রপ্তানিযোগ্য পণ্যের বাজার সম্প্রসারণে কাজ করছে মন্ত্রণালয় : বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশিতঃ 12:58 pm | March 10, 2024

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের আলো:

বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটুবলেছেন, ‘রাশিয়া বাংলাদেশের উন্নয়ন সহযোগী বন্ধুপ্রতীম রাষ্ট্র। রাশিয়ার সাথে সমঝোতা স্বারক খাদ্য নিরাপত্তায় সহযোগিতা হবে। শুধু রাশিয়াই নয়, ভারত, মিয়ানমারের সাথে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য নিয়ে চুক্তি প্রক্রিয়াধীন আছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় বাণিজ্য মন্ত্রণালয় দেশের রপ্তানিযোগ্য পণ্যের বাজার সম্প্রসারণে কাজ করছে।

রবিবার (১০ মার্চ) সকালে মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন সংস্থা ট্রেডিং কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি) এবং রুশ ফেডারেশনের কৃষি মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন জেএসসি ফরেইন ইকোনমিক করপোরেশন ‘প্রোডিন্টোর্গ’র মধ্যে একটি এমইউ স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় ঢাকাস্থ রুশ ফেডারেশনের রাষ্ট্রদূত আলেকজান্ডার মন্টিটস্কি, সিনিয়র সচিব তপন কান্তি ঘোষ এবং মন্ত্রণালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

রাশিয়ার পক্ষে জেএসসি ফরেইন ইকোনমিক করপোরেশন ‘প্রোডিন্টোর্গ’র প্রধান জেনারেল ডিরেক্টর মি. এন্ড্রে গুলোভানই এবং বাংলাদেশের পক্ষে ট্রেডিং কর্পোরেশন অব বাংলাদেশের চেয়ারম্যান ব্রিগ্রেডিয়ার জেনারেল মোঃ আরিফুল হাসানসমঝোতা স্বারকে স্বাক্ষর করেন।

এর আগে ঢাকাস্থ রুশ ফেডারেশনের দূতাবাস, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে গত বছরের ২২ জুন প্রেরিত একটি নোট ভারবালের মাধ্যমে জানান যে, রুশ ফেডারেশনের কৃষি মন্ত্রণালয়ের অধীন যৌথ মূলধনী কোম্পানি জেএসসি ফরেইন ইকোনমিক করপোরেশন ‘প্রোডিন্টোর্গ’ বাংলাদেশ জি২জি ভিত্তিতে বিভিন্ন ভোগ্যপণ্য যেমন- হলুদ মটর, ছোলা, মসুর ডাল, সূর্যমুখী তেল ইত্যাদি সরবরাহের আগ্রহ ব্যক্ত করে।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয় জানায়, পরবর্তীতে টিসিবি এবং প্রোডিন্টোর্গ পণ্য সরবরাহের একটি এমইউ স্বাক্ষরের বিষয়ে একমত পোষণ করেন। যেহেতু এমইউ কোন চুক্তি নয় পণ্য সরবরাহের ক্ষেত্রে এক্সপ্রেসন অফ উইল সুতরাং এমইউ স্বাক্ষরিত হলে পরবর্তীতে পণ্য সরবরাহের ভিত্তি হিসেবে বিবেচিত হবে।

কালের আলো/ডিএস/এমএম

Print Friendly, PDF & Email