অবৈধ অভিবাসনের ভয়াবহতা তুলে ধরলেন আইজিপি

প্রকাশিতঃ 8:39 pm | July 22, 2022

বিশেষ সংবাদদাতা, কালের আলো:

শরীয়তপুর অঞ্চল থেকেই অবৈধ পথে বিদেশ যাওয়ার প্রবণতা বেশি। ফলে শুক্রবার (২২ জুলাই) সেখানেই প্রথমবারের মতো মানবপাচার প্রতিরোধ শীর্ষক মতবিনিময় সভার আয়োজন করে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

এই মতবিনিময় সভায় অবৈধ অভিবাসনের ভয়াবহতা তুলে ধরেন পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড.বেনজীর আহমেদ, বিপিএম (বার)।

তিনি বলেন, ‘২০২০ সালের মে মাসে লিবিয়ায় মানবপাচারকারীদের হাতে বন্দুকের গুলিতে ২৬ জন বাংলাদেশি মারা যান। আহত হন ১২ জন। ওই ঘটনায় ২৬টি হত্যা মামলাসহ ২৬৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়। গ্রেফতার হয় ৫৬ জন।’

অনুষ্ঠানে শরীয়তপুরের সংসদ সদস্য নাহিম রাজ্জাক, পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন, জননিরাপত্তা সচিব মো. আখতার হোসেন, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান সচিব আহমেদ মুনিরুস সালেহিন, ইতালির রাষ্ট্রদূত এনরিকো নুনজিয়াতাসহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

সভায় আইজিপি ড.বেনজীর আহমেদ বলেন, ‘শরীয়তপুর থেকে অনেকে অবৈধ পথে বিদেশে যাওয়ার চেষ্টা করেন। এটি একটি ভয়ানক মরণযাত্রা। এটা থেকে আমাদের সরে আসতে হবে।’

বাংলাদেশিরা অবৈধ পথে গিয়ে হত্যার শিকার হোক এটি সরকার চায় না জানিয়ে তিনি বলেন, ‘কেন ১৫-২০ লাখ টাকা খরচ করে এভাবে যেতে হবে? ইউরোপে তো কেউ প্রাসাদ বানিয়ে বসে নেই। ছোট একটি ঘরে ১৫-২০ জন গাদাগাদি করে বাংলাদেশি থাকে।’

বাংলাদেশের ক্রমবর্ধমান উন্নতির বিষয়ে পুলিশপ্রধান বলেন, এখন হাজার হাজার আফ্রিকান এখানে এসে পাসপোর্ট ফেলে দিয়ে অবৈধভাবে অবস্থান করছে। আমরা কেন এখন বিদেশে যাবো।

মতবিনিময় সভায় জননিরাপত্তা সচিব মো. আখতার হোসেন বলেন, বাংলাদেশে এক লাখ বিদেশি বৈধভাবে কর্মরত। যখন আমরা উন্নত হচ্ছি তখন অবৈধ অভিবাসন গ্রহণযোগ্য নয়।

প্রসঙ্গত, গত বছরের সেপ্টেম্বর থেকে জুলাই পর্যন্ত ১৩৭০ জন বাংলাদেশিকে লিবিয়া থেকে ফেরত আনা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, শরীয়তপুর থেকে অনেকে ইতালি যেতে চান এবং অবৈধ পথে যেতে গিয়ে ভূমধ্যসাগরে ডুবে মারা যান।

কালের আলো/এসবি/এমএম

Print Friendly, PDF & Email