দুর্গম এলাকায় ব্রডব্যান্ড কানেক্টিভিটি এ বছরেই : পলক

প্রকাশিতঃ 10:39 pm | May 02, 2021

টেক ডেস্ক,কালের আলোঃ

চলতি বছরের মধ্যে দেশের টেলিযোগাযোগ সুবিধা বঞ্চিত দুর্গম এলাকাগুলো উচ্চগতির ইন্টারনেটের আওতায় আসছে বলে জানিয়েছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ।

রোববার (২ মে) ইউনিয়ন পর্যায়ে ব্রডব্যান্ড কানেক্টিভিটি স্থাপন কাজের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। এতে ভার্চুয়ালি যুক্ত হন প্রতিমন্ত্রী।

এসময় পলক বলেন, দেশে বিটিসিএলের মাধ্যমে এক হাজার ২০০, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি) এর ইনফো সরকার ৩ প্রকল্পের আওতায় দুই হাজার ৬০০ ইউনিয়ন ফাইবার অপটিক্যালের মাধ্যমে ইন্টারনেটে যুক্ত হয়েছে।

এছাড়া ৬১৭টি ইউনিয়ন ফাইবার অপটিক্যাল হাই স্পিড ইন্টারনেট ব্রডব্যান্ড কানেকটিভিটির আওতায় নিয়ে আসার জন্য কাজ চলছে। আশা করা যাচ্ছে ২০২১ সাল নাগাদ মূল অবকাঠামোগত উন্নয়নের কাজ শেষ হবে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, আর মাত্র একশোটি ইউনিয়ন বাকি থাকবে। যেটি প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় ভাইয়ের নির্দেশনা দিয়েছেন যে, বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট থেকে একশো-দেড়শোর মতো ইউনিয়ন বাকি থাকবে সেখানে আমরা পাহাড় এবং দ্বীপ, যেখানে আমরা ফাইবার অপটিক্যাল ক্যাবল নিয়ে যেতে পারছি না সেগুলোতে আমরা বঙ্গবন্ধু ১ স্যাটেলাইটের মাধ্যমে যুক্ত করবো।

দেশে দক্ষ মানবসম্পদ গড়ে তুলতে আগামী কয়েক মাসের মধ্যে ৩০০ নির্বাচনী আসনে ‘স্কুল অব ফিউচার’ গড়ে তোলা হবে বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী।

তিনি বলেন, প্রত্যেকটি সংসদীয় আসনে একটি করে ‘স্কুল অব ফিউচার’ মডেল স্কুল হবে। যেখানে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি, শিক্ষকদের উপস্থিতি, তাদের ক্লাসে উপস্থিত হওয়া, তাদের কোর্স কারিকুলাম সবকিছু অনলাইনে থাকবে। পাশাপাশি তাদের ‘স্কুল অব ফিউচার’ ল্যাবে তারা হাতে কলমে ফ্রন্টেড টেকনোলজি সম্পর্কে জানতে পারবে।

ভার্চ্যুয়াল মাধ্যমে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে যুক্ত হয়ে দুর্গম এলাকায় তথ্য-প্রযুক্তি নেটওয়ার্ক স্থাপন (কানেক্টেড বাংলাদেশ) প্রকল্প পরিচালক জগদীশ চন্দ্র সরকার বলেন, লালমনিরহাটের দহগ্রাম, কুড়িগ্রামের রমনা,গাইবান্ধার কামদিয়া, সিরাজগঞ্জের গান্ধাইল ইউনিয়নসহ দেশের বিভিন্ন উপজেলার ২১টি ইউনিয়নে ব্রডব্যান্ড কানেক্টিভিটি স্থাপনের কাজ একযোগে শুরু হচ্ছে।

ইউনিয়ন পরিষদগুলোতে ডিজিটাল সেন্টার চালু করা গেলে পার্শ্ববর্তী অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোকে যুক্ত করা যাবে এবং সরকারের বিভিন্ন ই-সেবা জনগণ সহজে নিতে পারবেন বলে জানান বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদার।

কালের আলো/আরএস/এমএইচএস

Print Friendly, PDF & Email