মিষ্টি নিয়ে তৈমুরের বাসায় আইভী, খাওয়ালেন নিজ হাতে

প্রকাশিতঃ 6:29 pm | January 17, 2022

নিজস্ব সংবাদদাতা, কালের আলো:

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে পরাজিত মেয়র প্রার্থী তৈমূর আলম খন্দকারের বাসায় মিষ্টি নিয়ে গেলেন বিজয়ী প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী।

দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে সোমবার (১৭ জানুয়ারি) বিকেল ৫টার দিকে শহরের মাসদাইর এলাকায় তৈমূরের বাসভবনে যান তিনি। এ সময় তার দলীয় নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। বাসায় প্রবেশের পর তারা কুশল বিনিময় করেন এবং একে-অপরকে মিষ্টি খাওয়ান।

এ সময় সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেন, তার (তৈমুর আলম) সঙ্গে আমার পারিবারিক সম্পর্ক। আমার বাবার কবরে গেলে, তার মায়ের মানে দাদির কবরেও যেতাম। নির্বাচন আসলে অনেক কথা হয়। কিন্তু সেটা সাময়িক। নির্বাচন চলে গেছে, আমি মনে করি সেগুলো আমরা ভুলে সামনে এগিয়ে যাবো। সবাই মিলে নারায়ণগঞ্জের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখবো।

তিনি আরও বলেন, নির্বাচনে তৈমুর চাচার ছোট ভাই মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ আবারও ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর নিবাচিত হয়েছেন। তাকে এর আগেও সহায়তা করেছি, এখনও করবো।

তৈমুর আলম বলেন, ‌রাজনীতিতে জয়-পরাজয় কোনও বিষয় না। তার (আইভী) সঙ্গে আমার পারিবারিক সম্পর্ক। ভাতিজি এসেছে চাচার বাসায়, অর্থাৎ মেয়ে এসেছে বাবার বাসায়। এখানে রাজনীতির কিছু নেই।

তিনি বলেন, আইভীর বাবা আলী আহমদ চুনকার হাত ধরেই ছাত্র রাজনীতি শুরু করি। তার মাধ্যমে আমার রাজনীতিতে হাতেখড়ি। আইভী আর আমার সম্পর্ক রাজনীতির ঊর্ধ্বে। আমি তাকে সবকিছুতে সহায়তা করবো।

এর আগে রোববার সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত নাসিক নির্বাচনের ভোটগ্রহণ চলে। এরপর ফলাফল আসতে থাকে। নাসিক নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা মাহফুজা আক্তার ফল ঘোষণা করেন। সন্ধ্যা নাগাদই আইভীর জয়ের আভাস মিলতে থাকে। শেষ পর্যন্ত তার জয়েরই খবর আসে।

ঘোষিত ১৯২টি কেন্দ্রের বেসরকারি ফলাফলে দেখা যায়, মেয়র পদে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ মনোনীত আইভী নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন এক লাখ ৫৯ হাজার ৯৭ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী তৈমূর আলম খন্দকার হাতি প্রতীকে পেয়েছেন ৯২ হাজার ১৬৬ ভোট।

এর আগে ২০১১ সালে প্রথমবার এবং ২০১৬ সালে দ্বিতীয়বার মেয়র পদে জয়ী হয়েছিলেন ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী।

কালের আলো/ডিএস/এমএম

Print Friendly, PDF & Email