সাকিবদের হারিয়ে খুলনার জয়ের হ্যাটট্রিক

প্রকাশিতঃ 5:54 pm | January 26, 2024

স্পোর্টস ডেস্ক, কালের আলো:

খুলনা টাইগার্স বিপদে পড়লো শুরুতে। একই দশা হলো রংপুর রাইডার্সের। মাঝে কেবল রোমাঞ্চ বাড়ালেন মোহাম্মদ নবি। তার লড়াইও ব্যর্থ হয়ে গেলো সঙ্গী না থাকায়। শেষ অবধি হার নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয় রংপুরকে।

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) নবম ম্যাচে সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আজ রংপুর রাইডার্সকে ২৮ রানে হারিয়েছে খুলনা টাইগার্স। শুরুতে ব্যাট করতে নেমে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৬০ রান করে খুলনা। জবাব দিতে নেমে ১৩২ রানে অলআউট হয়ে গেছে রংপুর।

টস হেরে আগে ব্যাট করতে নেমে ভালো শুরু পায়নি খুলনা। আগের ম্যাচ জেতানো ইনিংস খেলা অধিনায়ক এনামুল হক বিজয় ফেরেন শূন্য রানে; খেলেন ৭ বল। এছাড়া ভালো করতে পারেননি তিন ও চারে নামা মাহমুদুল হাসান জয় ও আফিফ হোসেনও।

যথাক্রমে তাদের ব্যাট থেকে আসে ১১ বলে ৭ ও ৬ বলে ৪ রান। শুরুর তিন উইকেটই নেন মাহেদী হাসান। এরপর ২৫ বলে ৩৭ রান করা এভিন লুইস উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেন হাসান মাহমুদের বলে। ৬৪ রানে চার উইকেট হারিয়ে ফেলা দলের হাল ধরেন দাসুন শানাকা ও মোহাম্মদ নাওয়াজ।

দুজন মিলে ৫৩ বলে ৭৭ রানের জুটি গড়েন। তাদের জুটিতেই দেড়শ ছাড়ানোর ভিত পায় খুলনা। ৩৩ বলে ৪০ রান করা শানাকাকে আউট করে এই জুটি ভাঙেন হাসান মাহমুদ। ৩৪ বলে ৫৫ রান করে দুই বল বাকি থাকতে আউট হয়ে যান নাওয়াজ। ততক্ষণে ম্যাচে থাকার মতো ভালো পুঁজিই পেয়ে গেছে খুলনা।

রংপুরের পক্ষে ৪ ওভারে স্রেফ ২০ রান দিয়ে দুই উইকেট নেন মাহেদী হাসান, তিন উইকেট পাওয়া হাসান মাহমুদ খরচ করেন ২৯ রান।

রান তাড়ায় নামা রংপুর রাইডার্স দ্বিতীয় ওভারেই ধাক্কা খায়। হারিয়ে ফেলে দলের সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য ব্যাটার বাবর আজমকে। আরও একবার ব্যর্থ হন ব্র্যান্ডন কিং। এদিন তিনে নেমে ৫ বলে মাত্র ১ রান করে আউট হয়ে যান মোহাম্মদ নাওয়াজের বলে। শুরুতে দুই উইকেট হারিয়ে ফেলার পর কিছুটা ধীর হয়ে যায় রংপুর রাইডার্সের রানের গতি।

চারে নেমে ২৫ বলে ২২ রান করে আউট হয়ে যান শামীম পাটোয়ারী। পরের লড়াইটা ছিল শুধুই মোহাম্মদ নবীর। এদিন আট নম্বরে ব্যাট করতে নামেন সাকিব। ৪ বলে ২ রানের বেশি করতে পারেননি তিনি। শেষ ব্যাটার হিসেবে আউট হওয়ার আগে নবী ৪ চার ও ৩ ছক্কায় ৩০ বলে ৫০ রান করেন।

খুলনা টাইগার্সের হয়ে দারুণ বোলিং করেন দাসুন শানাকা। ৩ ওভারে ১৬ রান খরচায় তিনি নেন ৩ উইকেট। দুটি করে ‍উইকেট পান মোহাম্মদ ওয়াসিম ও মোহাম্মদ নাওয়াজ। একটি উইকেট নেন নাসুম আহমেদ।

কালের আলো/এমএইচ/এসবি

Print Friendly, PDF & Email