সক্রিয় হচ্ছেন সাবেক প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম?

প্রকাশিতঃ 8:58 am | August 09, 2019

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের আলো :

ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দক্ষতার সঙ্গেই মন্ত্রণালয় সামলেছেন ঢাকাই চলচ্চিত্রে একসময়ের তুমুল জনপ্রিয় অভিনেত্রী তারানা হালিম। সেই সময় মোবাইল সিমের বায়োমেট্রিক নিবন্ধন সম্পন্ন করা ছাড়াও একাধিক ইতিবাচক পদক্ষেপ গ্রহণ করে প্রশংসিত হয়েছিলেন। টানা দুই বার ছিলেন সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য। এরপর পালন করেন তথ্য প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্বও।

কিন্তু একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে টাঙ্গাইল-৬ (দেলদুয়ার-নাগরপুর) থেকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন। কিন্তু হাইকমান্ড মনোনয় দেয়নি। এমনকি সংরক্ষিত আসনে পুনরায় তাকে নিয়ে আলোচনা থাকলেও নিজে থেকেই মনোনয়ন ফরমই কিনেননি।

মান-অভিমান থেকেই সাময়িক সময় নিষ্ক্রিয় ছিলেন রাজনীতিতে। ইদানিং আবার বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি হিসেবে দলীয় বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে যাচ্ছেন। অর্থাৎ, আবারো পূর্ণোদ্যমে রাজনীতিতে সক্রিয় হয়েছেন সাবেক এ প্রতিমন্ত্রী।

সর্বশেষ বৃহস্পতিবার (০৮ আগস্ট) বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয় আয়োজিত বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৮৯তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেছেন তিনি। এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড.শিরিন শারমিন চৌধুরী এমপি।

এর আগে চলতি বছরের জুলাইয়ের শেষের দিকে গুজব প্রতিবাদে রাজধানীর শাহবাগে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট। সভাপতি হিসেবে এ মানববন্ধনে নেতৃত্ব দেন তিনি। এছাড়া সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও আগে থেকেই সরব রয়েছেন যুবলীগের এক সময়কার মহিলা বিষয়ক এ সম্পাদক।

ফেনীর সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসার ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে ফেসবুকে আবেগঘন পোস্ট দিয়ে আলোচিত হয়েছিলেন সাবেক এ তথ্য প্রতিমন্ত্রী। গুজব প্রতিরোধে নিজের অতীত অভিজ্ঞতা থেকেই পুনরায় গুজবের বিরুদ্ধে বিভিন্ন কর্মসূচিতে ভূমিকা রাখছেন তথ্য মন্ত্রণালয়ের ‘গুজব প্রতিরোধ ও অবহিতকরণ’ সেলের এ স্বাপ্নিক।

এতে করে তাঁর অনুসারী নেতা-কর্মী-সমর্থকদের মাঝে হাসির ঝিলিক লেগেছে। তাদের ভাষ্য হচ্ছে- দলের ঘোর দু:সময়ে বিএনপি-জামায়াত জোটকে রাজনৈতিকভাবে প্রতিহত করতে সক্রিয় ভূমিকায় ছিলেন তারানা। ওয়ান ইলেভেনে শেখ হাসিনা মুক্তি আন্দোলনেও কার্যকর ভূমিকা পালন করে তাঁর নেতৃত্বাধীন বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট। বঙ্গবন্ধু কন্যা, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাকে সর্বোচ্চ মূল্যায়ন করেছেন। সামনেও তারানার জন্য চমক অপেক্ষা করছে।

কালের আলো/এআরএফ/এমএএএমকে

Print Friendly, PDF & Email