মাদক নির্মূলে কাউন্সিলর আসিফের ‘অ্যাকশন প্ল্যান’ বাস্তবায়ন শুরু

প্রকাশিতঃ 2:46 am | February 06, 2020

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের আলো :

মাদকের কালো থাবার বিস্তার রোধে সর্বোচ্চ কঠোর অবস্থান নিয়েছে সরকার। পুলিশ ও অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা প্রতিদিন বহু মাদকদ্রব্য উদ্ধার করছেন, গ্রেপ্তার করছেন এবং মামলা নিচ্ছেন। কিন্তু এরপরেও মাদক পুরোপুরি বন্ধ করা সম্ভব হচ্ছে না। 

কিন্তু জনপ্রতিনিধি থেকে শুরু করে সবার ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টাতেই কেবলমাত্র মাদক বাণিজ্যের রাশ টেনে ধরা সম্ভব। আর সেই পথেই আনুষ্ঠানিক পথচলা শুরু করেছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডের  নব-নির্বাচিত  কাউন্সিলর আসিফ আহমেদ। 

ভোটের আগেই ঘোষণা দিয়েছিলেন নির্বাচিত হলে ডিএনসিসি’র ৩৩ নম্বর ওয়ার্ড হবে ‘নো ড্রাগস’ ওয়ার্ড। যে কথা সেই কাজ! কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েই মাদক নির্মূলে ‘অ্যাকশন প্ল্যান’ বাস্তবায়ন শুরু করেছেন তিনি। 

বুধবার (০৫ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে নিজের প্রধান নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি পূরণে নিজ ওয়ার্ডের বিভিন্ন এলাকায় মাদক বিরোধী চিরুনি অভিযান পরিচালনা করেন আওয়ামী লীগের মনোনয়নে ভোটে নির্বাচিত এই কাউন্সিলর। 

স্থানীয় সূত্র জানায়, এদিন মোহাম্মদপুরের ঢাকা উদ্যানের পানির পাম্প এলাকায় আকস্মিক হানা দিয়ে ৩ মাদক ব্যবসায়ীকে হাতেনাতে ধরেন কাউন্সিলর আসিফ। এ সময় তাদের কাছ থেকে গাঁজাসহ বিভিন্ন মাদকদ্রব্য উদ্ধার করা হয়। 

আসিফ অনুসারী উদ্যমী তরুণরা জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তিন মাদক ব্যবসায়ীকে ধরার এমন একটি ছবি পোস্ট করে। সেই থেকেই ইতিবাচক আলোচনা চলছে কাউন্সিলর আসিফ আহমেদের মাদক বিরোধী অ্যাকশন নিয়ে। 

‘ডিএনসিসির ৩৩ নম্বর ওয়ার্ড হবে ‘নো ড্রাগস ওয়ার্ড, সেই কথা পুনরায় জানিয়ে আসিফ আহমেদ কালের আলোকে বলেন, ‘আমি বলেছিলাম নির্বাচিত হলে ডিএনসিসির ৩৩ নম্বর ওয়ার্ড হবে মাদকমুক্ত। মাদকের ভয়াল থাবা থেকে তরুণ প্রজন্মকে রক্ষায় কার্যকর নানা উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে। 

মাদক কারবারি ও এই বাণিজ্যের সঙ্গে সম্পৃক্তদের বিরুদ্ধে সবাই পরিচয় গোপন করেই অভিযোগ দিতে পারবেন। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে মাদক নির্মূলে সকলে মিলে কাজ করবো।’

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করেছেন। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশিত পথে সামাজিক সচেতনতা সৃষ্টি করে যার যার অবস্থান থেকে মাদকের বিরুদ্ধে লড়াই করে এই যুদ্ধে জয়ী হতেই হবে। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলায় জঈিবাদের মতো মাদককেও চিরতরে নির্মূল করা হবে। 

কালের আলো/সিএইচ/আরআর

Print Friendly, PDF & Email