রাজধানীর মোড়ে মোড়ে চেকপোস্ট, জরুরি না হলে বাসায় ফেরত

প্রকাশিতঃ 2:40 pm | April 14, 2021

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের আলো:

মহামারি করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে বাংলা নববর্ষের প্রথম দিন থেকেই দেশে চলছে কঠোর লকডাউন। একদিনে বৈশাখের প্রথমদিন অন্যদিকে প্রথম রোজা। কঠোর লকডাউনর ভেতরেও জীবনের প্রয়োজনে ঘর থেকে বের হচ্ছে মানুষ। তবে এক্ষেত্রে তাদের পুলিশ চেকপোস্টে জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখি হতে হচ্ছে। কারন পুলিশ ও র‌্যাব সদস্যরা সড়কে কঠোরভাবে লকডাউন বাস্তবায়নে কাজ করছেন। অনেক সড়কে ব্যারিকেড দিয়ে পুরোপুরি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে যান চলাচল।

বুধবার (১৪ এপ্রিল) সকাল থেকে রাজধানীর প্রতিটি মোড়ে বসানো হয়েছে চেকপোস্ট। ব্যারিকেডগুলোর সামনে দাঁড়াচ্ছেন ৪-৫ জন করে পুলিশ সদস্য। একজন গাড়ি থামাচ্ছেন, বাকিরা ঘর থেকে বের হওয়ার কারণ জিজ্ঞেস করছেন। কারণ ছাড়া কিংবা জরুরি প্রয়োজনে যারা বের হচ্ছেন এবং মুভমেন্ট পাস বা কোনো অনুমতিপত্র না থাকলে তাদের ফেরতও পাঠানো হচ্ছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, রাজধানীর আব্দুল্লাহপুর, হাউজবিল্ডিং, আজমপুর, জসীমউদ্দীন ইউলুপ, বিমানবন্দর ইউলুপ, খিলক্ষেত, কুড়িল, বাড্ডা, রামপুরা, মহাখালী, বনানী, গুলশান, বারিধারা, মিরপুর, পল্লবী, কালশীসহ রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় সড়কে যানবাহন ও পথচারীদের চলাচল নিয়ন্ত্রণে রেখেই কাজ করছে পুলিশ।

একজন মোটরসাইকেল আরোহী রনিচন্দ্র দত্ত ফার্মগেট চেকপোস্ট এসে আটকে পড়েন। তাকে আর যেতে দেওয়া হচ্ছে না। সেখানে কথা এ ব্যাক্তির সঙ্গে জানতে চাইলে বলেন, আমি মিরপুর থেকে আসছি। একটি বিশেষ কাজে কেরানীগঞ্জ যাচ্ছিলাম। তারা আমার কাছে মুভমেন্ট পাস চাচ্ছে। আমি সেটা সম্পর্কে অবগত নই এখন যেতে দিচ্ছে না। বাসায় ফিরে যেতে হচ্ছে। সেই সঙ্গে ৫০০ টাকাও জরিমানা করেছে আমার।

ফার্মগেট মোড়ে প্রতিটি মোটরসাইকেল চেক করছিলেন তেজগাঁও থানার অফিসার ইনচার্জ সালাউদ্দিন। তিনি বলেন, অনেকে জেনে শুনে বের হয়েছে। দেখা গেছে, কেন বের হয়েছে? তাদের কাছে জানতে চাইলে যথাযথ কারণ দেখাতে পারছে না। অনেকেই মুভমেন্ট পাস সম্পর্কে জেনেও এইটা নিয়ে আসেনি। তাই অনিয়ম হলে আমরা ফিরিয়ে দিচ্ছি।

এ বিষয়ে পুলিশ সদর দফতরের সহকারী মহাপরিদর্শক (এআইজি-মিডিয়া) সোহেল রানা বলেন, সরকার যে সব নির্দেশনা দিয়েছে তার আলোকেই পুলিশ কাজ করছে। এছাড়াও করোনাকালে দায়িত্ব পালনের জন্য আমাদের একটি সুলিখিত ও আন্তর্জাতিক মানের এসওপি (স্ট্যান্ডিং অপারেটিং প্রসিডিওর) রয়েছে। সেখানে সুস্পষ্টভাবে উল্লেখ রয়েছে, পুলিশের দায়িত্ব-কর্তব্য ও তা পালনের উপায়। সেই এসওপি অনুসরণ করে সরকারি নির্দেশনার আলোকে দায়িত্ব পালন করছে পুলিশ।

কালের আলো/ডিএসবি/এমজেআরবি

Print Friendly, PDF & Email