প্রধানমন্ত্রীর গাল ধরে আদর করলেন রওশন এরশাদ

প্রকাশিতঃ 8:24 pm | March 22, 2018

অ্যাক্টিং এডিটর, কালের আলো :
বাংলাদেশের রাজনীতিতে সরকারি ও বিরোধী দলের একসঙ্গে বসার নজির নেই। উল্টো সরকার প্রধান ও বিরোধী দলীয় নেতা একে অপরের সমালোচনায় মুখর থাকেন। দশম জাতীয় সংসদে রওশন এরশাদ বিরোধী দলীয় নেতা হবার মধ্যে দিয়ে পুরনো সেই সংস্কৃতিকে বিদায় জানিয়ে রাজনীতিতে নতুন অধ্যায়ের সূত্রপাত করেন।

বঙ্গবন্ধু কন্যা, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে অতীতে অনেকবার পাশাপাশি এক মঞ্চে বসেছেন বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদ। সরকারের গঠনমূলক সমালোচনা করেছেন আবার উচ্ছ্বসিত কন্ঠে সরকারের ইতিবাচক কাজের বা সাফল্যের প্রশংসা করেছেন।

বৃহস্পতিবার (২২ মার্চ) বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানিয়ে স্বভাবসুলভভাবেই বঙ্গবন্ধু কন্যাকে গালে হাত দিয়ে আদর করেন বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদ। এ সময় হাস্যোজ্জ্বল প্রধানমন্ত্রীর পাশাপাশি রওশন এরশাদকেও উচ্ছ্বসিত দেখাচ্ছিল।

স্বল্পোন্নত দেশের তালিকা থেকে উন্নয়নশীল দেশের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হওয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানাতেই মূলত সেখানে গিয়েছিলেন বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদ।
এ সময় তাঁর সঙ্গে ছিলেন স্থানীয় সরকার প্রতিমন্ত্রী মশিউর রহমান রাঙ্গা ও দলটির প্রেসিডিয়াম সদস্য ফকরুল ইমাম এমপি।

জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ফকরুল ইমাম দৈনিক কালের আলোকে বলেন, বিরোধী দলীয় নেতা প্রধানমন্ত্রীকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানোর পর বলেছেন আপনি (প্রধানমন্ত্রী) বাংলাদেশের জন্য বিরাট এক সম্মান বয়ে এনেছেন। আপনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাক। আল্লাহ আপনার সহায় হোক।’

রপর রওশন এরশাদ প্রধানমন্ত্রীর গালে হাত দিয়ে আদর করেন এবং প্রধানমন্ত্রীও তাঁর কাছে দোয়া চান, জানান ফকরুল ইমাম এমপি।

ফকরুল ইমাম বলেন, প্রধানমন্ত্রী বিরোধী দলীয় নেতাকে বলেছেন, আপনাদের (জাতীয় পার্টি) সহযোগিতা অতীতেও পেয়েছি। ভবিষ্যতেও একই রকম সহযোগিতা প্রত্যাশা করি।’

এ প্রসঙ্গে কথা বলতে বিরোধী দলীয় নেতা বেগম রওশন এরশাদ এমপিকে মুঠোফোন ধরে দৈনিক কালের আলো। এ সময় বিরোধী দলীয় নেতা বলেন, বঙ্গবন্ধু আমাদের একটি স্বাধীন সার্বভৌম রাষ্ট্র উপহার দিয়েছেন। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে তাঁর জ্যেষ্ঠ কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।

প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে স্বল্পোন্নত দেশের তালিকা থেকে উন্নয়নশীল দেশের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়েছে বাংলাদেশ। নি:সন্দেহে এটি একটি ঐতিহাসিক অর্জন। এ অর্জনের মধ্যে দিয়ে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নে আমরা আরো একধাপ এগিয়ে গেলাম।’

প্রসঙ্গত, দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন বিএনপি আকস্মিকভাবে বর্জন করলে গণতন্ত্র ও দেশের ধারাবাহিক উন্নয়নের অগ্রযাত্রার স্বার্থে সেই নির্বাচনে অংশ নেয় জাতীয় পার্টি। রওশন এরশাদ সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা নির্বাচিত হন। ‘ময়মনসিংহের কন্যা’ হিসেবে জাতীয় রাজনীতিতে তাঁর সমকালীন ভূমিকা, বলিষ্ঠ নেতৃত্ব নিয়ে গর্ব করেন দলটির নেতা-কর্মীরা।

কালের আলো/এসএম/এএ

Print Friendly, PDF & Email