শেষ বলে পাকিস্তানকে হারালো ভারত

প্রকাশিতঃ 6:07 pm | October 23, 2022

স্পোর্টস ডেস্ক, কালের আলো:

মেলবোর্নে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণটা ছিল ভারতের হাতেই। কিন্তু দারুণ বোলিংয়ে মোমেন্টাম পেয়ে যায় পাকিস্তান। কিন্তু বিরাট কোহলি ও হার্দিক পান্ডিয়ার দৃঢ়তায় সেই মোমেন্টাম ধরে রাখতে পারেনি পাকিস্তান। সবকিছু ছাপিয়ে স্নায়ুক্ষয়ী শেষ ওভারে গিয়ে একেবারে শেষ বলে পাকিস্তানকে হারালো ভারত।

অবশ্য বিশ্বকাপের মঞ্চে এর আগের দেখাতে জিতেছিল পাকিস্তান। এবার অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে সেই হারের বদলা নিল ভারত। ৫৩ বলে অপরাজিত ৮২ রানের ইনিংস উপহার দিয়ে জয়ের নায়ক বিরাট কোহলি।

এদিন নিজেদের প্রথম ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে আগে ব্যাট করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১৫৯ রান করে পাকিস্তান। জবাব দিতে নেমে নির্ধারিত ওভারে জয় তুলে নেয় ভারত।

মেলবোর্নে টস জিতে পাকিস্তানকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানান ভারতীয় অধিনায়ক রোহিত শর্মা। আগে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই বিপদে পড়ে যায় পাকিস্তান।

দ্বিতীয় ওভারের প্রথম বলেই বাবর আজমকে তুলে নেন আর্শদিপ সিং। তরুণ এই পেসারের স্টেইট বল গিয়ে লাগে বাবর আজমের প্যাডে। এলবিডব্লিউর আবেদন করেন আর্শদিপ। তাতে সাড়া দেন আম্পায়ার মারাইস এরাসমাস। রিভিউ নিয়েও রক্ষা পাননি পাকিস্তান অধিনায়ক। ফেরেন গোল্ডেন ডাকে।

অধিনায়ককে হারানোর ধাক্কা না কাটতেই রিজওয়ানকে হারায় পাকিস্তান। তিনিও কাটা পড়েন আর্শদিপের বলে। চতুর্থ ওভারে আর্শদিপের বলে ফাইন লেগে ভুবনেশ্বর কুমারের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন রিজওয়ান। ১২ বলে মাত্র ৪ রান করেন তিনি। মাত্র ১৫ রানে ২ উইকেট হারিয়ে চরম বিপদে পড়ে যায় পাকিস্তান।

সেখান থেকে উদ্ধার করতে জুটি বাধেন ইফতেখার আহমেদ ও শান মাসুদ। এই জুটিতে পথ দেখে পাকিস্তান। দুজন মিলে উপহার দেন ৭৬ রানের চমৎকার জুটি। এক ওভারে অক্ষর প্যাটেলকে পরপর ৪ ছক্কা হাঁকিয়ে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ এনে দেন ইফতেখার।

কিন্তু এরপরই বিদায় নেন ইফতেখার। হাফসেঞ্চুরি ছুঁয়েই বিদায় নেন তিনি। তাঁর বিদায়ের পর ফের ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ হারায় পাকিস্তান। এরপর একে একে বিদায় নেন শাদাব খান ও হায়দার আলি। তবে শেষ পর্যন্ত খেলার আমেজ বাঁচিয়ে রাখেন শান মাসুদ। শাহিন শাহ আফ্রিদিকে নিয়ে পাকিস্তানকে লড়াইয়ের পুঁজি এনে দেন মাসুদ। ব্যাট হাতে ৪২ বলে ৫২রান করেন তিনি। আফ্রিদি করেন ১৬ রান।

ভারতের হয়ে বল হাতে ৩০ রান দিয়ে তিন উইকেট নেন হার্দিক পান্ডিয়া। সমান তিনটি নেন আর্শদিপ সিং। শামি ও ভুবনেশ্বর নেন একটি করে উইকেট।

১৫৯ রান তাড়া করতে নেমে শুরুতেই বিপদে পড়ে যায় ভারত। দ্বিতীয় ওভারেই নাসিমের বলে বিদায় নেন লোকেশ রাহুল। এরপর ফেরেন আরেক ওপেনার রোহিত শর্মা। টিকতে পারেননি যাদবও। জ্বলে ওঠার আগেই তাঁকে থামান হারিস রউফ। ১০ বলে ১৫ রান করেন যাদব। এরপর সাজঘরে ফেরেন অক্ষর প্যাটেল।

৩১ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে যায় ভারত। সেখান থেকে উদ্ধার করতে হাল ধরেন কোহলি ও পান্ডিয়া। এই জুটিতেই পথ দেখে ভারত। জমে ওঠে ভারত-পাকিস্তান লড়াই। সেই লড়াইয়ে শেষ পর্যন্ত শেষ হাসি হাসেন বিরাট কোহলি। দলকে জিতিয়ে বীরের মতো মাঠ ছাড়েন ভারতের সাবেক অধিনায়ক।

কালের আলো/এসবি/এমএম

Print Friendly, PDF & Email