কাউন্সিলর প্রার্থী আসিফের শোডাউন চমকে চায়ের কাপে ঝড়!

প্রকাশিতঃ 11:11 pm | January 11, 2020

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের আলো :

সব পথ যেন একাকার হয়ে মিশেছিল রাজধানীর কাদেরাবাদ মকবুল হোসেন ডিগ্রি কলেজ মাঠের সড়কে। সবাই হাঁটছেন ধীরপায়ে। উন্নয়ন-সংগ্রামের ধারক ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ মনোনীত কাউন্সিলর প্রার্থী আসিফ আহমেদের জন্য ঐক্যবদ্ধ সবাই। ভোটের মাঠে এ যেন আগাম বিজয় উৎসব!

উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্যে দিয়ে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ঘুড়ি প্রতীকের প্রার্থী আসিফের নেতৃত্বাধীন মিছিল রূপ নিয়েছিল জনারণ্যে। ঠাঁই ছিল না তিল ধারণের।

শনিবারের (১১ জানুয়ারি) এই মিছিলে দলীয় নেতা-কর্মীরা যেমন ছিলেন তেমনি সাধারণ মানুষও স্বত:স্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করেন। সবার কন্ঠে ছিল সেই অমিত শক্তির স্লোগান ‘জয় বাংলা’।

স্মরণকালের দীর্ঘ এমন শোডাউনে তৈরি হয়েছে নতুন চমক। সাধারণত এমপি-মন্ত্রীদের শোডাউনে যেমন ঢল নামে জনতার, এদিন যেন তাদেরও ছাপিয়ে গেছেন উদ্যমী ও প্রতিশ্রুতিশীল তরুণ রাজনীতিক আসিফ আহমেদ।

স্থানীয় কাদেরাবাদ মকবুল হোসেন ডিগ্রি কলেজ থেকে শুরু হওয়া এ বিশাল মিছিল স্থানীয় আল্লাহ করিম মসজিদের সামনে দিয়ে চার রাস্তা মোড় হয়ে চাঁদ উদ্যানের মূল সড়ক দিয়ে ছুটে চলে।

‘শেখ হাসিনার সালাম নিন, ঘুড়ি মার্কায় ভোট দিন’, ‘৩০ জানুয়ারি সারাদিন, ঘুড়ি মার্কায় ভোট দিন’, ‘আসিফ ভাইয়ের তুলনা, কারও সাথে চলে না’, আসিফ ভাই দিয়েছে ডাক সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ নিপাত যাক’ নানা স্লোগানে মুখর রাজপথে আসিফ সমর্থক আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মী ও বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ হয়ে পড়ে একাকার।

প্রায় ১০ কিলোমিটার দীর্ঘ সাড়া জাগানো এই শোডাউন রাজধানীর মোহাম্মদীয়ৈ হাউজিং ৬ নম্বর সড়ক দিয়ে চলতে চলতে স্থানীয় সোনালি মাঠের সামনে গিয়ে শেষ হয়। প্রায় আড়াই ঘন্টা সময়কালের এ মিছিলটি ছিল ভোটারদের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে।

একজন মেধাবী ও উদীয়মান তারুণ্যের প্রার্থী আসিফ আহমেদ যে ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দাদের কাঙ্খিত নেতা, এই শোডাউন যেন প্রকারান্তরে সেই ইঙ্গিতই বহন করে।

ঢাকা উত্তর ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে জমজমাট প্রচারণা চলছে। ভোটের মাঠ রীতিমতো জমিয়ে দিয়েছেন ডিএনসিসির ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগ মনোনীত কাউন্সিলর প্রার্থী আসিফ আহমেদ। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক, টুইটারেও তাঁর সমর্থনে চলছে ইতিবাচক প্রচারণা।

আসিফের শনিবারের (১১ জানুয়ারি) বিকেলের শোডাউনটি দলীয় নেতা-কর্মী, ভক্ত-অনুরক্তদের সেলফোনের ক্যামেরায় বন্দি হয়ে ফেসবুকেও ঝড় তুলেছে।

সন্ধ্যার পর থেকেই স্থানীয় মোহাম্মদপুর, কাটাশুর, চাঁদ উদ্যানসহ বিভিন্ন এলাকায় চায়ের দোকান মুখর ছিল আসিফের বিশাল নির্বাচনী শোডাউনের আলাপ-আলোচনায়। গরম চায়ের কাপে চুমুক দেওয়ার ফাঁকে ফাঁকে চলছিল আসিফ বন্দনা।

আপাদমস্তক আওয়ামী লীগের পরিবারের এ সন্তান পরিবর্তনের যে স্বপ্ন দেখাচ্ছেন সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নে তাকে সব রকমের সহযোগিতার আশ্বাসের কথাও উঠে আসে চা স্টলের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের আড্ডায়।

বঙ্গবন্ধু অন্ত:প্রাণ রাজনীতিক আসিফ আহমেদ কালের আলোকে বলেন, ‘স্মরণকালের দীর্ঘ এই শোডাউনে সবশ্রেণি পেশার মানুষের স্বত:স্ফূর্ত সাড়ায় আমি অভিভূত। ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দাদের প্রতি আমি আজীবন ঋণী হয়ে থাকবো।’

উচ্ছ্বসিত আসিফ আরও বলেন, ‘স্বাধীনতার স্বপক্ষের  মানুষদের এবং বঙ্গবন্ধু ও জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রার্থী আমি। আমি মনে করি আগামী ৩০ জানুয়ারি ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডের সচেতন নাগরিকরা আমার পক্ষে রায় দেবেন।’

ঘুড়ি প্রতীকের এই প্রার্থী বলেন, ‘সবার দোয়া ও সহযোগিতায় আগামী ৩০ জানুয়ারির ভোটে নির্বাচিত হলে ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডকে আধুনিক ও সমস্যামুক্ত একটি ওয়ার্ড হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করবো। নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে সর্বোচ্চ আন্তরিক থাকবো।’

কালের আলো/সিএইচ/আরআর

Print Friendly, PDF & Email