ঢাকাকে সেফ সিটিতে পরিণত করার চেষ্টা করছে সরকার: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিতঃ 4:54 pm | March 29, 2019

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের আলো:

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল জানিয়েছেন, অগ্নি দুর্ঘটনা মোকাবিলায় ফায়ার সার্ভিস আরও দ্রুত পদক্ষেপ নিতে পারে সেজন্য নতুন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, আমরা ফায়ার সার্ভিসকে আরও উন্নত করার চেষ্টা করছি। আমরা ঢাকা সিটিকে সেফ সিটিতে পরিণত করার চেষ্টা করছি। ভবিষ্যতে যেকোনো দুর্ঘটনায় ক্যামেরা নিয়ন্ত্রিত হবে।

শুক্রবার (২৯ মার্চ) রাজধানীর হাতিরঝিলের এমফ্রি থিয়েটারে বঙ্গবন্ধু ইন্টার ইউনিভার্সিটি ২০১৯ স্পোর্টস ক্যাম্প উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এই কথা বলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, অগ্নি দুর্ঘটনা মোকাবিলায় এখন ফায়ার সার্ভিসের সরঞ্জামগুলো এক জায়গায় না রেখে শহরের চার জায়গায় রাখা হবে। যাতে করে কোনো দুর্ঘটনা ঘটলেই ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা খুব দ্রুত যেন ঘটনাস্থলে যেতে পারে। এটা আমরা করছি, সে পরিকল্পনা মতো কাজ করা হচ্ছে। ঘটনাস্থলে তাৎক্ষণিকভাবে তা চিহ্নিত করে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। যেখানে পুলিশের দরকার সেখানে পুলিশ যাবে, যেখানে অ্যাম্বুলেন্সের দরকার সেখানে অ্যাম্বুলেন্স যাবে। ঘটনা মেকাবিলায় ফায়ার সার্ভিসের দরকার হলে ফায়ার কর্মীরা যাবে। আমাদের সে ধরনের পরিকল্পনা রয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী ফায়ার সার্ভিসের সক্ষমতা বৃদ্ধির ওপর জোর দিয়েছেন জানিয়ে আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে আমরা বিদেশ থেকে অগ্নি নির্বাপনের নতুন নতুন সরঞ্জাম আনছি, ফায়ার সার্ভিসের কর্মীদের সক্ষমতায় প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হচ্ছে। সরকারের সহযোগিতায় ফায়ার সার্ভিস এখন আগের চেয়ে প্রশিক্ষিত হয়ে কাজ করছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, দুর্যোগ মোকাবিলায় ফায়ার সার্ভিসের পাশাপাশি আমরা প্রায় ৬০ হাজার ভলান্টিয়ার তৈরি করেছি। যাতে তারা ভূমিকম্প বা যে কোনো দুর্ঘটনায় উদ্ধারকাজ করতে পারে। চুরিহাট্টায় এই ভলান্টিয়াররা কাজ করেছে।

বনানীর এফআর টাওয়ারে অগ্নিকাণ্ডে ফায়ার সার্ভিস পৌঁছাতে দেরি হওয়া বিষয়ে কামাল বলেন, একটা ব্যস্ততম সময়ের মধ্যে এই আগুনের ঘটনা ঘটেছে। ঢাকা শহর সব সময়ই যানজটের মধ্যে থাকে। আমাদের যেসব অগ্নি নির্বাপন গাড়ি কাছাকাছি ছিল, সেগুলো তাৎক্ষণিকভাবেই ঘটনাস্থলে গেছে। যানজটের জন্য তাদের পৌঁছাতে সামান্য দেরি হয়েছে।

ফায়ার সার্ভিসের কর্মীদের কাজের প্রশংসা করে মন্ত্রী বলেন, যারা অগ্নিনির্বাপনের দায়িত্বে ছিলেন, তারা নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করেছেন। এই জায়গাটাতে তাদের কোনো ত্রুটি ছিল না।

কালের আলো/এমএইচএ

Print Friendly, PDF & Email