বঙ্গবন্ধুর খুনিদের বিচারের পথ রুদ্ধ করেছে জিয়াউর রহমান ও বিএনপি : প্রাণিসম্পদমন্ত্রী

প্রকাশিতঃ 8:58 pm | March 20, 2023

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের আলো:

জিয়াউর রহমান এবং তার দল বিএনপি বঙ্গবন্ধুর খুনিদের বিচারের পথ রুদ্ধ করেছে বলে মন্তব্য করেছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম।

তিনি বলেছেন, যিনি অবিনাশী সত্তা হিসাবে বিশ্বপরিমন্ডলে স্বীকৃত সে মানুষটিকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে। বঙ্গবন্ধু হত্যাকান্ডের বিচার করা যাবে না এই ইনডেমনিটি অর্ডিন্যান্স ১৯৭৯ সালে পার্লামেন্টে নিয়ে এসেছে বিএনপি। আর এটিকে পাশ করেছে বিএনপি। পাশ করার পর রাষ্ট্রপতির স্বাক্ষর প্রয়োজন হয়, সেটি দিয়েছেন জিয়াউর রহমান। বঙ্গবন্ধুর খুনের বিচার করা যাবে না এটিকে আইনে পরিণত করেছে বিএনপি এবং এতে স্বাক্ষর করেছে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান। এভাবে বঙ্গবন্ধুর খুনিদের বিচারের পথ রুদ্ধ করেছে জিয়াউর রহমান এবং তার দল।

সোমবার (২০ মার্চ) বিকালে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশ (আইইবি) সদর দফতরের সেমিনার হলে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর ১০৩তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এ মন্তব্য করেন। আইইবি দফতর ও ঢাকা কেন্দ্র যৌথভাবে এ আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল আয়োজন করে।

শ ম রেজাউল করিম বলেন, মহাকালের আবর্তে অনেক কিছু হারিয়ে যাবে, বিলীন হয়ে যাবে। কিন্তু অবিনাশী সত্তা বঙ্গবন্ধু কখনো হারিয়ে যাবে না। কারণ বঙ্গবন্ধু একজন মানুষের ভেতরে সীমাবদ্ধ ছিলেন না, একজন রাজনীতিকের ভেতরে সীমাবদ্ধ ছিলেন না। বঙ্গবন্ধু একটি অবিনাশী সত্তা, একটি আদর্শ, একটি দর্শন এবং পথ চলার পাথেয়। যখনই কোন নির্যাতিত, নিষ্পেষিত মানুষ পথ হারাবে, তখন অস্তিত্বের উৎস মূলে ফিরে আসতে হলে খুঁজে নিতে হবে বঙ্গবন্ধুর জীবনালেখ্য। বঙ্গবন্ধু অনন্তকাল প্রেরণা হয়ে থাকবেন, পথ চলার পাথেয় হয়ে থাকবেন, নির্দেশক হয়ে থাকবেন। বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে আমরা স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব পেতাম না।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের সৌভাগ্য যে একজন শেখ মুজিবকে পেয়েছে আর একজন শেখ হাসিনাকে পেয়েছে। শেখ হাসিনা বিশ্বের বিস্ময়কর একজন সৎ, পরিশ্রমী, প্রতিভাবান, দেশপ্রেমিক রাজনীতিক। তার সময়ে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। তার হাত শক্তিশালী করলে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়ন হবে। তার হাত দুর্বল করলেই স্বাধীনতাবিরোধী এবং প্রতিক্রিয়াশীল অপশক্তি প্রতিষ্ঠিত হবে। আর তারা প্রতিষ্ঠিত হলে অপ্রতিরোধ্য গতিতে এগিয়ে যাওয়া বাংলাদেশ পিছিয়ে পড়বে।

আইইবির সহকারী সাধারণ সম্পাদক শেখ তাজুল ইসলাম তুহিনের সঞ্চালনায় এবং আইইবি-এর প্রেসিডেন্ট মো. নূরুল হুদার সভাপতিত্বে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ও আইইবি-এর সাবেক প্রেসিডেন্ট মো. আব্দুস সবুর। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন আইইবির সহকারী সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী রনক আহসান, প্রকৌশলী আবুল কালাম হাজারী, প্রকৌশলী প্রতীক কুমার ঘোষসহ আইইবির অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

আলোচনা সভা শেষে মন্ত্রী দুস্থ ও এতিম মানুষদের মাঝে ত্রানসামগ্রী বিতরণ করেন।

কালের আলো/এসবি/এমআএম

Print Friendly, PDF & Email