মোসাদ্দেকের ‘পাঁচের’ পর রাজার ফিফটিতে লড়াকু সংগ্রহ জিম্বাবুয়ের

প্রকাশিতঃ 6:48 pm | July 31, 2022

স্পোর্টস ডেস্ক, কালের আলো:

‘আমরা ডেথ ওভারে বাজে বোলিং করেছি। দ্বিতীয় ম্যাচে উন্নতি করবো ইনশাআল্লাহ’- জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে বোলারদের এলোমেলো বোলিং এবং শেষ ৬ ওভারে ৯১ রান দেওয়া নিয়ে এভাবেই ঘুরে দাঁড়ানোর প্রত্যয় জানিয়েছিলেন টাইগারদের নতুন টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক নুরুল হাসান সোহান।

হারারেতে সিরিজ বাঁচানো দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচে এলোমেলো বোলিং থেকে সরে এসেছে বাংলাদেশ। তবে শেষ ৬ ওভারে এদিনও রান দিয়েছেন বোলাররা। প্রথম ম্যাচের মতো ৯১ রান না দিলেও ৬০ রান হজম করেছে টাইগার বোলাররা। তাতে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১৩৫ রান সংগ্রহ করেছে জিম্বাবুইয়ানরা। তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজে সমতায় আনতে টাইগার ব্যাটসম্যানদের করতে হবে ১৩৬ রান।

স্বাগতিকদের লড়াকু স্কোরের জন্য বড় কৃতিত্ব প্রাপ্য সিকান্দার রাজার। প্রথম ম্যাচে ঝড় তোলা রাজা এই ম্যাচেও ফিফটি হাঁকিয়ে করেছেন ৬২ রান। তবে রাজার আগে দ্বিতীয় ম্যাচে জিম্বাবুয়েকে আটকে রাখার বড় কৃতিত্ব টাইগার অফস্পিনার মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের।

জিম্বাবুয়ের ইনিংসের প্রথম ওভারে বোলিংয়ে এসে প্রথম বলেই উইকেট তুলে নেন মোসাদ্দেক। চাকাভাকে ফেরান শূন্য রানে। একই ওভারের শেষ বলে আগের ম্যাচে জিম্বাবুইয়ানদের টপ স্কোরার ওয়েসলি মাধবেরেকে ৪ রানে ফেরান মোসাদ্দেক।

প্রথম দুই ওভারে ২ উইকেট নেওয়া মোসাদ্দেক পরের তিন ওভারে নেন আরও ৩ উইকেট। আর তাতেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ক্যারিয়ারে প্রথম পাঁচ উইকেট নেওয়ার স্বাদ পেলেন মোসাদ্দেক। ওপেনিং বোলিংয়ে এসে টানা চার ওভারের স্পেলে জিম্বাবুয়ের টপ অর্ডারের মেরুদণ্ড ভেঙে দেন মোসাদ্দেক।

প্রথম ৭ ওভার শেষে জিম্বাবুয়ে ৫ উইকেট হারিয়ে করতে পারে ৩২ রান। যার মধ্যে মোসাদ্দেক ৪ ওভারে ২০ রানের বিনিময়ে নেন ৫ উইকেট। প্রাথমিক বিপর্যয় কাটিয়ে জিম্বাবুয়েকে ম্যাচে ফেরান রাজা ও রায়ান বার্ল।

দুইজনে ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে ৮০ রান যোগ করেন। বার্ল ৩২ রান করে হাসান মাহমুদের শিকার হয়ে ফিরলে ভাঙে জুটিটি। ২৮ মাস পর টি-টোয়েন্টিতে নেমেই উইকেট পেলেন হাসান। বার্ল ফিরে যাওয়ার পর রাজাও ফেরেন।

তবে তার আগে ৫৩ বলে ৪ চার ও ২ ছয়ে ৬২ রান করে দলকে লড়াকু সংগ্রহ এনে দেন রাজা। এই ব্যাটসম্যানকে ফেরান মুস্তাফিজ। টাইগারদের পক্ষে মোসাদ্দেক ছাড়া উইকেট শিকার করেন মুস্তাফিজ ও হাসান। মুস্তাফিজ ৩০ রানে ও হাসান ২৬ রানের বিনিময়ে ১টি করে উইকেট শিকার করেন।

কালের আলো/এমএইচ/এসবি

Print Friendly, PDF & Email