করোনা কোয়ারেন্টাইনে রোনালদো

প্রকাশিতঃ 3:46 pm | March 12, 2020

স্পোর্টস ডেস্ক, কালের আলো:

একদিন আগেই ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর ক্লাব সতীর্থ ড্যানিয়েল রুগানি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার খবর জানায় জুভেন্টাস। তুরিনের ক্লাবটির পক্ষ থেকে জানানো হয়, ইতালীয় তারকা রুগানির দেহে করোনাভাইরাস ধরা পড়েছে। এ ছাড়া গত কয়েক দিনে রুগানির কাছাকাছি যাওয়া ফুটবলারদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করার পরামর্শ দেওয়া হয়। এ খবর জানার পর করোনাভাইরাসের আশঙ্কায় কোয়ারেন্টাইনে গেছেন পর্তুগিজ সুপারস্টার ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইল মেইল জানায়, সতীর্থ ড্যানিয়েল রুগানি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার খবর শুনে বাধ্য হয়ে কোয়ারেন্টাইনে চলে গেছেন রোনালদো। এই খবর জানার পর ইতালিয়ান ক্লাবটিতে ফিরে আসেননি তিনি। শুধু রোনালদো নয়, তাঁর বাকি সতীর্থও সবাই যে যার মতো আলাদা আছেন।

সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে নভেল করোনাভাইরাস। আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে প্রতিদিন। বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যা। এর নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে ক্রীড়াক্ষেত্রেও। এই ভাইরাসের কারণে এরই মধ্যে বিশ্বের অনেক ক্রীড়া ইভেন্ট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

এর আগে আনুষ্ঠানিক বিবৃতিতে জুভেন্টাসের পক্ষ থেকে জানানো হয়, ইতালীয় ডিফেন্ডার ড্যানিয়েল রুগানির দেহে করোনাভাইরাস ধরা পড়েছে। তবে রুগানির শরীরে করোনার উপসর্গগুলো বর্তমানে অপ্রকাশ্য অবস্থায় রয়েছে। তাই দ্রুতই তাঁর সুস্থতার আশা করছে জুভেন্টাস। বর্তমানে জুভেন্টাসের অধীনেই চিকিৎসা চলছে রুগানির।

ইতালিতে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়া প্রথম বড় তারকা ফুটবলার হলেন ড্যানিয়েন রুগানি। তিনি আক্রান্ত হওয়ায় বাকিদের স্বাস্থ্য নিয়েও বেশ শঙ্কা দেখা দিয়েছে। তাই রুগানির কাছাকাছি আসা ফুটবলারদেরও স্বাস্থ্য পরীক্ষা করার কথা বলেছে জুভেন্টাস।

করোনাভাইরাসে বিপর্যস্ত ইউরোপের দেশ ইতালি। সেখানে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা কমে যাওয়ার কোনো নামগন্ধও নেই; বরং ক্রমেই বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। এমন পরিস্থিতিতে সবচেয়ে কঠোর প্রতিরোধ ব্যবস্থা নিয়েছে ইতালির সরকার। সেখানে পুরো দেশকেই রাখা হয়েছে কোয়ারেন্টাইনে। এ ছাড়া ফার্মেসি ও খাবারের দোকান বাদে বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে সব ধরনের দোকানপাট। ইতালির প্রধানমন্ত্রী জিউসেপ কোঁতে জানিয়েছেন, পানশালা, রেস্তোরাঁ, হেয়ারড্রেসার এবং আপাতত অপ্রয়োজনীয় সংস্থাগুলোও বন্ধের আওতায় থাকবে।

ইতালি ছাড়াও ইউরোপের বিভিন্ন দেশ ধুঁকছে করোনাভাইরাসে। এর মধ্যে ফ্রান্সে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দুই হাজার ২৮১, স্পেনে দুই হাজার ২৭৭, জার্মানিতে এক হাজার ৯৬৬, সুইজারল্যান্ডে ৬৪২, নরওয়েতে ৫৯৬, ডেনমার্কে ৫১৬, নেদারল্যান্ডসে ৫০৩, যুক্তরাজ্যে ৪৫৬ ও বেলজিয়ামে ৩১৪ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এরই মধ্যে করোনাভাইরাস বিশ্বব্যাপী মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়েছে বলে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

কালের আলো/পিআর/এমএম

Print Friendly, PDF & Email