্টের ট্রফি জয়ের আগে সেখানকার হোটেলে ক্যামেরাবন্দী হয়েছিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের ‘পঞ্চপাণ্ডব’। যে ছবির বয়স পাঁচ বছর পূর্ণ হয়েছে।

সেদিন হোটেল রুমে একসঙ্গে ক্যামেরায় বন্দি হয়েছিলেন মাশরাফি বিন মুর্তজা, তামিম ইকবাল, সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ ও মুশফিকুর রহিম। সকলকেই সেখানে হাসিমুখে দেখা গিয়েছিল। মাশরাফির নেতৃত্বাধীন তখনকার দলটির মাঠে এবং মাঠের বাইরে দারুণ সময় কাটানোর প্রতিচ্ছবি ছিল এটি। ছবিতে সবার ডানে ছিলেন তামিম, তারপর মাশরাফি, মাঝখানে মাহমুদউল্লাহ, তারপাশে ছিলেন সাকিব এবং মাহমুদউল্লাহ ও সাকিবের মাঝখানে ছিলেন মুশফিকুর রহিম। এ ছবি সেদিন পোস্ট হওয়ার পরপরই ভাইরাল হয়ে যায়।

শনিবার সেই ছবিটি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট দিয়ে মাহমুদউল্লাহ ক্যাপশনে লিখেন, ‘কী সুন্দর মুহূর্ত ছিল। চলো আমরা মুহূর্তগুলো ফিরিয়ে আনি।’

মাহমুদউল্লাহর এ চাওয়া পূরণ হবে কি না তা সময়ই বলে দিবে। বিশেষ করে মাঠে। তবে মাঠে না হলেও মাঠের বাইরে হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। কিন্তু এখানেও কিন্তু রয়েছে। গুঞ্জন সাকিবের সঙ্গে দ্বন্দ্বের কারণেই অবসরে চলে গিয়েছেন তামিম। ফলে একসময়কার দুই বন্ধু তামিম-সাকিব এখন কেউ কারও সঙ্গে কথা বলেন না, মুখও দেখেন না। দুজনের সেই সম্পর্ক উষ্ণ হলেই মাহমুদউল্লাহর চাওয়াটা আবারও পূরণ হতে পারে। ভবিষ্যতে এমন ছবির জন্ম হবে কি না, সেটা আবারও সেই সময়ই বলে দেবে।

কালের আলো/এমএইচ/এসবি

Print Friendly, PDF & Email