বিশ্বমানের কাস্টমস সেবা প্রদান করতে চায় সরকার : জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশিতঃ 6:43 pm | January 26, 2020

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের আলো:

সরকার বিশ্বমানের কাস্টমস সেবা প্রদান করতে চায় বলে মন্তব্য করেছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন।

তিনি বলেছেন, সরকারের এই পদক্ষেপ বাস্তবায়নে সবার সহযোগিতার পাশাপাশি রাজস্ব আদায়ে গতিশীলতা বৃদ্ধি করে সরকারের অর্থনৈতিক হাতকে শক্তিশালী করতে হবে।

তিনি বলেন, দেশের মানুষের অর্থনৈতিক অবস্থা দিন দিন উন্নতির দিকে অগ্রসর হচ্ছে। বিশ্বের মধ্যে বাংলাদেশ উন্নয়নের রোল মডেল। কাস্টম হাউস যাতে আরো উন্নত হতে পারে সে জন্য সরকারের চেষ্টা রয়েছে। দেশের সকল কাস্টমস হাউসকে আরো আধুনিক করা হবে।

রোববার(২৬ জানুয়ারি) আন্তর্জাতিক কাস্টমস দিবস উপলক্ষে বেনাপোল কাস্টমস হাউজে এক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেন, বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতা সংগ্রামের মধ্য দিয়ে বাঙালিকে বীরের জাতি হিসেবে বিশ্ব দরবারে পরিচিতি লাভ করিয়েছেন। বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় এসে জরাজীর্ণ এই বাঙালি জাতিকে মাথা উঁচু করে দাঁড়ানোর অনুপ্রেরণা জুগিয়েছেন। পর্যায়ক্রমে এদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করিয়েছেন। উচ্চ আয়ের দেশের স্বপ্ন নিয়ে তিনি আকাশ ছুঁতে চলেছেন। শেখ হাসিনা আইনের শাসনের মধ্য দিয়ে দেশকে দুর্বার গতিতে এগিয়ে নিচ্ছেন।

তিনি বলেন, অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও নিরাপদ বাণিজ্যের পরিবেশ সৃষ্টিতে প্রশিক্ষিতদের কাজে লাগাতে হবে। দেশ ও জাতিকে এগিয়ে নিতে মেধা ও প্রশিক্ষণের বিকল্প নেই। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গঠনে সবাইকে একসাথে কাজ করতে হবে। দশে মিলে কাজ করলে আমাদের কাঙ্ক্ষিত রাজস্ব আহরণ করা সম্ভব। আর কাঙ্ক্ষিত রাজস্ব আহরণ হলে প্রধানমন্ত্রীর ভিশন ২০২১ ও ২০৪১ বাস্তবায়ন সম্ভব হবে এবং আমাদের দেশ উন্নত দেশে রূপান্তর হবে।

মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের অকৃত্রিম বন্ধু প্রতিম রাষ্ট্র ভারত। দু‘দেশের সরকারের মধ্যে চমৎকার সম্পর্ক বিদ্যমান। বাংলাদেশ একটি উন্নত ও সমৃদ্ধ রাষ্ট্র হওয়ার লক্ষে ভারতের সাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করছে। এটি পূর্বের যেকোনো সময়ের তুলনায় অনেকদূর এগিয়েছে। ভারতের সাথে ব্যবসা বাণিজ্য দিন দিন বাড়ছে। দু‘দেশের কাস্টমস আরো গতিশীল হবে।

তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক কাস্টমস দিবসে কাস্টমস কর্মকর্তারা ও ব্যবসায়ীরা তাদের কর্মকাণ্ডের মধ্য দিয়ে সেটার বাস্তবায়ন করতে হবে। সেবার মান বাড়াতে হবে। দেশের জাতীয় বাজেটে এনবিআরের একটি ভূমিকা রয়েছে। তাদের দায়িত্ব ও কর্তব্য সম্পর্কে অবহিত হবেন। পাশাপাশি ব্যবসায়ী ও জনগণ কাস্টমসের কার্যক্রম, গুরুত্ব ও দেশের উন্নয়নে তাদের ভূমিকা সম্পর্কে অবহিত হবেন। একই সঙ্গে তথ্যপ্রযুক্তি জগতের অবারিত সুযোগ সুবিধার সর্বোচ্চ ব্যবহারের মাধ্যমে ভৌগলিক সীমারেখা ভেঙে কাস্টমস এক অখণ্ড বিশ্ব প্রতিষ্ঠার মহতী বন্ধনে বিশ্ব মানুষকে আবদ্ধ করবে। আমদানি ও রপ্তানি কার্যক্রমকে সহজ, স্বচ্ছ ও গতিশীল করার জন্য বাংলাদেশ কাস্টমসের সাথে সংশ্লিষ্ট অন্যান্য সরকারি ও বেসরকারি সংস্থা এবং ব্যবসায়ী সম্প্রদায়ের সুসংহত যোগাযোগ স্থাপন অপরিহার্য্য। সম্মিলিতভাবে দেশপ্রেম সেবায় সকলকে এগিয়ে আসতে হবে।

বেনাপোল কাস্টম কমিশনার মোহাম্মদ বেলাল হোসাইন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন যশোর-১ এর সংসদ সদস্য শেখ আফিল উদ্দিন, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সদস্য (কর আপীল ও অব্যাহতি) মো. মেফতাহ উদ্দিন খান, যশোর জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শফিউল আরিফ, পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আশরাফ হোসেন ও বেনাপোল সিএন্ডএফ এজেন্টস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মফিজুর রহমান সজন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন যুগ্ম কমিশনার মোহাম্মদ শহিদুল ইসলাম ও মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন অতিরিক্ত কমিশনার ড. মো. নেয়ামুল ইসলাম।

এর আগে সকাল সাড়ে ৮টার দিকে বেনাপোল কাস্টম হাউজ মাঠে শান্তির প্রতীক পায়রা ও বেলুন উড়িয়ে দিবসের শুভ সূচনা করেন সাংসদ শেখ আফিল উদ্দিন। পরে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি বেনাপোল কাস্টম হাউজ থেকে বের হয়ে বন্দর হয়ে আবার কাস্টমস হাউজে ফিরে আসে।

র‌্যালিতে বেনাপোল কাস্টমসের সকল কর্মকর্তা কর্মচারীবৃন্দ, ব্যবসায়ী ও গণ্যমান্য ব্যক্তিরা অংশগ্রহণ করেন। এ উপলক্ষে বেনাপোল কাস্টম হাউসকে সাজানো হয়েছে বর্ণীল সাজে। সড়ক পথ ও উল্লেখযোগ্য স্থান বিলবোর্ড, পোস্টারিং, ব্যানার, ফেস্টুনে সজ্জিত করা হয়েছে।

কালের আলো/বিআর/এমএম

Print Friendly, PDF & Email